সুমহান সম্মানিত ১৯শে রবীউছ ছানী শরীফ উপলক্ষে সুমহান নিয়ামত মুবারক হাছিল করার সহজ মাধ্যম


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,
مَنْ أَحْب سُنَّتِي فَقَدْ أَحَبَّنِي وَمَنْ أَحَبَّنِي كَانَ مَعِي فِي اَلْجَنة
অর্থ: “যে ব্যক্তি আমার যেকোনো একটি সম্মানিত সুন্নত মুবারক উনাকে মুহব্বত করলো, সে মূলত আমাকেই মুহব্বত করলো। আর যে ব্যক্তি আমাকে মুহব্বত করলো, সে ব্যক্তি সম্মানিত জান্নাতে আমার সাথেই অবস্থান করবে।” সুবহানাল্লাহ!
এই পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার থেকে স্পষ্টভাবে বুঝা যাচ্ছে যে, যে ব্যক্তি সাইয়্যিদুল মুরসালীন ইমামুল মুরসালীন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার যেকোনো একটি সম্মানিত সুন্নত মুবারক উনাকে মুহব্বত করবে, সে ব্যক্তির উপর জাহান্নাম হারাম হয়ে জান্নাত ওয়াজিব হয়ে যাবে। সুবহানাল্লাহ!
শুধু তাই নয়, সে স্বয়ং যিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে সম্মানিত জান্নাত মুবারকে অবস্থান করবে। সুবহানাল্লাহ!
যদি একটি সম্মানিত সুন্নত মুবারক উনাকে মুহব্বত করলে এরূপ বেমেছাল ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান, সন্তুষ্টি-রেযামন্দি মুবারক লাভ করা যায়, তাহলে সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, উম্মু আবীহা, ছিদ্দীক্বা, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, নিবরাসাতুল উমাম হযরত শাহযাদী ছানী ক্বিবলা আলাইহাস সালাম তিনি তো হচ্ছেন স্বয়ং যিনি সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম, মুহইউস সুন্নাহ, সুলত্বানুন নাছীর, জামিউল আলক্বাব, মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ আলাইহিস সালাম উনার মুবারক লখতে জিগার তথা যিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক লখতে জিগার অর্থাৎ হযরত শাহযাদী ছানী ক্বিবলা আলাইহাস সালাম উনার ধমনী মুবারক-এ স্বয়ং মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার রক্ত মুবারক প্রবাহিত। সুবহানাল্লাহ!
তিনি হচ্ছেন সমস্ত সুন্নাহ মুবারক উনাদের মালিকা এবং উনার মুবারক উসীলায়, উনার মুবারক পরশে লক্ষ-কোটি সম্মানিত সুন্নাত মুবারক জারি হয়েছে, হচ্ছে। অনন্তকাল যাবৎ উনার মুবারক পরশে সম্মানিত সুন্নাত মুবারক জিন্দা হতেই থাকবে এবং সম্মানিত সুন্নত মুবারক উনার সুরভী ছড়াতেই থাকবে। সুবহানাল্লাহ!
তাহলে উনাকে যারা মুহব্বত করবে, উনাকে মুহব্বত করে উনার মুবারক বিলাদত শরীফ দিবস তথা সুমহান ১৯শে রবীউছ ছানী শরীফ উপলক্ষে খুশি প্রকাশ করবে, ঈদ পালন করবে এবং খুশি প্রকাশ করে, ঈদ পালন করে সুমহান মাহফিল মুবারক উনার ইনতিজাম করবে, শরীক-শামিল থাকবে, উনার শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান সম্পর্কে মুবারক বর্ণনা করবে অবশ্য অবশ্যই নিঃসন্দেহে তাদের প্রত্যেকের উপর জাহান্নাম হারাম হয়ে জান্নাত ওয়াজিব হয়ে যাবে। সুবহানাল্লাহ!
শুধু তাই নয়, তারা জান্নাতে স্বয়ং মুজাদ্দিদে আ’যম মুহইউস সুন্নাহ মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার এবং সাইয়্যিদুল মুরসালীন ইমামুল মুরসালীন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সাথে সম্মানিত জান্নাত মুবারক উনার মধ্যে অবস্থান করবে এবং উনারা ইহকাল ও পরকালে চূড়ান্ত কামিয়াবী হাছিল করবেন। সুবহানাল্লাহ!
যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের সবাইকে সুমহান ১৯শে রবীউছ ছানী শরীফ উপলক্ষে এই সুমহান নিয়ামত মুবারক নছীব করুন। আমীন!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে