৯৮ ভাগ মুসলমানদের দেশের মুসলিম সরকার হিসেবে সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনের জন্য সরকারের কোন উদ্যোগ আছে কি?


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘(আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) আপনি বলুন, মহান আল্লাহ পাক উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ফদ্বল মুবারক ও মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র রহমত মুবারক অর্থাৎ আমাকে পাওয়ার কারণে তোমাদের উচিত ঈদ বা খুশি প্রকাশ করা।’ সুবহানাল্লাহ!
মুসলমানদের দেশের মধ্যে সবচেয়ে প্রিয় ও শ্রেষ্ঠ একটি ঈমানী ইবাদত হলো ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, আর যে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ঈদ কিছুদিন পরই আমাদের মাঝে এসে যাবেন। তাই এজন্য আমাদের সকলের উচিৎ এ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র দিনটি পালনের জন্য জোরে শোরে ও সার্বিকভাবে প্রস্তুতি গ্রহণ করা। আমরা দেখি যে, আমাদের দেশে মাত্র দেড় পারসন হিন্দুদের জন্য সরকারের অনুদান, সাহায্য সহযোগিতা, নিরাপত্তা দেয়ার কোন শেষ নেই, পাশাপাশি দেখা যায় সরকারের কত উক্তি ভক্তি শ্রদ্ধা এ পূজার জন্য থাকে, নাউযুবিল্লাহ! এছাড়া হারাম খেলাধূলার জন্যও সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগ, ইচ্ছা, আকাঙ্খা ও অকল্পনীয় বাজেট থাকে। যা অপচয় ছাড়া কিছুই নয়।
এখন জনগণের জানার বিষয় হলো ৯৮ ভাগ মুসলমানদের দেশে আমার, আমাদের এবং সরকার সহ সমস্ত শাসক গোষ্ঠীর সবার প্রাণের নবী নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার জন্য খুশি প্রকাশ করার মহান উপলক্ষ ও জীবনের শ্রেষ্ঠ আমল হাছিলের মহান মাধ্যম আসন্ন পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ তথা পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্পর্কে সরকারের পক্ষ থেকে কোন উদ্যোগ, ইচ্ছা, বাজেট আছে কি?
এবং এ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র দিবসটি যথাযথভাবে তা’যীম তাকরীমের সহিত পালন করার ক্ষেত্রে সরকারের কি ভুমিকা রয়েছে? কি ইচ্ছা আখাঙ্খা রয়েছে আমরা দেশ ও জাতি জানতে চাই!
আদৌ কি মুসলিম সরকার হিসেবে ঈমানী দায়িত্বে সরকার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র দিবসটি জওক-শওকের সহিত পালনের জন্য কোন বাজেট বা উদ্যোগ নির্ধারণ করছেন কি?

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে