পবিত্র মীলাদ শরীফ ও পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ উনাদের সঠিক ও গ্রহণযোগ্য ফায়ছালা (২০৫)।


ফতওয়া বিভাগ : গবেষণা কেন্দ্র- ‘মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ’,রাজারবাগ শরীফ, ঢাকা
তৃতীয় ভাগ- পবিত্র মীলাদ শরীফ ও পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ উনার আহকাম
সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে পবিত্র মীলাদ শরীফ ও পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ উনার বর্তমান তরতীব:
পবিত্র মীলাদ শরীফ মজলিস উনার মধ্যে যা কিছু করা হয়; তার সবই সম্মানিত ইসলামী শরীয়তসম্মত, কোনোটাই সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার খিলাফ নয়:
নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার তা’যীমার্থে
পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ করা খাছ সুন্নত: পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ উনার প্রকারভেদ ও আহকাম :

সুন্নত ক্বিয়াম শরীফ:
নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম
উনার ছানা-ছিফত মুবারক দায়িমীভাবে করার ব্যাপারে পবিত্র কুরআন শরীফ ও
পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের নির্দেশ মুবারক

পবিত্র কুরআন শরীফ উনার পবিত্র সূরা ফাতহ শরীফ উনার ৯ নম্বর পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “স্বয়ং খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি সকল বান্দা-বান্দীদেরকে আদেশ মুবারক করেন যে, আমি আমার প্রিয়তম রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে (তোমাদের নিকট) প্রেরণ করেছি সাক্ষ্যদানকারী, সুসংবাদ দানকারী এবং সতর্ককারী বা ভয়প্রদর্শনকারী হিসেবে। উদ্দেশ্য হলো খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি ঈমান আনবে এবং উনার যিনি প্রিয়তম রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি ঈমান আনবে এবং উনার খিদমতের আঞ্জাম দিবে এবং উনাকে যথাযথ সম্মান করবে এবং উনার ছানা-ছিফত মুবারক করবে সকাল-সন্ধ্যা অর্থাৎ দায়িমীভাবে।”
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার ছহীহ ও প্রসিদ্ধ কিতাব তিরমিযী শরীফ ও মিশকাত শরীফ উনাদের মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত উবাই ইবনে কা’ব রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি একদা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার খিদমত মুবারকে উপস্থিত হয়ে জিজ্ঞাসা করলেন, ইয়া রসূলাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনার শান মুবারক-এ আমি বেশি বেশি দুরূদ শরীফ পাঠ করি; তারপরও কতটুকু বা কি পরিমাণ সময় অর্থাৎ চার ভাগের একভাগ সময় অথবা অর্ধেক সময় অথবা তিনভাগের দুই ভাগ সময় অথবা সম্পূর্ণ সময় আপনার প্রতি দুরূদ শরীফ অর্থাৎ আপনার ছানা-ছিফত করার নির্দেশ মুবারক আমাকে দান করেন? জাওয়াবে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি বললেন, আপনার পুরো সময় দুরূদ শরীফ পাঠের জন্য নির্দিষ্ট করলে আপনার মাকছূদ পূর্ণ হবে এবং আপনার গুনাহ মাফ করা হবে। বর্ণনাকারী ছাহাবী হযরত উবাই ইবনে কা’ব রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, আমি আমার জীবনের সম্পূর্ণ সময় আপনার দুরূদ শরীফ পাঠ বা ছানা-ছিফত মুবারক করার জন্য নির্দিষ্ট করবো অর্থাৎ করে নিলাম। সুবহানাল্লাহ!

-আহমদ আবু খুবাইব।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে