সুস্থ্য থাকতে হলে চাই খাদ্য সচেতনতা: কোমল পানীয় থেকে দূরে থাকুন, রোগ-ব্যাধি থেকে সুস্থ থাকুন


আমাদের দেশে যেকোন পার্টিতে, অনুষ্ঠানে কিংবা অতিথি আপ্যায়নে কোল্ড ড্রিংক্স, সফট ড্রিংক্স কিংবা এনার্জি ড্রিংক্স পরিবেশন করাটা হালের ফ্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমনকি ঘরের অতি আদরের সন্তানদেরও অনেকে অতি উৎসাহে এসব ড্রিংক্স পান করায়। কিন্তু এসব পানীয়ের মধ্যে যে কি পরিমাণ এ্যালকোহল (মদ), কি পরিমাণ ক্ষতিকারক ও রোগ সৃষ্টিকারী স্লো পয়জন মিশ্রিত রয়েছে তা অনেক শিক্ষিত, সচেতনরাও বুঝতে চায় না। এদের অবস্থা অনেকটা ধূমপানকারী ডাক্তারদের মতো।
যাই হোক, মূল কথা হচ্ছে- বাজারে প্রচলিত এসব পানীয় কোনোটাই ঝুঁকিমুক্ত নয়; বরং প্রত্যেকটার মধ্যেই কিছু না কিছু আনুপাতিক হারে অ্যালকোহল মিশ্রিত কিংবা বিষাক্ত উপাদান মিশ্রত যা তিলে তিলে একজন মানুষের দেহে রোগ-ব্যাধি সৃষ্টি করে মৃত্যুর দিকে নিয়ে যায়।
সম্প্রতি আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনস-এর প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে কোমল পানীয় নিয়ে সম্প্রতি এমনই আশঙ্কাজনক তথ্য উঠে এসেছে। সেখানে বলা হয়েছে, বিভিন্ন কোম্পানীর কোমল পানীয় খেয়ে প্রতি বছর প্রায় ২ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। গবেষণা রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, কোকাকোলা, পেপসির মতো বাজারে জনপ্রিয় কোমল পানীয় খেয়ে নানা দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত হচ্ছে বহু মানুষ। এর মধ্যে রয়েছে ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, এমনকি ক্যান্সারও। আর এই রোগগুলির অন্যতম কারণ হিসেবে কোমল পানীয়কেই দায়ী করেছে বিশেষজ্ঞরা। সব ধরনের মিষ্টি নরম পানীয়েরই ক্ষতিকর প্রভাব মিলেছে গবেষণায়।
তাই এক কথায় বলা যায়, সুস্থভাবে বাঁচতে হলে কোমল পানীয়, ঠা-া পানীয়, কথিত এনার্জি ড্রিংক্স চিরতরের জন্য পরিহার করতে হবে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে