পেসমেকার -blog


...


 


যেসকল আইনজীবি বাংলাদেশে বাস করে ভারতীয় চ্যানেলের পক্ষে ওকালতি করেছে তারা দেশপ্রেমহীন, গাদ্দার


গত ২৩ জানুয়ারী ভারতীয় চ্যানেল ষ্টার প্লাস, ষ্টার জলসা, জি বাংলা বন্ধে রিটের শুনানী হয়। শুনানীতে ভারতীয় চ্যানেলের পক্ষের আইনজীবিরা নির্লজ্জভাবে ভারতীয় চ্যানেলের পক্ষে এমনকি ভারতের পক্ষে কথা বলেছে! রিটকারীর পক্ষে আইনজীবী মো. একলাছ উদ্দিন ভূইয়া (বন্ধের পক্ষে) , রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুর্টি



শত শত প্রান হরণকারী ভারতীয় চ্যানেল বন্ধ করা জরুরী নাকি মানুষের জীবন রক্ষা করা জরুরী?


সমাজ ও দেশ বিধ্বংসী ভারতীয় চ্যানেল শুধু আমাদের মানষিকভাবে পঙ্গু করছে তা নয়, বাঙ্গালীদের জীবন ও হরণ করছে! মানুষ ভারতীয় চ্যানেল দ্বারা এতই প্রভাবিত যে সে সামান্য ড্রেসের জন্য জীবন দিতে দ্বিধা করছেনা! শুধুমাত্র কিরণমালা আর পাখি ড্রেস এর জন্য প্রতিবছর



তাবলীগ জামায়াতের শিক্ষা কত ভাগ ?


মূলত বর্তমানে প্রচলিত তাবলীগ জামায়াতে যা শিক্ষা দেয়া হয় তার মূল হচ্ছে- ছয়টি বিষয়। যেমন- (১) কলেমা, (২) নামায, (৩) ইলম ও যিকির, (৪) ইকরামুল মুসলিমীন, (৫) তাছহীতে নিয়ত, (৬) তাবলীগ বা নফরুন ফী সাবীলিল্লাহ। কলেমা শরীফ বলতে- শুধু মৌখিকভাবে শুদ্ধ



কিছু সময় গাশ্তে বের হওয়া শবে বরাত ও শবে ক্বদরের রাত্রে হাজরে আসওয়াদকে সামনে নিয়ে দাড়িয়ে থাকার চেয়েও বেশী?ফযীলত।”???


প্রচলিত তাবলীগ জামায়াতের লোকেরা তাদের প্রবর্তিত গাশ্তের ফযীলত বর্ণনা করতে গিয়ে বলে থাকে যে, “কিছু সময় গাশ্তে বের হওয়া শবে বরাত ও শবে ক্বদরের রাত্রে হাজরে আসওয়াদকে সামনে নিয়ে দাড়িয়ে থাকার চেয়েও বেশী ফযীলত।” প্রচলিত তাবলীগ জামায়াতের লোকদের উপরোক্ত বক্তব্য নেহায়েতই



একটি ফলের রসেই গলবে কিডনির পাথর


অপারেশন ছাড়াই গলবে কিডনির পাথর। শুধু একটি ফলের রসেই কিডনির পাথর দূর হবে! হ্যাঁ, ভুল দেখেননি। বিনা অপারেশনেই আধাকাপ লেবুর রসে কিডনির পাথর দূর হবে। প্রতি বছর পৃথিবীতে ক্যানসারের চেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয় কিডনির সমস্যায়। কিডনি সমস্যার সবচেয়ে বড় কারণ



সুরা ইউনুসের ৫৮ নং আয়াত শরীফে রহমত বলতে কাকে বুঝানো হয়েছে ?


আল্লাহ তায়ালার নিয়ামতের শোকরিয়া জ্ঞাপনের একটি উল্লেখযোগ্য মাধ্যম হল নিয়ামতের ওপর খুশি উদযাপন করা। তাই আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে ইরশাদ করেছেন- قل بفضل الله وبرحمته فبذلك فليفرحوا هو خير مما يجمعون অর্থ- ‘(হে রাসুল) আপনি বলুন, (সবকিছু) আল্লাহর দয়া ও মেহেরবাণীতে।



সাইয়্যিদুল আইয়াদ পালন করা কি ইহুদী-খৃষ্টানদের কালচার?


ইহুদী-খ্রীষ্টানের বংশবদ, আবু লাহাবের পুত্র, খারিজী, ওহাবী, বিদয়াতীরাই নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ্ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র বিলাদত দিবস পালনকে “ইহুদী-খৃষ্টানদের কালচার” বলে থাকে নিজেদেরকে ইবলিসের খাছ অনুচর বলে প্রতীয়মান করে . ~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~ তাদের এ বক্তব্য সম্পূর্ণ পবিত্র কুরআন



রসুলে পাক সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর নাম দেখে চুম্বন করার কারণে বনী ঈসরাইলের এক ব্যক্তির ২০০ বছরের গুনাহ


” হযরত ওয়াহাব ইবনে মুনাব্বাহ(রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু) হতে বলেন, “বনী ঈসরাইলের মধ্যে এক ব্যক্তি ছিল অত্যন্ত পাপী, যে ২০০ বছর পর্যন্ত আল্লাহর নাফরমানী করেছে । যখন সে মৃত্যুবরণ করে মানুষেরা তাকে এমন স্থানে নিক্ষেপকরল, যেখানে আবর্জনা ফেলা হতো। তখন হযরত মূসা আলাইহিস



নব উদ্ভাবিত নিন্মোক্ত বিষয়াবলীকে বিদয়াত বলে পরিত্যাগ করার জন্য বলা হচ্ছেনা কেনো?


দিন তারিখ ঘোষণা করে বাংলাদেশে ‘বিশ্ব ইজতেমা’ নামক একটি তাবলীগী সমাবেশ করে। যাকে তারা ইসলামের অন্যতম ফরয ভিত্তি হজ্জের সাথেও তুলনা দিয়ে থাকে। তারা ইসলামের নামে এই তাবলীগ শুরু করেছে কিছুকাল আগে। অপরদিকে পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম



সাহাবা যুগে মিলাদুন্নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাহফিলের প্রমান


  হুজুর পাক সল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়া সাল্লাম উনার উপস্থিতিতে সাহাবায়ে কেরাম মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠান করেছেন | নিম্নে কয়েকটি প্রমান : ১. হযরত আল্লামা জালাল উদ্দীন সূয়ুতী রহমতুল্লাহি আলাইহি যার সনদ সহ প্রায় ২ লক্ষ হাদিস শরীফ মুখস্থ ছিল সেই তাজুল মুফাস্সিরীন



দেওবন্দিদের কাছে মিলাদ শরীফের প্রমান


বর্তমানের দেওবন্দীরা যে সত্যিকারের মুর্খ , পাগল আর বাতিলপন্থী ওহাবী তা তাদের আকীদাগত কার্যকলাপ আর পাইকারী ফতুয়াবাজি থেকে সহজেই অনুধাবন করা যায় | তাদের যদি নুন্যতম কোরআন হাদিসের জ্ঞান আর তাদের পূর্বসুরী দেওবন্দীদের কিতাব সম্পর্কে সামান্য ধারণা থাকতো তাহলে এরা মিলাদ



ভারতে নদিতে মুর্তি ফেললে ৫০০০ রুপি জরিমানা হলে বাংলাদেশে নয় কেন ?


দিল্লি সরকার ঘোষনা দিয়েছে মুর্তি যমুনা নদিতে ফালানো যাবেনা। কারন নাকি নদি দুষন হয়। নির্দিষ্ট ঘাটে মুর্তি ফেলার কথা বলেছে তারা । http://goo.gl/5wFUiW সত্যিই কথা বলতে, বাংলাদেশের নদীগুলো দূষণের যতগুলো মূল কারণ আছে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দূর্গা পূজার