৭১’র ভারতীয় ক্রীতদাস তারা!


“সারেন্ডার কারুংগা, মগর মুক্তি কে পাস নেহি, হিন্দুস্তানী ফৌজ কে পাস করুংগা।” ১৯৭১ সালে ডিসেম্বরের গোড়ার দিকে বাংলাদেশের বিভিন্ন রণাঙ্গনে পলায়নপর তৎকালীন পাকিস্তানী বাহিনীর শিবিরে প্রায় সবারই মুখে এই-ই ছিলো সর্বশেষ স্লোগান। এতো দম্ভোক্তি, এতো হত্যা, এতো ধ্বংসের পর অবশিষ্ট পাকী সেনাদের এই হচ্ছে শেষ পরিণতি।” (সূত্র: ‘গয়রহ’’, এমআর আখতার মুকুল, পৃষ্ঠা ১৩৪)
একাত্তরের চরমপত্র অনুষ্ঠানের পাঠক, সাংবাদিক এমআর আখতার মুকুল উপরোক্ত লেখাতে পাকি হানাদারদের ভারতের নিকট আত্মসমর্পণের লজ্জাজনক ইতি টানার বিষয়টি তুলে ধরেছেন। তারা এই দেশের সাধারণ মুসলমানদের উপর টানা ৯ মাস ধরে ‘ভারতীয় দালাল’ অপবাদ দিয়ে তাদের অকথ্য নির্যাতন করেছে, কিন্তু শেষমেশ তারা প্রাণ বাঁচাতে ভারতীয়দের কাছেই লজ্জাজনক আত্মসমর্পণ করেছিল।
কিন্তু আমাদের দেশের মন্ত্রীরা দাবি করলো যে, “যারা আমাদের ভারতের দালাল বলেন, তারা আসলে আসল ইতিহাসটাই জানেন না। ইন্দিরা গান্ধী না থাকলে বাংলাদেশ ৯ বছরেও স্বাধীন হতো না।”
কিন্তু এমআর আখতার মুকুলদের মতো প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্যই সাক্ষ্য দিচ্ছে, পাকিস্তানীদের পতনের কৃতিত্ব মুক্তিযোদ্ধাদেরই। ভারতই সুযোগ বুঝে বিজয়ের মাত্র দশদিন আগে ৬ই ডিসেম্বরে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছিল, মুক্তিযুদ্ধের কৃতিত্বে ভাগ বসাতে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার সময়ে এই অঞ্চলে কোনো রাষ্ট্র গঠিত হয়নি, কোনো আইনকানুন জারি হয়নি তখনো। তাই মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে পাকিস্তানীদের আত্মসমর্পণের অর্থই ছিল নিশ্চিত মৃত্যু। বিপরীতে ভারত রাষ্ট্র হবার কারণে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে কিছু করার সামর্থ্য রাখতো না। তাই পাকী সেনারা ভারতের কাছেই আত্মসমর্পণ করেছিল।
এখন আমলা-কামলারা নিজেদের দালাল দাবি করলেও আমরা বলবো, তারা হলো ক্রীতদাস। কারণ দালাল কখনো নিজেকে দালাল বলে দাবি করবে না, সেক্ষেত্রে তার দালালির মুখোশটিই যে খুলে যাবে! তাদের মতো ক্রীতদাসদের ইতিহাস জানার দরকার হয় না, মনিবের চর্বিতচর্বণই তার জন্য যথেষ্ট।
সিপাহী বিদ্রোহের সময়ে ব্রিটিশদের ক্রীতদাস সম্প্রদায়ের মুখপাত্র কবি ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত লিখেছিল-
“ভারতের প্রিয়পুত্র হিন্দু সমুদয়/
মুক্তমুখে সবে বল ব্রিটিশের জয়”।
তবে বর্তমান বাস্তবতায় ছত্র দুটি নিম্নোক্ত ভাবে বলা যেতে পারে-
ভারতের ক্রীতদাস সমুদয়
মুক্তমুখে সবে বল ইন্দিরার জয়!

Views All Time
3
Views Today
4
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে