সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

প্রশ্নঃ দোয়ার গুরুত্ব, মাহাত্ম্য ও নিয়ম কি? (২য় পর্ব)


১ম পর্বে যেতে হলে ক্লিক করুন  [১ম পর্ব]
——————————————————————–
এই পর্বে আমারা যা যা জানবোঃ
১) তাকদীরের উপর দোয়ার প্রভাব।
২) দোয়াকারীর প্রতি আল্লাহর সাহায্য।
৩) দোয়া করে আল্লাহর রহমত লাভ অন্যথায় আল্লাহর অসন্তুষ্টি প্রাপ্তি।
৪) কোন দোয়া কবুল হয় না?

عن سلمان الفرسي رصي الله عنه قل قل رسول الله صلي الله عليه و سلم لا
يرد القضاء الا الد عاه ولا يزيد العمر الا البر-ترمذي

হযরত সালমান ফার্‌সী (রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু) বলেন, রাসূলুল্লাহ (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন, তাকদীরকে ফিরাতে পারে না দোয়া ছাড়া অপর কিছু এবং বয়স বাড়াতে পারে না নেকী ছাড়া অপর কিছু। (তিরমিজি)

عن ابن عمر رضي الله عنه قل قل رسول الله صلي الله عليه و سلم ان الد عاء ينفع مما نزل ومما لم ينزل فعليكم عباد الله بالد عاه-رواه الترمذي

হযরত ইবনে ওমর (রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু) বলেন রাসূলুল্লাহ (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন যে ব্যক্তি কোন দোয়া করে, নিশ্চয়ই আল্লাহ তাকে সে যা চায় তা দেন অথবা তাঁর অনুরূপ কোন বিপদকে তাঁর হতে দূরে রাখেন, যতক্ষন না সে দোয়া করে কোন গোনাহর কাজের অথবা আত্মীয়তার বন্ধন ছেদের। (তিরমিজি)

হযরত জাবের বিন মাসউদ (রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু) বলেন, নবীজী বলেছেন, আল্লাহর নিকট তাঁর অনুগ্রহ চাও। কারন তিনি ভালবাসেন তাঁর নিকট কিছু চাওয়াকে। আর বিপদ হতে মুক্তির অপেক্ষা করা শ্রেষ্ঠ এবাদত। (তিরমিজি)
ব্যাখ্যাঃ মুক্তির অপেক্ষা করা অর্থাৎ কারো নিকট অভিযোগ না করে ধৈর্যধারণ করা এবং আল্লাহর নিকট মুক্তির প্রার্থনা করা।

আবু হুরাইরা (রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু) বলেন, নবীজী বলেছেন, যে আল্লাহর নিকট কিছু চায় না আল্লাহ তাঁর উপর রাগ করেন। (তিরমিজি)
ব্যাখ্যাঃ শব্দ দ্বারা চাওয়াএবং অন্তর দ্বারা চাওয়া উভয় এতে শামিল। মানু্যের নিকট চাইলে রাগ করে, আল্লাহর নিকট না চাইলে রাগ করেন। আল্লাহ কত বড় দাতা ও দয়ালু, হে আলাহ! আমাদের গোনাহ মাফ ও রহম কর।

অন্য বর্ণনায় নবী (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন, যার জন্য দোয়ার দরজা খোলা, তাঁর জন্য রহমতের দরজা খোলা, তাঁর জন্য রহমতের দরজাই খোলা হয়েছে। (বাংলা মেশকাত)

আবু হুরাইরা (রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু) বলেন, নবী কারীম (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন, যে ব্যক্তি ভালবাসে যে, দুঃখের সময় আলাহ দোয়া শুনবেন, সে যেন সুখের সময় অধিক হারে দোয়া করে। (তিরমিজি)

আবু হুরাইরা (রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু) বলেন, নবী কারীম (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন, দোয়া কবুলের বিশ্বাসের সাথে দোয়া প্রার্থনা কর তোমরা, আর জেনে রাখ যে, আল্লাহ অমনোযোগী, অবহেলাকারী অন্তরের (কলবের) দোয়া কবুল করেন না। (তিরমিজি)

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে