হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত পিতামাতা আলাইহিমুস সালাম উনারা জান্নাতী নন,বলাটা কুফরী!


আজ ২রা মুহররমুল হারাম শরীফ।
মুসলিম উম্মাহর জন্য এবিশেষ দিনটিও সম্মানিত এবং বরকতময়।
কেনো???
এ পবিত্র দিনে যিনি নূরে মুজাসসাম,হাবীবুল্লাহ,হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত পিতা হযরত আবদুল্লাহ যবীহুল্লাহ আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র বিছালী শান মুবারক প্রকাশ দিবস।
তিনি দুনিয়ার যমীনে ২৫বছর ৬মাস সময় অবস্থান করার পর এ সম্মানিত দিনে মহান আল্লাহ পাকের সান্নিধ্যে গমন করেন।
মানুষ যেহেতু উনার সম্পর্কে আলোচনা করে না,তাই জানে না।যা একটু আলোচনা হয় তাও ভুলে ভরা এবং ক্ষেত্রবিশেষে কুফরীমূলক!
যেমন , মানুষ বলে থাকে যে,হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত আব্বা আম্মা আলাইহিমুস সালাম উনারা জাহান্নামী,ঈমান ছিলো না,মুশরিক ছিলেন ইত্যাদি!নাঊযুবিল্লাহ!!!
মূলত উনারা জাহান্নামী তো নয়ই বরং উনারা সম্মানিত জান্নাতের মালিক।সুবহানাল্লাহ!
আর ঈমানের বিষয়ে বলার তো প্রশ্নই আসে না!কেননা,মহান আল্লাহ পাক জানিয়েছেন যমীনে সবচেয়ে নিকৃষ্ট তারাই যারা মুশরিক,যারা ঈমান আনেনি ,আর তারাই নাপাক।
অর্থাৎ মুশরিকরা ঈমান না আনার কারণে অপবিত্র।আর হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত আব্বা আম্মা আলাইহিমুস সালাম উনাদের পবিত্রতা তথা ঈমান সম্পর্কে বর্ণিত আছে যে,
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মনিত পিতা-মাতা আলাইহিমাস সালাম উনারা ফিতরাত যুগের অন্তর্ভুক্ত ছিলেন এবং উনারা দ্বীনে হানিফের উপর কায়িম ছিলেন।
পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “হে আমার হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনার স্থানান্তরিত হওয়ার বিষয়টিও ছিল সিজদাকারীগণ উনাদের মাধ্যমে।” (পবিত্র সূরা শুয়ারা শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ২১৯)
আলোচ্য পবিত্র আয়াত শরীফ উনার তাফসীরে আল্লামা হযরত ইমাম ইবনে হিববান রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেন, “আখিরী রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র নূর মুবারক সিজদাকারীগণ উনাদের মাধ্যমে স্থানান্তরিত হয়েছিলেন।” (সীরাতুল হালাবিয়া- ১/৪৫) সুবহানাল্লাহ!
সুতরাং উনারা যে ঈমানদার ছিলেন এ বিষয়টি স্পষ্ট।
মহান আল্লাহ পাক যেন আমাদের সকলকেই সহীহ সমঝ দান করেন এবং উনাদের সম্পর্কে সঠিক আক্বীদা পোষণ করার তৌফিক দান করেন।আমীন।

Views All Time
3
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে