সিসিটিভি কস্মিনকালেও সিকিউরিটি নয়; বরং সুস্পষ্ট একটি প্রতারণা


ইহুদী-খ্রিস্টানরা খুব ভালো করেই জানে- যেখানে ছবি থাকে সেখানে রহমতের ফেরেশতা প্রবেশ করে না এবং সেখানে হাজারো ইবাদত-বন্দেগী করলেও তা কবুল হয় না। তাই তারা সূক্ষ্মভাবে মুসলমানদের ইবাদতের স্থলে হারাম সিসিটিভি লাগিয়েছে।
আর ছবি সম্পর্কে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হাজার হাজার, লক্ষ লক্ষ হাদীছ শরীফ উনাদের মধ্যে “ছবি তোলা, আঁকা, রাখা, দেখা সম্পূর্ণরূপে নাজায়িয ও হারাম” বলেছেন। তিনি আরো বলেছেন, “ক্বিয়ামতের ময়দানে কঠিন শাস্তি হবে প্রত্যেক ছবি তুলনেওয়ালা, আঁকনেওয়ালার”। অপরদিকে “মক্কা শরীফ, মদীনা শরীফ, কা’বা শরীফ ইত্যাদি স্থানের হিফাজতের জিম্মাদার একমাত্র মহান আল্লাহ পাক তিনি”। কাফিরদের আরেকটি গভীর ষড়যন্ত্র হচ্ছে, কা’বা শরীফ-এ ৩৬০টি মূর্তি ছিল; যা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ভেঙে ফেলেন। আর কাফিরেরা সেই মূর্তির বদলে আবার কা’বা শরীফ-এ সিসিটিভি লাগিয়েছে। নাঊযুবিল্লাহ! এ থেকে প্রত্যেক মুসলামানের ইবরত-নছীহত হাছিল করা এবং সাবধান হওয়া উচিত।
মূল বিষয় হচ্ছে, কেউ যদি বোমা মারে তাহলে এই সিসিটিভি কখনো ফিরাতে পারবে না, বরং এরকম হাজার হাজার সিসিটিভি চোখের পলকে গায়েব হয়ে যাবে। তাহলে সিসিটিভি কি করে সিকিউরিটি হতে পারে?

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে