হিন্দুদের বৈশাখী পূজা উপলক্ষে বোনাস বাতিল করতে হবে |


12742377_1738066139757158_5162021209883258107_n

===================================
৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত দেশে হিন্দুয়ানী পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে নয়, বরং ‘১২ই রবীউল আউওয়াল শরীফ উপলক্ষে বোনাস’ দিতে হবে।
সম্প্রতি (১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ ) খবরে এসেছে পহেলা বৈশাখে ‘বাংলা নববর্ষ ভাতা’ নামে একটি উৎসব ভাতা চালু করতে যাচ্ছে সরকার। সরকারি চাকরিজীবীদেরকে তাদের মূল বেতনের ২০ শতাংশ হিসেবে এই বোনাস দেয়া হবে। (সূত্র: দৈনিক সকালের খবর, ১০.০৯.২০১৫)

এখানে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন আসে- সারা বছরে এত উৎসব থাকার পরেও পহেলা বৈশাখে কেন এই বোনাস দেয়া হচ্ছে? বলা হচ্ছে, পহেলা বৈশাখ সার্বজনীন উৎসব। নাউযুবিল্লাহ! তাই সবার মাঝেই এই উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে দিতেই এই বোনাস দেয়া হচ্ছে। নাউযুবিল্লাহ! অথচ পহেলা বৈশাখে মুসলমানদের কোনো উৎসব নেই; বরং হিন্দু ও উপজাতিদের বিভিন্ন রকম পূজা রয়েছে। এই পহেলা বৈশাখে রয়েছে –
(১) হিন্দুদের ঘটপূজা,
(২) গণেশ পূজা,
(৩) সিদ্ধেশ্বরী পূজা,
(৪) ঘোড়ামেলা,
(৫) চড়ক বা শিবের উপাসনা,
(৬) গম্ভীরা পূজা,
(৭) কুমীরের পূজা,
(৮) চৈত্রসংক্রান্তি পূজা-অর্চনা,
(৯) অগ্নিনৃত্য,
(১০) ত্রিপুরাদের বৈশুখ,
(১১) মারমাদের সাংগ্রাই ও পানিউৎসব,
(১২) চাকমাদের বিজু উৎসব
(১৩) হিন্দু ও বৌদ্ধদের উল্কিপূজা,
(১৪) মজুসি তথা অগ্নিপূজকদের নওরোজ।
তাহলে এখানে পরিষ্কার করে দেখা যাচ্ছে যে, পহেলা বৈশাখে মুশরিকদের অনেক পূজা থাকলেও মুসলমানদের কোনো উৎসব নেই। তাহলে কি করে এখানে মুসলমানদেরকে জড়ানো যেতে পারে?
তাই ৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত দেশে সবাই যেন বেশি বেশি করে খুশি প্রকাশ করে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করতে পারে সেজন্য ‘১২ই রবীউল আউওয়াল শরীফ উপলক্ষে বোনাস’ প্রদান করতে হবে!

Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে