৪ঠা রবীউল আউওয়াল শরীফ মুবারক হো!


12593767_1529914687312686_6141870627149360198_o

 

হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি বলেন যে, উনার সম্মানিত পিতা ইন্তেকালের সময়ে বারবার বলছিলেন, “আমি আমার অন্তরে হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত অনুভব করছি।” সুবহানাল্লাহ! পিতার ঐ কথাটি তিনি তখন ফিকির করেননি। কিন্তু পরে চিন্তা করে দেখেছেন, প্রকৃতপক্ষে এটাই হাক্বীকি কামিয়াবি। হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বতে যে ইন্তেকাল করতে পারবে, মহান আল্লাহ পাক এবং উনার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের খাছ সন্তুষ্টি মুবারক সে হাছিল করতে পারবে।

হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত করার পূর্বশর্ত হল উনাদের বিষয়ে জানা। উনাদের ব্যাপারে যতবেশি আলোচনা করা হবে ততবেশি জ্ঞান লাভ করা যাবে, ততবেশী উনাদের মুহব্বত অন্তরে পয়দা হবে। আলোচনার জন্য উত্তম উছীলা হল হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সংশ্লিষ্ট বিশেষ দিনসমূহ।

আজ সেই দিনগুলির মধ্যে একটি। হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার তৃতীয় ছেলে সন্তান, আন নুরুছ ছালিছ সাইয়্যিদুনা হযরত ত্বহির আলাইহিস সালাম তিনি ৪ঠা রবীউল আউওয়াল শরীফ ইয়াওমুল আরবিয়া (বুধবার) সকালে দুনিয়ার জমীনে তাশরীফ মুবারক গ্রহণ করেন। সুবহানাল্লাহ! তারপর মাত্র আট দিন পরে তিনি ১২ই রবীউল আউওয়াল শরীফ ইয়াওমুল খমীছ (বৃহস্পতিবার) চাশতের সময় দুনিয়া থেকে মুবারক বিদায় গ্রহণ করেন।

এখানে উল্লেখ্য যে, হযরত আবনাউ রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা সকলেই খুব অল্প বয়স মুবারকে দুনিয়া থেকে মুবারক বিদায় গ্রহণ করেছেন। এর পিছনে একটি হিকমত হল, হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হলেন শেষ নবী ও রসূল। কিন্তু হযরত আবনাউ রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা যদি জমীনে অবস্থান করতেন তাহলে উনারা প্রত্যেকেই নবী ও রসূল হিসেবে প্রকাশিত হতেন। সুবহানাল্লাহ!

Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে