ফরাজী ভাই -blog


...


 


সকল মুসলমানদের উচিত- রাজারবাগ দরবার শরীফ উনার মাঝে অবস্থিত ‘আন্তর্জাতিক সুন্নত প্রচার কেন্দ্রে’ এসে পবিত্র সুন্নত মুবারক সম্পর্কে জানা


যিনি খলিক যিনি মালিক যিনি রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র সুন্নত মুবারক পালনের গুরুত্ব ও তাৎপর্য সম্পর্কে উনার পবিত্র ও সম্মানিততম কালাম পাক উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- قُلْ إِن كُنتُمْ تُحِبُّونَ اللّهَ فَاتَّبِعُونِي يُحْبِبْكُمُ اللّهُ وَيَغْفِرْ لَكُمْ ذُنُوبَكُمْ وَاللّهُ



পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার অন্যতম উত্তম আমল; মুসলমানদের জন্য খাছভাবে দোয়া করা আর কাফিরদের জন্য কঠিন বদদোয়া করা


সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার মাহফিলে যে কোন দোয়া নিঃসন্দেহে মকবুল। এজন্য মুসলমানদের মুক্তির জন্য এবং বিপদ থেকে হিফায়েতর জন্য বিশেষ দোয়া করা কর্তব্য। আর সকল সন্ত্রাসী কাফির মুশরিকদের বিরুদ্ধে কঠিন বদদোয়া করাও ঈমানের দাবী। মুসলমানদেরকে নিয়ে কাফির মুশরকিদের ষড়যন্ত্র নতুন কোন



বুলডোজার দিয়ে উইঘুর মুসলিমদের মসজিদ ভাঙছে চীন


জিনজিয়াং প্রদেশে বসবাসরত মুসলমানরা শত শত বছর ধরে সেখানে বসবাস করছে। বিশেষ করে মুসলিম উইঘুর সম্প্রদায়। বসবাসের পাশাপাশি আবার দীর্ঘদিন ধরেও চীনের কট্টর মুসলিমবিদ্বেষী সরকার উইঘুর মুসলিমদের উপর চালাচ্ছে অবর্ননীয় অত্যাচার নির্যাতন। ১০ লাখেরও বেশি উইঘুর মুসলিমকে আটক রেখেছে বন্দী শিবিরে।



সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করা কুল-কায়িনাতের সর্বশ্রেষ্ঠ ইবাদত


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, يَااَيُّهَا النَّاسُ قَدْ جَاءَتْكُمْ مَوْعِظَةٌ مّـِنْ رَّبّـِكُمْ وَشِفَاء لّـِمَا فِى الصُّدُوْرِ وَهُدًى وَّرَحْمَةٌ لّـِلْمُؤْمِنِيْنَ. قُلْ بِفَضْلِ اللهِ وَبِرَحْمَتِهٖ فَبِذٰلِكَ فَلْيَفْرَحُوْا هُوَ خَيْرٌ مّـِمَّا يَـجْمَعُوْنَ. অর্থ: “হে মানুষেরা! হে সমস্ত জিন-ইনসান, কায়িনাতবাসী!



খাবার খাওয়ার আদবঃ


খাবার খাওয়ার মুবারক সুন্নতী তরতীব সমূহ: ==================== ১.খয়েরী রংয়ের দস্তরখানায় প্লেট রেখে খাবার খাওয়া। ২.কাঠের প্লেটে খাবার খাওয়া। ৩.খাবারের শুরুতে বিসমিল্লাহ শরীফ পাঠ করা। ৪.খাবারের শুরুতে লবণ খাওয়া। ৫.ডান হাত দিয়ে খাবার খাওয়া। ৬.নামাযের সূরতে বসে খাবার খাওয়া। ৬.মাথায় কাপড় দিয়ে



জাতিসংঘ সংস্কারে ১ লাখ ডলার অনুদান দেবে বাংলাদেশ


টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) অর্জনে সদস্য দেশগুলোকে সহায়তায় জাতিসংঘ সংস্কারে মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের প্রস্তাবনা বাস্তবায়নে বাংলাদেশ এক লাখ মার্কিন ডলার অনুদান দেবে। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম গতকাল জুমুয়াবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত এক এসডিজি সম্মেলনে বলে, জাতিসংঘের সাথে আমাদের



কোন অজুহাতেই পবিত্র মসজিদ উচ্ছেদ চলবেনা, বরং বেশি বেশি মসজিদ প্রতিষ্ঠার কোশেশ করতে হবে


মুসলমানরা আজ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র মসজিদ মুবারক উনার সেই গুরুত্ব-তাৎপর্য, ফাযায়িল-ফযীলত ও বুযূর্গী-সম্মান মুবারক উনার কথা ভুলে গেছে বিধায়, তাদের এই করুণ অবস্থা! না‘ঊযুবিল্লাহ! তারা সারা পৃথিবীতে লাঞ্ছিত হচ্ছে, অপমাণিত হচ্ছে, পর্যদুস্ত হচ্ছে, কাফির-মুশরিকদের হাতে মার খাচ্ছে। না‘ঊযুবিল্লাহ! তাই সম্মানিত মুসলমান



পবিত্র কুরবানীতেও ইয়াতিম-মিসকিনদের হক্ব রয়েছে; আর ‘মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ ইয়াতিমখানা ও লিল্লাহ বোর্ডিং’ হলো সেই হক্ব আদায়ের সর্বোত্তম ও


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম সব মানুষের সাথে সদাচরণের শিক্ষা দিয়েছেন। বিশেষ করে সমাজের অবহেলিত দুঃস্থ, অসহায়, ইয়াতিম-মিসকিন এবং মজলুম মানুষের প্রতি বিত্তবানদের রয়েছে অনেক দায়িত্ব ও কর্তব্য। সব অসহায় মানুষকে দান ও সহযোগীতার প্রতিও অধিক গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। মহান আল্লাহ পাক তিনি



ছবির কারণেই রহমতশূন্য হতে হচ্ছে


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হাজার হাজার পবিত্র হাদীছ শরীফ দ্বারা ছবি তোলা, আঁকা, রাখাকে হারাম করেছেন। অথচ দেখা যাচ্ছে সারা পৃথিবীতে



এসব অপকর্ম চললে তাহলেতো চারুকলা ইন্সটিটিউট বন্ধ করে দেয়া উচিত


চারুকলা ইন্সটিটিউট। ৯৮ ভাগ মুসলিম অধ্যুষিত দেশের মুসলমানের টাকায় পরিচালিত এ প্রতিষ্ঠানের মূল কাজ কি? মূল কাজ হলো- বাঙালি মুসলমানদের তাহযীব-তমাদ্দুন (মুসলিম সংস্কৃতি) তুলে ধরা। কিন্তু বাস্তব প্রেক্ষাপটে আমরা কী দেখতে পাই? চারুকলায় এবার মহাধূমধামে আয়োজিত হয়েছে হোলি পূজা। আয়োজকদের ভাষায়-



ক্বলব ও রক্তকণিকা থেকে পাপের ছাপ উঠাবেন কিভাবে?


কাপড়ে দাগ পড়লে আমরা কতো না চেষ্টা করি সেই দাগ পরিষ্কার করতে। সাবান দিয়ে পরিষ্কার না করতে পারলে নানা মেডিসিনের ব্যবহার করি। চেষ্টার কোনো ঘাটতি থাকে না। কিন্তু পাপের দাগ যে মানুষের ক্বলবে ও রক্তকণিকায় পড়ে সে ব্যাপারে মানুষ উদাসীন কেন?



হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের আগমন এবং বিদায় উভয় দিনই উম্মতের জন্য ঈদের দিন


অনেকে বলে থাকে- নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যেদিন আগমন করেছেন আবার সেই দিন বিদায়ও নিয়েছেন। তাই আমরা কি করে এ দিন খুশি প্রকাশ করতে পারি। মূলত, তারা না জানার কারণে তা বলে থাকে। পবিত্র হাদীছ