৯ প্রকার লোকের লাইলাতুন নিছফি মিন শা’বান বা সম্মানিত বরাত উনার রাতের ফযীলত নছীব হবে না


সীমাহীন রহমত, বরকত, সাকীনা, মাগফিরাত নাযিলের রাত লাইলাতুন নিছফি মিং শা’বান তথা শবে বরাত। এ মহিমান্বিত রাতে যারাই ক্ষমাপ্রার্থনা করবে সবাইকে ক্ষমা করে দেয়া হবে। শুধু তাই নয়, এ মহিমান্বিত রাতে যে যা চাইবে তাকে তা দিয়ে দেয়া হবে। তবে ৯ প্রকার লোক এ মহিমান্বিত রাত উনার মধ্যে নাযিলকৃত নিয়ামত সমূহ থেকে বঞ্চিত থাকবে। উক্ত ৯ প্রকার লোক হচ্ছে- (১) জাদুকর, গনক, জ্যোতিষ। (২) মদ, ভাং, আফিম ইত্যাদি মাদকদ্রব্য সেবনকারী। (৩) ব্যভিচারী-ব্যভিচারিণী। (৪) আত্মীয়তার সম্পর্ক ছিন্নকারী। (৫) পিতা-মাতার অবাধ্য সন্তান। (৬) চুগোলখোর। (৭) ঐ বখীল যে তার কোন মুসলমান ভাইয়ের সাথে শরীয়ত সম্মত কারণ ব্যতিরেকে তিন দিনের বেশি কথা বলা বন্ধ রেখেছে। (৮) খুনি বা হত্যাকারী। (৯) ছবি অঙ্কনকারী।
তবে হ্যাঁ, উক্ত ব্যক্তিরাও যদি তাদের কৃত অপরাধ থেকে খালিছভাবে তওবা-ইস্তিগফার করে তাহলে তারাও উক্ত মহিমান্বিত রাত উনার মধ্যে নাযিলকৃত নিয়ামতসমূহের হিস্সা লাভ করতে পারবে। কেননা মহান আল্লাহ পাক তিনি অত্যন্ত ক্ষমাশীল ও অত্যন্ত দয়ালু। তিনি ঘোষণা মুবারক করেছেন-
ان رحمتى سبقت على غضبى
অর্থ: নিশ্চয় আমার রহমত আমার গযবের উপর প্রাধান্য পেয়েছে। সুবহানাল্লাহ!
তাই, মহান আল্লাহ পাক উনার রহমত মুবারক পাওয়ার আশা-আকাঙ্খা নিয়ে উক্ত বরকতপূর্ণ রাতে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হবে সেই সাথে সমস্ত দুআ-আরজি প্রাথর্না করতে হবে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে