সুমহান ২১শে জুমাদাল উখরা শরীফ মুবারক হো!


Picture12
সাধারনভাবে শরীয়তের বিধান হচ্ছে, কতলের বদলা কতল। কিন্তু একজন বিশেষ ব্যক্তিত্বা মুবারক উনার ক্ষেত্রে এই নিয়মের ব্যতিক্রম হয়েছিল। হিজরত মুবারকের সময় উনাকে কিছু সংখ্যক কুরাইশ আক্রমণ করেছিল। সেই আক্রমণকারীদের বিরুদ্ধে সারিয়্যাহ প্রেরণ করেছিলেন স্বয়ং রউফুর রহীম, রহমাতুল্লিল আলামীন, আমাদের প্রাণপ্রিয় নবীজী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি। শুধু তাই নয়, হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদেরকে নির্দেশ মুবারক দিয়েছেন, “আপনারা যদি তাকে (আক্রমণকারীকে) হাতের মুঠোয় পান, তাহলে তাকে লাকড়ির দুই আঁটির মাঝে রেখে তাতে আগুন জ্বালিয়ে দিবেন।” (সুনানে সা‘ঈদ ইবনে মানছূর ২/২৮৬)। কিন্তু যেহেতু কাউকে আগুন দিয়ে শাস্তি দেয়া মহান আল্লাহ পাক উনার শান মুবারক তাই পরে নির্দেশ মুবারক দিয়েছেন “যদি আপনারা তাকে পান, তাহলে প্রথমে তার ডান হাত কাটবেন। তারপর ডান পা কাটবেন। অতঃপর বাম হাত কাটবেন। তারপর বাম পা কাটবেন। কিন্তু সারিয়্যাহ তাকে পায়নি।” (সুনানে সা‘ঈদ ইবনে মানছূর ২/২৮৬) । সুবহানাল্লাহ!
কে এই এই বিশেষ ব্যক্তিত্বা মুবারক, যাঁকে হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এতো অধিক মুহব্বত করতেন? তিনি হলেন হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রথমা কন্যা, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, আন-নুরুল ঊলা, হযরত যাইনাব আলাইহাস সালাম। সুবহানআল্লাহ! তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে নুবুওওয়াত মুবারক প্রকাশের প্রায় ১১ বছর পূর্বে ২১শে জুমাদাল উখরা শরীফ ইয়াওমুল জুমুয়াহ শরীফ বা’দ ফজর দুনিয়ায় তাশরীফ মুবারক আনেন। সুবহানাল্লাহ!
আজ সেই মহাসম্মানিত বরকতপূর্ণ দিন। মহান রব্বুল আলামীন আমাদের সবাইকে এই মুবারক দিনের সমস্ত রহমত, বরকত, নিয়ামতের হিস্যা লাভ করার তৌফিক দান করুণ!
Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে