পেসমেকার -blog


...


 


পবিত্র ছফর শরীফ মাস অশুভ নয় এবং কুলক্ষণের প্রতীক নয়


পবিত্র ছফর শরীফ মাস মহান আল্লাহ পাক উনার মনোনীত খাছ মাস। এ মাস অশুভ ও কুলক্ষণে নয়। কাফির-মুশরিকরা এ মাসকে অশুভ ও কুলক্ষণের প্রতীক মনে করে থাকে। আইয়ামে জাহিলিয়াতের যুগে ‘পবিত্র ছফর শরীফ’ মাসকে কাফির-মুশরিকরা অশুভ ও কুলক্ষণে মনে করতো। এ



অশুভ বা কুলক্ষণ বিশ্বাস করা কুফরী


ফক্বীহুল উম্মত হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার থেকে বর্ণনা করেন। মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,



ব্রিটিশ দালাল, ইসলামবিদ্বেষী ও মুসলিম অধ্যুষিত পূর্ববঙ্গ প্রদেশ সৃষ্টির বিরোধিতাকারী রবীন্দ্রের আলোচনা এদেশে হয় কীভাবে?


  (১) রবীন্দ্রের দাদা দ্বারকানাথ ছিল দেড়শ টাকা বেতনের ইংরেজ ট্রেভর প্লাউডেনের চাকর। দ্বারকানাথ ধনী হয়েছিল পতিতালয়ের ব্যবসার দ্বারা। রবীন্দ্রের দাদার তেতাল্লিশটা পতিতালয় ছিল কলকাতাতেই। (তথ্যসূত্র: কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকা, ২৮শে কার্তিক-১৪০৬, রঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়) (২) কয়েক পুরুষ ধরে কৃষকদের উপর পীড়ন চালিয়েছে



দাঁড়িয়ে পানি পানে স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ে


  আমরা জানি, বসে পানি পান করা সুন্নত এবং মুসলমান তাই-ই কোশেশ করেন। এই বসে পান করা সুন্নতের মাঝেই রয়েছে অসীম ফযীলত; যা বিজ্ঞান স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছে। কারণ দাঁড়িয়ে পানি পানে অনেক অসুবিধা রয়েছে। দাঁড়িয়ে পানি পানের ক্ষতিকর দিক- (১).



ধর্মযাজক সেজে পাহাড়কে অগ্নিকুণ্ডে রূপান্তর করছে বুড্ডিস্ট সংগঠন ৯৬৯-এর সন্ত্রাসীরা


সবুজে ঘেরা পার্বত্য এলাকায় নতুন দাবানলের আভাস পাওয়া যাচ্ছে। এখানে মিয়ানমারের উগ্রপন্থী একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ তাদের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছে। সরকারের খাস জমি দখল করে বিশাল এলাকা নিয়ে গড়ে তুলছে ‘ভাবনা কেন্দ্র’ বা কিয়াং। ভাবনা কেন্দ্রে বসেই মিয়ানমারের উগ্রবাদী বৌদ্ধ সন্ত্রাসী গোষ্ঠী



প্রথম আলো পত্রিকায় নবজাতককে গোসল করানো নিয়ে কাল্পনিক তথ্য ও মিথ্যাচারের জবাব


আব্দুল কাইয়ুম নামক এক সাংবাদিক (হলুদ সাংবাদিক) ‘দৈনিক প্রথম আলো’ নামক ইসলামবিদ্বেষী পত্রিকায় গত ৬ই সেপ্টেম্বর-২০১৭ তারিখে স্বাস্থ্য বিভাগে “নবজাতককে তিন দিন গোসল করাবেন না” শিরনামে জিহালতীপূর্ণ একটা লেখা লিখেছে। সে সেখানে উল্লেখ করেছে- “তিন দিন গোসল না করানোর বিষয়ে আসি।



প্রথম আলো পত্রিকায় বাচ্চার গোসল নিয়ে মিথ্যাচার এবং তার জবাব।


আব্দুল কাইয়ুম নামক এক সাংবাদিক প্রথম আলো পত্রিকায় গত ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখে স্বাস্থ্য বিভাগে “নবজাতককে তিন দিন গোসল করাবেন না” নামে একটা লিখা লিখে।সে সেখানে উল্লেখ করে “তিন দিন গোসল না করানোর বিষয়ে আসি। আমরা অনেকেই এটা জানতাম না বা



উচ্চরক্তচাপ-হার্টের রোগীরা খেতে পারবেন গরুর গোশত


গরুর গোশত পছন্দ করেন না এমন মানুষের সংখ্যা খুবই অপ্রতুল। কোরবানির ঈদ এলেই সব পরিবারের খাবার তালিকায় থাকে গরুর গোশত । কিন্তু অনেকের উচ্চরক্তচাপ, হার্ট ও এলার্জি থাকার কারণে মনে করছেন আপনি গরুর গোশত খেতে পারবেন না। কিন্তু না আপনিও খাদ্য



কুরবানীর টাকা দান করা নিয়ে নাস্তিকদের অপপ্রচারের জওয়াব


নাস্তিক ও ইসলামবিদ্বেষীরা বলে থাকে কুরবানীর টাকা পশুর পিছনে খরচ না করে দান করে দেয়ার জন্য। নাউযুবিল্লাহ! নাস্তিক ও ইসলামবিদ্বেষীদের অজ্ঞতা, মূর্খতা তাদের বিবেক, আক্বলকে সংকীর্ণ করে দিয়েছে। কুরবানীর উদ্দেশ্যটা বাণিজ্যিক না হলেও কর্মসংস্থান এবং গতিশীলতা তৈরির মাধ্যমে অর্থনীতির পালে সুবাতাস



অপরিশোধিত তেল বিক্রি করে সৌদি আরবের যা রোজগার হয়, তার থেকেও বেশি আয় হয় হজ থেকে।


পুরো দুনিয়া থেকে লাখ লাখ মুসলমান প্রতি বছর হজ করতে সৌদি আরবে যান। ওই সময়টাতে সৌদি আরবের আর্থিক লেনদেনের হার অনেক বেড়ে যায়। অনেকের মনেই এই প্রশ্নটা আসে যে, সৌদি আরবে যারা হজ আর উমরাহ করতে যান, তাদের কাছ থেকে দেশটি



বাল্য বিয়ে করা যাবেনা কিন্তু অল্প বয়সে অবৈধ সম্পর্কের ফল গর্ভপাত করা যাবে!!!


রাজধানীর মিরপুর, শ্যামলী, শান্তিনগর, যাত্রাবাড়ী এলাকার কয়েকটি স্থানে গজিয়ে ওঠা এক কামরার ক্লিনিকে অবিবাহিত গর্ভপাতের সংখ্যা বেশি এবং এ নারীদের বয়স ১৭ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। গত দশ বছরের তুলনায় ২০১৪ থেকে গর্ভপাত করতে আসা কমবয়সী অবিবাহিত নারীদের সংখ্যা বেশি। শুধু



বাল্য বিয়ে করা যাবেনা কিন্তু অল্প বয়সে অবৈধ সম্পর্কের ফসল গর্ভপাত করা যাবে!!!


====== রাজধানীর মিরপুর, শ্যামলী, শান্তিনগর, যাত্রাবাড়ী এলাকার কয়েকটি স্থানে গজিয়ে ওঠা এক কামরার ক্লিনিকে অবিবাহিত গর্ভপাতের সংখ্যা বেশি এবং এ নারীদের বয়স ১৭ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। গত দশ বছরের তুলনায় ২০১৪ থেকে গর্ভপাত করতে আসা কমবয়সী অবিবাহিত নারীদের সংখ্যা বেশি।