হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার উনার শাদী মুবারক


বসরা হতে বাণিজ্য কাফেলা ফিরে আসার তিন মাস পর হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার পিতৃব্য আমর ইবনে আসাদের মাধ্যমে হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সঙ্গে বিবাহের প্রস্তাব করেন। কিন্তু হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বভাবসূলভ লজ্জাবশত, নীরবতার মাধ্যমে এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।

এক রাতে হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম তিনি স্বপ্নে দেখেন যে, সূর্য একটি আলোর পিণ্ডরূপে উনার গৃহে পতিত হয়। এ আলোতে সমগ্র পবিত্র মক্কা শরীফ আলোকিত হয়ে উঠে। এ স্বপ্নের ব্যাখ্যার জন্য তিনি স্বপ্নের তাবিরবীদগণের সঙ্গে আলোচনা করেন। তাঁরা উল্লেখ করেন, কোনো আলোকসম্পন্ন ব্যক্তির সঙ্গে উনার শুভ পরিণয় ঘটবে।

এ স্বপ্ন দেখার পরদিনই তিনি মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকট পুনরায় বিবাহের প্রস্তাব প্রেরণ করেন। এ প্রস্তাবে হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম তিনি উল্লেখ করেন যে, আমি দাম্পত্য সম্পর্কে আবদ্ধ হতে চাই এ কারণে যে, আপনি আমার বংশগত আত্মীয়। আপনার পারিবারিক ঐতিহ্য, ব্যক্তিগত বিশ্বস্ততা, আন্তরিকতা, সংযত স্বভাব, সত্যবাদিতা ইত্যাদি সকলেরই শ্রদ্ধা উৎপাদন করে।

পুনরায় প্রস্তাব আসার পরে হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার চাচা আবূ তালিব ও বংশের বর্ষীয়ানদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। সকলেই হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার প্রস্তাবকে একটি সৌভাগ্যের ইঙ্গিত হিসেবে বিবেচনা করেন।

বিবাহের জন্য নির্ধারিত দিনে আবূ তালিব স্বীয় ভাই হযরত হামযা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুসহ হাশিমী গোত্রের নেতৃস্থানীয়দের নিয়ে হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার বাড়িতে গমন করেন। তখন নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বয়স মুবারক ছিল ২৫ বছর। বিবাহ মুবারক অনুষ্ঠিত হয় আনুষ্ঠানিক নুবুওওয়াত প্রকাশের ১৫ বছর পূর্বে।

এ বিবাহ সম্পাদনকালে উম্মুল মু’মিনীন হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার অভিভাবক ছিলেন উনার পিতৃব্য আমর ইবনে আসাদ। এ বিবাহের মোহরানা নির্ধারিত হয় ৫০০ দিরহাম। নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বয়ং উনার বিশটি উট বিক্রয় করে এ বিবাহের মোহরানা আদায় করেন।

বিবাহের পর হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার অফুরন্ত ধন ভাণ্ডার হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খিদমতে স্বেচ্ছায় হাদিয়া করে দেন। সর্বপ্রথম যেদিন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে সাক্ষাৎ মুবারক সংঘটিত হয়, সেদিন তিনি রাস্তায় প্রতি ক্বদম মুবারকের নিচে স্বর্ণের প্লেট বিছিয়ে দিয়ে সাদর সম্ভাষণ জানান। সুবহানাল্লাহ!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে