৯৮ ভাগ মুসলমানের পাঠ্যপুস্ত ইসলামী শিক্ষার বিপরীতে নাস্তিক্যবাদের শিক্ষায় পরিপূর্ণ!


বাংলাদেশ বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম দেশ। কারণ এদেশের মোট জনগোষ্ঠীর ৯৮ ভাগ মুসলমান। এছাড়া আমাদের রাষ্ট্রধর্মও ইসলাম। আমাদের সংবিধানে ধর্ম হিসেবে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে এবং সম্প্রদায় হিসেবে মুসলিম সম্প্রদায়কে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। যেহেতু বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক দেশ এবং গণতন্ত্রে অধিকাংশ জনগোষ্ঠীর প্রাধান্য রয়েছে। সঙ্গতকারণেই এদেশের সিলেবাসে, শিক্ষা ব্যবস্থায় মুসলমানদের ভাবধারা থাকবে, দ্বীন ইসলামী শিক্ষায় পরিপূর্ণ থাকবে- এটাই স্বাভাবিক ছিলো। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমাদের দেশে বাস্তবতা তার বিপরীত। আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় পাঠ্যপুস্তকের প্রতিটি বইয়ে ইসলামী শিক্ষার কোনো ছোঁয়াও নেই; বরং নাস্তিক্যবাদ, শিরকী মতবাদে পরিপূর্ণ। মুসলমানকে কিভাবে কাফিরদের সাথে একত্রিত করে দেয়া যায় সেভাবেই বইগুলো তৈরি করা হয়েছে। যে শিক্ষা অর্জন করলে একজন মুসলমান শিশুর অন্তরে শৈশব থেকেই ধর্মহীনতা, অন্য ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়বে এরূপ শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত করে দেয়া হয়েছে বইগুলোতে। ইসলামী কোনো প্রসঙ্গ থাকলেও সেখানে মুসলমানদের খাটো করে দেখানো হয়েছে, হীন ও নীচ জাতি হিসেবে দেখানো হয়েছে। নাউযুবিল্লাহ! মুসলিম দেশের সিলেবাস নিয়ে এসব ষড়যন্ত্রের সাথে জড়িত বামপন্থী শিক্ষামন্ত্রী, এনসিটিবি’র চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সর্বোচ্চ শাস্তির আওতায় আনতে হবে।
Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে