হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনি হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার হুবহু অনুরূপ ছিলেন


হযরত মিছর ইবনে মাখরামা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, স্বয়ং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বলেন, ‘সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি আমার জিসিম মুবারক-এর গোশত মুবারক-এর টুকরাসমূহের একখানা টুকরা মুবারক।’ সুবহানাল্লাহ!
উম্মুল মু’মিনীন হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম তিনি বলেন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি যখন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খিদমতে যেতেন, সাক্ষাৎ করার জন্য, তখন স্বয়ং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার মুহব্বতের কারণে দাঁড়িয়ে উনার নিকটবর্তী হয়ে উনার হাত মুবারক নিয়ে চুম্বন করতেন, বুছা দিতেন। সুবহানাল্লাহ!
চুম্বন করে, বুছা দিয়ে স্বয়ং নূরে মুজাসসাম, হাবীবল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার আসন মুবারক-এ উনাকে বসাতেন। সুবহানাল্লাহ!
আবার ঠিক একইভাবে সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি অনুরূপটা করতেন। যেমন হাদীছ শরীফ-এ এসেছে-
যখন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার সাক্ষাতে যেতেন, তখন সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি তা’যীম করে, তাকরীম করে, মুহব্বত করে তিনি দাঁড়িয়ে তাড়াতাড়ি এসে উনার হাত মুবারক নিয়ে বুছা দিয়ে উনার স্থানে তা’যীম-তাকরীম-এর সহিত উনাকে বসাতেন। সুবহানাল্লাহ!
এই যে বিষয়টা, স্বয়ং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আর কারও সাথে এ রকম ব্যবহার করতেন না। সুবহানাল্লাহ!
উম্মুল মু’মিনীন হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম তিনি বলেন-
ما رأيت احدا اشبه
আমি কাউকে দেখিনি, সাইয়্যিদাতুন নিসা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার থেকে বেশি নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার অনুরূপ।
سمتا وهاديا ودالا
চুপ থাকা, কথাবার্তা, তা’লীম-তালক্বীন মুবারক, ছূরত-সীরত মুবারক, চরিত্র মুবারক, উনার ইতমিনান, ধীরস্থিরতা, চাল-চলন স্বভাব-চরিত্র মুবারক ইত্যাদি প্রতিটি বিষয়ে সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার হুবহু নকশা বা অনুরূপ ছিলেন। সুবহানাল্লাহ!
তিনি অন্য হাদীছ শরীফ-এ বলেন, অনেক সময় আওয়াজ শুনে আমরা মনে করতাম অথবা চালচলন মুবারক-এর শব্দ শুনে মনে করতাম হয়তো নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আসছেন। আমরা তা’যীমের জন্য দাঁড়িয়ে যেতাম। কিছুক্ষণ পর দেখতাম, তিনি নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সরাসরি নন। তবে উনার লখতে জিগার সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ! আর উনার জীবনী মুবারক বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল দেশের পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করা সকল দেশ প্রধানের উপরই ফরয-ওয়াজিব এবং বিশ্বের সকল মুসলমানদের উপর উনার ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী, সম্মান আলোচনা করাও ফরয-ওয়াজিব।
অতএব, বিশ্বের সকল মুসলমানদের উপর ফরয-ওয়াজিব হচ্ছে, উনার জীবনী মুবারক পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করা এবং উনার ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী আলোচনা করার লক্ষ্যে ফয়েজ-তাওয়াজ্জুহ হাছিলের উদ্দেশ্যে ঢাকা রাজারবাগ দরবার শরীফ-এর হযরত মুজাদ্দিদ আ’যম আলাইহিস সালাম উনার নেক ছোহবতে আসা।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+