হরতাল করা যদি গণতান্ত্রিক অধিকার হয়, তবে হরতাল পালন না করাও কি গণতান্ত্রিক অধিকার নয়?


আওয়ামী লিগ বিরোধী দলে থাকতে হরতাল দিয়েছে।
বিএনপি দিচ্ছে।
জামাত, সিপিবি হরতাল দিচ্ছে।
এমনকি নতুন একটি দল জন্ম নিয়ে সেও হরতাল দিচ্ছে।
তাই কোন বিশেষ দলকে নির্দেশ করে এই পোস্ট নয়, এই পোস্ট সকলের উদ্দেশ্যে।

কথা হচ্ছে, হরতাল করা যদি গণতান্ত্রিক অধিকার হয়, তবে হরতাল বর্জন করাও গণতান্ত্রিক অধিকার। একটি দল হরতাল দিতেই পারে। তার মানে এই নয় যে, একটি দলে ডাকা হরতাল পালন করতে জনসাধারণ বাধ্য।

যে দল হরতাল ডেকেছে, তাদের ভক্ত, অনুসারীরা হরতাল পালন করবে, নিজেদের দরজা-কপাটে তালা ঝুলিয়ে রাখবে, নিজেদের যান-বাহন বের করবে না। সেটাই তো তাদের অধিকার।

কিন্তু জনসাধারণ যদি হরতাল পালন না করে রাস্তাঘাটে গাড়ি-ঘোড়া নিয়ে বের হয়, তবে এটা কি জনসাধারণের দোষ? জনসাধারণের কি এটা গণতান্ত্রিক অধিকার নয় যে, তারা যে কোন সময় যানবাহন চালিয়ে চলাফেরা করবে।

তাহলে কোন দল হরতাল ডাকলে কেন তারা নিরপরাধ, নিরীহ জনসাধারণকে রাস্তাঘাটে মারধর করে, কেন তারা জনসাধারণের গাড়ি পুড়িয়ে দেয়, দোকানপাট ভাংচুর করে?

যারা হরতাল দিতে চায়, তারা দিক। কিন্তু রাস্তাঘাটে জনসাধারণে উপর আক্রমণ যেন না করা হয়, সেজন্য সকল রাজনৈতিক দলকে ব্যক্তিগতভাবে আহ্বান করছি।

এরপরও আসুন জেনে নেই, হরতাল সম্পর্কে ইসলাম কি বলে।
Click This Link

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

  1. Saiyeed ApurboSaiyeed Apurbo says:

    Rose
    ঠিক বলেছেন ভাইয়া।

  2. ঠিক কথা। এত ঠেকা পরলে নিজ নিজ গাড়িতে আগুন দেক। জনগনের টাতে না।

  3. অাহমাদ ফখরুদ্দীন শাহীন মুহম্মদ আব্দুল্লাহশাহীন মুহম্মদ আব্দুল্লাহ says:

    হরতাল করা কাট্টা হারাম ও কুফরী। কোন অবস্থাতেই কোন মুসলমান হরতাল করতে পারেনা। হরতালকে সমর্থন করতে পারেনা। যদিও আম ফাতোয়া মতে কিছু আমল হারাম জানার পর হারাম জেনে করলে তা চরম ফাসেকী কিন্তু এই ফাতোয়া হরতালের জন্য কোন অবস্থাতেই প্রযোজ্য নয়।তবে যিনি মজলুম উনার কথা ভিন্ন। মনে রাখতে হবে যারা হারাম জানার পরও হরতাল করবে, মুসলমান উনাদের জান মাল, ইজ্জত সম্মান, দেশের ক্ষতি সাধিত করবে এবং এই কাজ গুলো সামর্থন করবে,টাকা পয়সা খরচ করবে,আনন্দ উল্লাস করবে হোক তা গনতান্ত্রিক আর অগণতান্ত্রিক ভাবে,সামাজীক আর অসামাজীক ভাবে তারা অবশ্যই অবশ্যই কুফরী করবে।

  4. MNURUNNABI says:

    গণতন্ত্র তো কোন দিনও শান্তি দিতে পারবে না। কারণ গণতন্ত্র হচ্ছে মানুষের তৈরী মতবাদ। আর ইসলাম হচ্ছে আল্লাহপাক এবং উনার হাবীব প্রদত্ত নিয়ম নীতি। অতএব আমরা মানুষের তৈরী মতবাদ বাদ দিয়ে ইসলামের আলোকে জীবন পরিচালনা করি। তাহলে আশা করি জীবনের সব ক্ষেত্রে শান্তি ফিরে আসবে। আর এর জন্য প্রয়োজন জামানার ঈমাম ও মহান মুজ্জাদ্দিদ উনাদের সোহবতে আশা।

  5. MNURUNNABI says:

    গণতন্ত্র তো কোন দিনও শান্তি দিতে পারবে না। কারণ গণতন্ত্র হচ্ছে মানুষের তৈরী মতবাদ। আর ইসলাম হচ্ছে আল্লাহপাক এবং উনার হাবীব প্রদত্ত নিয়ম নীতি।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে