সুন্দর পৃথিবী বানাতে মানুষ অপারগ, সৃষ্টিগতভাবে সে অশান্ত


বুদ্ধিমত্তার বিচারে মানুষ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ প্রাণী। পৃথিবীর প্রতি প্রান্তে আজ মারামারি, হানাহানি যুদ্ধবিগ্রহ ইত্যাদি। এককথায় অশান্ত এই পৃথিবী। কেন পৃথিবীর এই বুদ্ধিমান প্রাণীগুলো পারছে না শান্তিতে বসবাস করতে। যুদ্ধ যেন মানুষের পুরনো পেশায় পরিণত হয়েছে। পৃথিবীটাকে অশান্ত বানিয়ে কেউই কিন্তু লাভবান হচ্ছে না। পৃথিবীর সুন্দর পরিবেশ ধীরে ধীরে জাহান্নামের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। মানুষের বুদ্ধিমত্তা কোথায় জানি চাপা পড়ে আছে। মানুষের সুন্দরতম গুণাবলীগুলো ছায়ার মতো তাড়া করছে তার খারাপ দোষগুলো। ক্রোধ, লোভ, আমিত্ব যেন মানুষের সৎগুণাবলী পুড়ে ছাই করে দিচ্ছে। তাই তো সৃষ্টির আদি থেকে মানুষে মানুষে চলছে আমিত্বের প্রতিযোগিতা। আর ধ্বংস হচ্ছে তথাকথিত সভ্যতা। সভ্যতার বাণী কিন্তু কোনো দিনই মানুষকে শান্তি দিতে পারেনি। শান্তি রক্ষার জন্য এই ধরাধমে এসেছেন কত মহামানব। উনারা শান্তির বার্তা রেখে গেছেন, কিন্তু তা আমলে না আনলে মানুষ শুদ্ধ হতে পারবে না। মানুষের ভীতরের মানুষটা যে পর্যন্ত শুদ্ধ না হবে পৃথিবী সবসময় যুদ্ধরত থাকবে। নিজের ছায়াই মানুষ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। সেই মানুষ কি করে পৃথিবীটাকে শান্তির নীড় বানাবে।
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে