হারাম পন্থায় ইসলাম কায়েমের চেষ্টা


হারাম উপায়ে ইসলাম প্রচারের কথা কুরআন-সুন্নাহ্র কোথাও নেই। ইসলাম প্রচার করতে হলে আল্লাহ্ পাক-এর বিধান অনুযায়ী করতে হবে। যেমন আল্লাহ্ পাক কুরআনুল করীমে ইরশাদ করেন,

وان احكم بينهم بما انزل الله ولا تتبع اهواءهم.
অর্থঃ- “তারা আপনার নিকট কোন মোকদ্দমা নিয়ে আসলে, তার ফায়সালা শরীয়ত অনুযায়ী করুন। আর তাদের প্রবৃত্তির অনুসরণ করবেন না।” (সূরা মায়িদা/৪৯)

এ আয়াত শরীফ হতে বুঝা যায় যে, সর্ববিধ ক্ষেত্রেই আল্লাহ্ পাক-এর বিধান অনুযায়ী ফায়সালা করতে হবে। আর যারা আল্লাহ্ পাক-এর বিধান অনুযায়ী ফায়সালা করবেনা, তাদের সম্পর্কে আল্লাহ্ পাক বলেন,
ومن لم يحكم بما انزل الله فاولئك هم الكفرون.
অর্থঃ- “আল্লাহ্ পাক যা নাযিল করেছেন, তদানুযায়ী যারা ফায়সালা করেনা, তারাই কাফির।” (সূরা মায়িদা/৪৪)

কুরআন শরীফে ইরশাদ হয়েছে,
وقد فصل لكم ما حرم عليكم.
অর্থঃ- “তোমাদের প্রতি যা হারাম করা হয়েছে, আল্লাহ্ পাক তা স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন।” (সূরা আনয়াম/১১৯)

আর সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এ আয়াত শরীফের তাফসীরে বলেন,
الحلال بين والحرام بين وبينهما مشتبهات.
অর্থঃ- “হালাল সুস্পষ্ট, হারামও সুস্পষ্ট। এর মাঝে কিছু জিনিস আছে, যা সন্দেহজনক।” (বুখারী শরীফ)

অনুরূপভাবে অন্য রেওয়ায়েতে বর্ণিত রয়েছে,
الحلال بين والحرام بين دع ما يريبك الى ما لايربيك.
অর্থঃ- “হালাল স্পষ্ট এবং হারাম স্পষ্ট। যা সন্দেহজনক তা ছেড়ে দাও। যার মধ্যে কোন সন্দেহ নেই, সেদিকে ধাবিত হও।” (বুখারী শরীফ)

এ হাদীস শরীফের দ্বারা এটাই প্রতীয়মান হয় যে, যা হারাম তাতো অবশ্যই ছেড়ে দিতে হবে। আর যা সন্দেহজনক, তা থেকেও বেঁচে থাকতে হবে। এ পরিপ্রেক্ষিতে শরীয়তের উছূল হলো,
ما ادى الى الحرام فهو حرام.
অর্থঃ- “যা হারামের দিকে নিয়ে যায়, তাও হারাম।”

কাজেই যে সমস্ত কাজ মানুষকে হারামের দিকে নিয়ে যায়, তা পরিহার করা অবশ্য কর্তব্য। আর ছবি তোলা, গণতন্ত্র, লংমার্চ, কুশপুত্তলিকা দাহ, হরতাল ইত্যাদি সবই বিধর্মীদের রীতি-নীতি এবং স্পষ্ট হারাম। তা অবশ্যই ছেড়ে দিতে হবে। আর যারা হারাম বা শরীয়তের খেলাফ কাজ করে, তাদেরকে অনুসরণ করতে আল্লাহ্ পাক নিষেধ করেছেন।

ইরশাদ হয়েছে,
ولا تطع من اغفلنا قلبه عن ذكرنا واتبع هوه وكان امره فرطا.
অর্থঃ- “ঐ ব্যক্তিকে অনুসরণ করোনা, যার অন্তর আমার যিকির থেকে গাফিল ও যে প্রবৃত্তির (নফ্সের) অনুসরণ করে এবং যার কাজসমূহ শরীয়তের খেলাফ।” (সূরা কাহ্ফ/২৮)

অতএব, হালালকে হালাল জানতে হবে আর হারামকে স্পষ্ট হারাম জানতে হবে । এবং হারাম থেকে দূরে থাকতে হবে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে