মানুষ -blog


...


 


খনিজ সম্পদের ইজারা বিদেশী বিজাতীয় মুনাফাখোরদের নিকট দেয়ার প্রতিবাদ জানাই


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার অবারিত রহমতের ধনভা-ার বিরাজ করছে আমাদের এই সোনার বাংলায়। বিশেষ করে খনিজ সম্পদের মজুদ এখানে ব্যাপক। এসব খনিজ সম্পদগুলো যথাযথ পদ্ধতিতে উত্তোলন করে দেশের জনসাধারণের চাহিদা পূরণ করে বিদেশেও রফতানী করা যায়। সরকারি-বেসরকারি অনেক



ভারতীয় টিভি চ্যানেলগুলোই সম্ভ্রমহরণসহ তরুণ প্রজন্ম ধ্বংসের প্রধান কারণ


সংস্কৃতি একটি দেশ ও জাতির পরিচয় বহন করে। ৯৭ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত আমাদের বাংলাদেশ সারা বিশ্বের বুকে ইসলামী দেশ হিসেবে তারকার মতো জ্বাজল্যমান। কিন্তু অতি দুঃখের বিষয় যে, এমন একটি মুসলিম দেশে (জাতিগতভাবে মুসলমানদের দ্বিতীয় প্রধান শত্রু) বিধর্মীদের অপসংস্কৃতিতে ছেয়ে গেছে।



সম্প্রতি ক্রাইস্টচার্চে ঘটে যাওয়া ঘটনা সম্প্রতি ক্রাইস্টচার্চে ঘটে যাওয়া ঘটনা প্রসঙ্গে


মুসলমানরা যদি ইহুদীবাদীদের খপ্পর থেকে বের হয়ে আসতে চায়, তবে তাদের ‘টাইম-নলেজ-মানি’ এই তিনটি বিষয় নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। যতদিন এগুলো অমুসলিমদের নিয়ন্ত্রণে থাকবে, ততদিন মুসলমানরা কিছুই করতে পারবে না, তাদেরকে অমুসলিমদের নিয়ন্ত্রণ স্বীকার করে নিতে হবে। যদি মুসলমানরা চায়, ফের



সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আস সাবি‘য়াহ্ আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বরকতময় নসবনামাহ মুবারক


উম্মুল মু’মিনীন উম্মুল মু’মিনীন আস সাবি‘য়াহ্ সাইয়্যিদাতুনা হযরত আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত পিতা হচ্ছেন সাইয়্যিদুনা হযরত জাহ্শ আলাইহিস সালাম। তিনি ছিলেন বনূ আসাদ গোত্রের। তিনি উনার মহাসম্মানিত পিতা আলাইহিস সালাম উনার দিক থেকে ১০ম পুরুষ হয়ে ১১তম পুরুষে যেয়ে



আহ! কত ভয়ানক শাস্তির স্থান জাহান্নাম! 


বর্ণিত রয়েছে, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে যখন সম্মানিত মি’রাজ শরীফ উনার রাতে ভ্রমন করানো হলো তখন উনার সফরসঙ্গী হিসেবে ছিলেন হযরত জিবরীল আলাইহিস সালাম। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি জাহান্নামের



স্কুল-কলেজের বর্তমান শিক্ষাপদ্ধতি শিক্ষার্থীদের ‘মুসলিম’ পরিচয়ে আঘাত করছে 


প্রাইমারি থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত অমুসলিম শিক্ষকদের গড় হার ৫৮ ভাগেরও বেশি। কোনো কোনো বিদ্যালয়ের ৮৫ ভাগ শিক্ষকই বিধর্মী। অনেক ক্ষেত্রে স্কুলের ইসলাম শিক্ষা বই পড়ায় বিধর্মী শিক্ষক। একটি শিশু কোমল মন নিয়ে যখন শিক্ষালাভ শুরু করে, তখন তার শিক্ষকের বা



যামানার মুজাদ্দিদ তথা মুজাদ্দিদ যামান উনাকে চেনা ও জানা ফরয 


  মহান আল্লাহ পাক রব্বুল আলামীন তিনি যুগে যুগে হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে পাঠিয়েছেন। হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের ধারাবাহিকতা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর শুরু হয়েছে ইমাম-মুজতাহিদ, আউলিয়ায়ে কিরামগণ এবং ওলীআল্লাহগণ অর্থাৎ মুজাদ্দিদগণ উনাদের যুগ। ধারাবাহিকভাবে মহান আল্লাহ পাক প্রত্যেক



সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আল উলা কুবরা আলাইহাস সালাম উনার মুবারক ব্যবসা-বাণিজ্য


কুরাঈশ গোত্রের মত উম্মুল মু’মিনীন আল উলা সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার আয়ের উৎস ছিল ব্যবসা বাণিজ্য। উম্মুল মু’মিনীন আল উলা সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার ব্যবসা বাণিজ্য সম্পর্কে আল্লামা ইবনে সা’দ রহমতুল্লাহি আলাইহি লিখেছেন: “উম্মুল মু’মিনীন আল উলা



সন্তানদের পবিত্র কুরআন শরীফ ও আরবী ভাষা শিক্ষা দেয়া পিতা-মাতার দায়িত্ব


সবাই বলে- আপনার সন্তানদের বেশি বেশি বই পড়ান, যত পড়বে তত জানবে, তত শিখবে। ভালো কথা। কিন্তু এটা কি শুধুই গল্প-উপন্যাস আর আউট নলেজের নামে এমন কিছু শিখানো, যেখানে ইসলাম নেই, মুসলমানিত্ব নেই? যদি তা নাই হয়- তাহলে সন্তানকে সবই শিখাচ্ছেন



পূজা-পার্বণের সময় এদের ‘মানবতা’ কোথায় থাকে? 


বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার ৯৮ ভাগই হচ্ছে মুসলমান। এ কারণে এদেশের সংবিধানে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে রাষ্ট্রদ্বীন হিসেবে বহাল রাখা হয়েছে। হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ও উপজাতি সবমিলে রয়েছে মাত্র ২ ভাগ। ওদের যে কোনো কল্পিত ধর্মীয় উৎসবের সময় দেখা যায় সরকার স্বয়ং



অতিরিক্ত ‘ভিটামিন-এ’ এর ক্ষতিকর দিক


ভিটামিন-‘এ’ সব বয়সের মানুষের জন্য প্রয়োজন। বিশেষ করে বাচ্চাদের রোগ প্রতিরোধ, বেড়ে উঠা, চোখের দৃষ্টিসহ আরো অনেক প্রয়োজনে, উদ্ভিদ উৎস হতে হোক কিম্বা প্রাণিজ উৎস থেকে হোক, এটা আমাদের প্রতিদিন গ্রহণ করতে হয়। এর অভাবে যেমন নানাবিধ সমস্যা হয় তেমনি অতিরিক্ত



সালাম দাঁড়িয়ে দেয়াই সম্মানিত শরীয়ত উনার নির্দেশ


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে সালাম শরীফ পেশ করার নিয়ম ও আদব সম্পর্কে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত আবু হুরায়রা রদ্বিয়াল্লাহ তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- يُسَلِّمُ