হযরত আহলুবাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত ঈমান এবং নাজাতের কারণ আর বিদ্ধেষ পোষন করা কুফরি তথা জাহান্নামী হওয়ার কারণ।নাউযুবিল্লাহ।


হযরত আহলুবাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত ঈমান এবং নাজাতের কারণ আর বিদ্ধেষ পোষন করা কুফরি তথা জাহান্নামী হওয়ার কারণ।নাউযুবিল্লাহ।
*********************************************************************
ইমামুছ ছালিছ এবং ইমামুর রবি মিন আহলি বাইতি রসুলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উনারা নিম্মোক্ত সম্মানিত আয়াত শরীফ ও সম্মানিত হাদিছ শরীফ উনাদের পরিপূর্ন মিজদাক। সুবহানাল্লাহ।
أَلا إِنَّ أَوْلِيَاء اللّهِ لاَ خَوْفٌ عَلَيْهِمْ وَلاَ هُمْ يَحْزَنُونَ
হে আসমান বাসী জমিন বাসী তোমরা সাবধান যারা মহান রব তায়ালা উনার ওলী তথা বন্ধু উনাদের কোন ভয় নেই পেরেশানী নেই চিন্তাও নেই।

الَّذِينَ آمَنُواْ وَكَانُواْ يَتَّقُونَ
যারা ঈমান এনেছে এবং ভয় করতে রয়েছে।
لَهُمُ الْبُشْرَى فِي الْحَياةِ الدُّنْيَا وَفِي الآخِرَةِ لاَ تَبْدِيلَ لِكَلِمَاتِ اللّهِ ذَلِكَ هُوَ الْفَوْزُ الْعَظِيمُ
তাদের জন্য সুসংবাদ পার্থিব জীবনে ও পরকালীন জীবনে। আল্লাহর কথার কখনো হের-ফের হয় না। এটাই হল মহা সফলতা।
— সম্মানিত সুরা ইউনুছ শরীফ উনার সম্মানিত আয়াত শরীফ ৬২-৬৪

পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে উল্লেখ রয়েছে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেন-
والله لادخل قلب امرئى مسلم ايـمان حتى يحبكم لله ولقرابتى
অর্থ: “মহান আল্লাহ পাক উনার কসম! ততক্ষণ পর্যন্ত কোন মুসলমান ব্যক্তির অন্তরে পবিত্র ঈমান দাখিল হবে না (হাক্বীক্বীভাবে ঈমানদার হবে না) যতক্ষণ পর্যন্ত সে ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি মুবারক উনার জন্য আমার সম্মানিত বংশধরগণ উনাদেরকে ।” (মুসনাদে আহমদ শরীফ, তাফসীরে ইবনে কাছীর ৭/১৮০) কাছীর ৭/১৮০)
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং সাইয়্যিদুনা হযরত ছানী আলাইহিস সালাম উনারা একই সম্মানিত নূর মুবারক থেকে সৃষ্টি:
যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার হাবীব, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে এবং ইবনু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত ছানী আলাইহিস সালাম উনাদেরকে একই সম্মানিত নূর মুবারক থেকে সৃষ্টি মুবারক করেছেন। সুবহানাল্লাহ!
এই সম্পর্কে সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,
فخلقتك وأهل بيتك من القسم الأول
অর্থ: “মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, হে হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আমি আপনাকে এবং আপনার পূত-পবিত্র, পবিত্রতাদানকারী সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে সম্মানিত প্রথম ভাগ নূর মুবারক থেকে তথা একই নূর মুবারক থেকে সৃষ্টি মুবারক করেছি।” সুবহানাল্লাহ! (নুযহাতুল মাজালিস ১/২৭৩, নূরে মুহম্মদী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)
আর ইবনু রসূলিল্লাহ ছল্লøাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার, উনার মহাসম্মানিত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম। সুবহানাল্লাহ! কাজেই নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত ছানী আলাইহিস সালাম উনারা একই সম্মানিত নূর মুবারক থেকে সৃষ্টি। সুবহানাল্লাহ!
যারা মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে গালি দিলো, নিন্দা করলো, মন্দ বললো, উনাদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করলো, তারা মূলত মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরকেই গালি দিলো, নিন্দা করলো, মন্দ বললো, উনাদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করলো: নাউযুবিল্লাহ! নাউযুবিল্লাহ! নাউযুবিল্লাহ!
সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,
عَنْ حَضْرَتْ اَلْـحُسَيْنِ بْنِ عَلِىٍّ عَلَيْهِمَا السَّلَامُ اَنَّ رَسُوْلَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ مَنْ سَبَّ اَهْلَ الْبَيْتَ فَاِنَّـمَا يَسُبُّ اللهَ وَرَسُوْلَهٗ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ.
অর্থ: “ইমামুছ ছালিছ মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হুসাইন ইবনে হযরত আলী আলাইহিমাস সালাম উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, যে ব্যক্তি আমার মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে গালি দিলো, নিন্দা করলো, মন্দ বললো, উনাদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করলো, তারা মূলত মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরকেই গালি দিলো, নিন্দা করলো, মন্দ বললো, উনাদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করলো।” না‘ঊযুবিল্লাহ! (সুবুলুল হুদা ওয়ার রশাদ ফী সীরাতি খইরিল ইবাদ ১১/৮
সুতরাং যারা মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে গালি দিলো, নিন্দা করলো, মন্দ বললো, উনাদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করলো, তারা মূলত মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরকে গালি দিলো, নিন্দা করলো, মন্দ বললো, উনাদের প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করলো। না‘ঊযুবিল্লাহ! তাহলে তাদের পরিণতি কত ভয়াবহ হবে তা এখান থেকেই স্পষ্ট হয়ে যায়।
মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের সবাইকে মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের প্রতি দায়ীমি ভাবে মুহব্বত করার তোফিক দান করুন। আমিন।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে