আবুল ওয়াক্ত -blog


...


 


প্রধান বিচারক এসকে সিনহা নিরপেক্ষ নয়, বরং সাম্প্রদায়িক পক্ষপাতি


প্রধানবিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার এসকে সিনহার উচিত ছিলো নিরপেক্ষ থাকা। কিন্তু দেখা যায়, এসকে সিনহা বার বার তার সাম্প্রদায়িক ও পক্ষপাতি দৃষ্টিভঙ্গী প্রকাশ করতে থাকে। যেমন: ১) তিনি মন্দিরে গিয়ে বলেন- তিনি হিন্দুদের দেবোত্তর সম্পত্তি উদ্ধারে কাজ করছেন। (http://goo.gl/JpoKO1) ২) হাইকোর্টে অফিস



মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় কি ছিলো? ধর্মনিরপেক্ষতা? নাকি শেখ মুজিবের- ‘দেশকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাআল্লাহ’


যে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা’র ধোঁয়া উড়িয়ে সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম উঠিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র চলছে, সেই মুক্তিযুদ্ধের বিজয় এসেছিলো শেখ মুজিবের ‘ইনশাআল্লাহ’ বলার কারণেই। তাহলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ আসলো কোথা থেকে? ৭১’এর মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ‘ধর্মনিরপেক্ষতাবাদ’ ছিলো? নাকি ঈমান দীপ্ত চেতনা ছিলো? ইতিহাস



রাষ্ট্রধর্ম থেকে ইসলাম তুলে দিলে কি হতে পারে? তুরস্কের কামাল পাশা কি করেছিলো? ইতিহাস থেকে শিক্ষা


অনেকেই হয়ত এখন বুঝতে পারছেন না, সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম তুলে দেওয়া হলে কি পরিণতি ঘটতে পারে বাংলাদেশের। এ বিষয়টি বুঝতে হলে আপনাকে তুরষ্কের ইতিহাস সম্পর্কে জানা প্রয়োজন। তুরষ্কে আগে ইসলামী খিলাফত ব্যবস্থা। তবে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর সেটা তুলে দেওয়া হয়।



রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল হলে দেশকে আর মুসলিম দেশ বলা যাবেনা; কাফির রাষ্ট্রে পরিণত হবে বাংলাদেশ


খেলায় মগ্ন বাংলাদেশ। যেমনটা নেশায় বুদ হয়ে থাকে মাদকসেবীরা। আর ওদিকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল করার জোর প্রস্তুতি চলছে বিচারবিভাগে। আপনি কি জানেন, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল হলে কি হতে পারে? আর আপনার অবস্থান-ই বা কোথায় যাবে? বাংলাদেশে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল মানেই বাংলাদেশকে



শিক্ষাব্যবস্থার গোঁমড় ফাঁস করে দিলেন ঢাবি’র শিক্ষাবিদ


আরটিভি লাইভ টক শো’তে বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে ষড়যন্ত্র ও রহস্যের দ্বার উন্মোচন করলেন  বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক। বক্তব্যে তিনি যে তথ্যগুলো তুলে ধরেন তার চৌম্বক অংশ তুলে ধরা হলো- ১) বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে র্দীর্ঘদিন ধরে চক্রান্ত চলছে।



যে আরএসএস মুসলমানদের ধ্বংস করার ডাক দিয়েছে তাদেরই রোড মার্চে ফুল ছিটিয়েছিলো মুসলমানরা


ভারতে মুসলমানরা মাইর খাবে না তো কি খাবে? উগ্র হিন্দুত্ববাদী দল আরএসএস বাহিনী যখন মুসলমান নিধন করার প্রশিক্ষণ হিসেবে রাস্তায় মার্চ করে তখন ওই নামধারী মুসলমানরা তাদের রাস্তায় ফুল ছিটায়। কাপুরুষ আর কাকে বলে? কথায় বলে- ‘মাইরতো খাবি খাবিই, মাইরের দামও



সব মসজিদে সিসি ক্যামেরা বসানো হবে!!


হিন্দুদের মন্দিরে গিয়ে সাঈদ খোকন ঘোষণা দিলো ঢাকার সব মসজিদে সিসি ক্যামেরা বসানো হবে। কোন দেশে আছি? বাংলাদেশে না ভারতে? নাকি আমেরিকায়? যবন ম্লেচ্ছ হিন্দুরা মুসলমানদের সন্ত্রাসী মনে করে। কিন্তু সাঈদ খোকন কিভাবে এ ঘোষণা দিলো? যেখানে ইসলামী শরীয়ায় ছবি তোলাই হারাম,



আমিরুল মু’মিনীন হযরত উছমান যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম উনার কিছু নছীহত মুবারক


(১) চাকচিক্য পোশাকের লোভ যাদের অন্তরে, তাদের কাফনের কথা স্মরণ করা উচিত। জাঁকজমক বাড়ির আকাঙ্খা যাদের অন্তরে, তাদের উচিত কবরের ছোট্ট গর্তটির কথা স্মরণ করা। যারা সবসময় সুস্বাদু খাবারের লোভ করে তাদের কর্তব্য হচ্ছে- নিজের লাশটি যে শেষ পর্যন্ত কীটের খোরাক



তালাকদাতা ও তালাকপ্রার্থিনী উভয়ের প্রতি মহান আল্লাহ পাক তিনি অসন্তুষ্ট


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- يايها النبى اذا طلقتم النساء فطلقوهن لعدتهن واحصوا العدة واتقوا الله ربكم. অর্থ: হে নবী (ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি উম্মতকে বলুন) যখন তোমরা আহলিয়াদেরকে (স্ত্রীদেরকে) তালাক দিবে তখন তাদেরকে ইদ্দতের মধ্যে তালাক দিবে।



আপনি কি জানেন- মুসলমানদের মধ্যে খেলাধুলার প্রচলন কিভাবে হলো?


মুসলমানদের মধ্যে ব্যাট-বল নিয়ে খেলাধুলায় মেতে থাকার চর্চা ছিলো না। স্বর্ণযুগে মুসলমানরা জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চা করতেন আর অবসর সময় অতিবাহিত করেতন যুদ্ধবিদ্যা চর্চার মাধ্যমে। তাহেলই খেলাধুলার প্রচলন কিভাবে এলো? যামানার মহান মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, হাবীবে আ’যম, গাউসুল আ’যম, রাহবারে আ’যম, আওলাদে রসূল