হিন্দুদের প্যাঁনপ্যানানিই হিন্দুদের শক্তির উৎস


গত এক দশক ধরে বাংলাদেশে প্রভাবশালী হয়ে উঠেছে হিন্দুরা। সরকার ও প্রশাসন উভয়ই হিন্দুদের তোয়াজ করতে ব্যস্ত। এরই সাইড ইফেক্ট গিয়ে পড়েছে মুসলমানদের উপর। দেশের মোট জনসংখ্যার ৯৫% এর বেশী হয়েও মুসলমানরা আজকে অবহেলিতনির্যাতিত। হঠাৎ করে এমন কোন সিক্রেট ফর্মূলা পেয়ে গেল হিন্দুরা যার বদৌলতে তারা মাত্র ২-৩% অর্থাৎ সাইজে পিপড়ার মতো হয়েও হাতিকে চ্যালেঞ্জ করছে?

বর্তমানে বাংলাদেশের হিন্দুরা যে সিক্রেট শক্তির অধিকারী তার নাম প্যাঁনপ্যানানি। একটা উদাহরণ দিলে বিষয়টি পরিস্কার হবে। কয়েক মাস আগের একটি ঘটনা। একজন হিন্দু মহিলা রাস্তা পার হতে গিয়ে অসাবধানতাবশত একটি গাড়ির নিচে চাপা পড়ার উপক্রম হয়। সাথে সাথে গাড়ির ড্রাইভার গাড়ি থেকে নেমে মহিলাকে উঠতে সাহায্য করে। তখন দেখা যায় যে মহিলার তেমন কিছু হয়নি। কিন্তু যেই সেখানে কিছু লোকজন এসে জমা হয়তখন সে চেঁচাতে শুরু করে যেআমি হিন্দু দেখে আমাকে গাড়ি চাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। তখনই হঠাৎ সবাই ব্যস্তহয়ে পড়ে মহিলাকে সাহায্য করার জন্য এবং ড্রাইভারকে উত্তমমধ্যম দেওয়ার জন্য।

পাঠকএখানে লক্ষ্যণীয় বিষয় হলোমহিলাটি বলতে পারতো যে আমি মহিলা দেখে অথবা আমি গরীব দেখে এরকম করলো। কিন্তু তা না বলে সে বললো যে আমি হিন্দু দেখে…..

রংপুরে আমরা দেখেছি যে হিন্দুরা নিজেরাই নিজেদের বাড়িতে আগুন দিয়েছে এবং ব্যাপক প্রচার করেছে যে মুসলমানরাই নাকি তাদের ঘরে আগুন দিয়েছে। এর ফলে তাদের যে লাভ হয়েছে তা হলো- ১. তারা মুসলমানদের রাসূল নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে নিয়ে ব্যঙ্গ চিত্র প্রচার করেছিলোসেই দোষ ঢাকা পড়েছে২. পুলিশের গুলিতে ৬জন মুসলমানের জীবন গিয়েছে৩. বাড়ি-ঘর নতুন করে তৈরী করার জন্য সরকারের ত্রানের টাকা পেয়েছে।

এই একই পদ্ধতি ফলো করে আমেরিকা আফগানিস্তানে যুদ্ধ বাধিয়েছে এবং আফগানিস্তানকে ধ্বংস করে দিয়েছে। টুইন টাওয়ার ধ্বংসের পিছনে আমেরিকার হাত ছিলো এটা সারা বিশ্বে সবাই জানে। কিন্তু তারপরও তারা এক টুইন টাওয়ার ধ্বংসের অজুহাত দিয়ে এখনো সারা বিশ্বের মুসলমানদেরকে অবর্ণনীয় নিপীড়ন করে যাচ্ছে।

আরো অতীতে যাই। ইহুদীরা ফিলিস্তিন রাষ্ট্র দখল করলো কিভাবে জানেনহলোকাস্ট নিয়ে তারা সারা দুনিয়ায় ব্যাপক প্রচার চালিয়েছিলো যে তাদেরকে জাতিগতভাবে নিধন করা হচ্ছেতাই তাদের স্বাধীন রাষ্ট্র প্রয়োজন। এই কথা বলে পুরোপুরি নাটকীয়ভাবে তারা ফিলিস্তিনি মুসলমানদের থেকে ইসরায়েল রাষ্ট্রের জায়গা নিয়েছিলো। আর আজকে আমরা দেখতে পাচ্ছি যে ইহুদীরা উল্টো ফিলিস্তিনিদেরকেই অত্যাচার-নিপীড়ন করছেতাদের প্রথম কিবলা বাইতুল মুকাদ্দাস দখল করে নিয়েছে।

এই একই ফর্মূলা এপ্লাই করে হিন্দুরাও মুসলমানদেরকে অপদস্থ করে যাচ্ছে। বর্তমানে মূলধারার হিন্দুত্ববাদীদের একটি অংশের কার্যক্রম হলো অখ্যাত হিন্দুদের নির্যাতনের ফলস ঘটনা সাজানো এবং মিডিয়ায় হাইলাইট করা।

সেরকমই একজন হলো বরিশালের কল্যান কুমার চন্দ। অখ্যাত দৈনিক সংবাদ পত্রিকার সাংবাদিক যার কাজ হলো নিম্ন শ্রেণীর হিন্দুদেরকে তোতা পাখির মতো শিখিয়ে পড়িয়ে তাদের থেকে নির্যাতিত হওয়ার সাক্ষাৎকার নেয়া এবং পত্রিকায় সংবাদ করেসরকার  প্রশাসনের থেকে অবৈধ সুযোগসুবিধা আদায় করা।(ফেইসবুক আইডি: https://goo.gl/3yF858)

এরকম কার্যক্রম হিন্দুদের প্রতিটি কমিউনিটি থেকে নেওয়া হচ্ছে। ফলাফল হচ্ছে আজকে কমিউনিটি সেন্টারে হুড়োহুড়ির ফলে দুর্ঘটনার মৃত্যুর জন্য তারা রাষ্ট্রীয় অনুদান পাচ্ছে। পুজার ভাতাঅনুদানসরকারী চাকরীবিভিন্ন ক্ষেত্রে অঘোষিত কোটা- সবই তারা পাচ্ছে ৯৫% মুসলমানদের ট্যাক্সের টাকা থেকে। অর্থাৎ তারা ক্রমান্বয়ে আমেরিকার ইহুদীদের মতো সুপার মাইনোরিটি স্ট্যাটাস দখল করে নিচ্ছে।

এই প্যাঁনপ্যানানি, ঘ্যানঘ্যানানিই তাদের মূল শক্তি। তাদের পেশী শক্তিঅর্থ শক্তি না থাকার পরও শুধু জিহবার জোরে তারা মুসলমানদেরকে পরাজিত করে ফেলেছে। ইহুদীদের থিওরী প্রয়োগ করে তারা মুসলমানদেরকে পরাস্ত করে চলেছে আর অথর্ব মুসলমান তাদের ধর্মের শিক্ষা ভুলে হাতি হয়েও পিপড়ার পায়ের নিচে চাপা পড়ে রয়েছে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে