পরশমণি -blog


...


 


সুমহান পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ ও পবিত্র মীলাদ শরীফ-ক্বিয়াম শরীফ সর্বত্র জারী করার গুরুত্ব ও ফযীলত


পবিত্র মীলাদ শরীফ উনার লুগাতী বা আভিধানিক অর্থ বিলাদত (জন্ম) শরীফ উনার সময়। আর ইছতিলাহী বা ব্যবহারিক অর্থ সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, রহমতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র বিলাদত শরীফ উপলক্ষে খুশি



যাদের আক্বীদা বিশুদ্ধ নয় এবং আমলও পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের খিলাফ তারা কস্মিনকালেও মুসলমানের অন্তর্ভুক্ত


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, হে ঈমানদারগণ! তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনাকে যথাযথভাবে ভয় করো এবং প্রকৃত মুসলমান না হয়ে কেউ মৃত্যুবরণ করো না। যাদের আক্বীদা বিশুদ্ধ নয় এবং আমলও পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের খিলাফ



নববর্ষসহ সকল অপসংস্কৃতির পৃষ্ঠপোষকগুলোই চরম ইসলামবিদ্বেষী ও নাস্তিক


বাংলাদেশে প্রথম পহেলা বৈশাখ পালিত হয় ‘ছায়ানটের’ মাধ্যমে। ১৯৬৪ সনে খুবই সল্প পরিসরে, যার মূলে ছিল কিছু রবীন্দ্রপ্রেমী ইসলামবিদ্বেষী নাস্তিক। ওয়াহিদুল হক, সানজীদা হোসেন, শামসুন্নাহার রহমান, সুফিয়া কামাল এদের অন্যতম। (সূত্র- মুনতাসীর মামুন, ঢাকা: স্মৃতি বিস্মৃতির নগরী ২য় খন্ড) উল্লেখ্য, সুফিয়া



সম্মানিত ইছমিদ সুরমা মুবারক ব্যবহার করা খাছ সুন্নত মুবারক


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র সূরা হাশর শরীফ উনার ৭নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- وَمَا اَتَاكُمُ الرَّسُوْلُ فَخُذُوْهُ وَمَا نَـهَاكُمْ عَنْهُ فَانْتَهُوْا অর্থ: নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি তোমাদের জন্য যা নিয়ে



অস্ত্রের পরিবর্তে ঢোল-তবলা, সশস্ত্রবাহিনীর এ কোন হাল!


প্রবাদ আছে, যার কাজ তাকেই সাজে। কামারের কাছে থাকবে লোহা-লক্কর, হাতুড়ি। মুচির কাছে সুই, সুতা, চামড়া। কসাইয়ের কাছে ছুরি, চাপাতি, ঘাটিয়া। কুলির কাছে টুকরি আর বিড়া। অঙ্কনকারীর কাছে রং, তুলি (ব্রাশ)। সর্বোপরি সশস্ত্র বাহিনীর নিকট থাকবে সর্বাধুনিক অস্ত্র, গোলা-বারুদ, ট্যাংক কামান



হক্কানী-রব্বানী ওলীআল্লাহ উনার নিকট বাইয়াত হয়ে ইলমে তাছাউফ শিক্ষা করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা শয়তানের পদাঙ্ক অনুসরণ করোনা, সে হচ্ছে তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু।” আর নবী আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবী, রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া



সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ বিরোধীরাই সন্ত্রাসবাদের সমর্থক; এদের ধরিয়ে দিন, গ্রেফতার করুন


মুসলমানদের মধ্যে বাতিল বাহাত্তর ফিরক্বা তথা ওহাবী, ছালাফি, তাবলীগী, দেওবন্দী, মওদুদীবাদী জামাতী ইত্যাদি ভ্রান্ত মতবাদের অনুসারীরাই পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উদযাপনের বিরোধিতা করে থাকে। নাউযুবিল্লাহ! বাংলাদেশসহ বিশ্ব সন্ত্রাসবাদের সাথে এসব ভ্রান্ত মতবাদের অনুসারীদের সংশ্লিষ্টতার বিষয়টিও সূর্যের আলোর মতোই পরিষ্কার। যেমন- বিশ্ব



ইতিহাস থেকে শিক্ষা: কোন পথে যাচ্ছে বাংলাদেশের মুসলমানরা?


মুসলমানরা যখন স্পেন শাসন করেছিল, তখন স্পেন ছিল ইউরোপের সর্বোচ্চ শক্তিশালী এবং ধনী দেশ। পৃথিবীর বুকে এমন কারো সাহস ছিল না যে, স্পেন আক্রমণ করে। এর মূল কারণ স্পেনের মুসলমানগণ ছিলেন অত্যন্ত আল্লাহ্ ভিরু, পবিত্র সুন্নত মুবারক অনুসরণকারী এবং পবিত্র ঈদে



বিজাতী-বিধর্মীদের পূজা-পার্বণের সময় এদের মানবতা কোথায় থাকে?


বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার ৯৮ ভাগই হচ্ছে মুসলমান। এ কারণে এদেশের সংবিধানে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে বহাল রাখা হয়েছে। হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ও উপজাতি সবমিলে রয়েছে মাত্র ২ ভাগ। ওদের যে কোনো কল্পিত ধর্মীয় উৎসবের সময় দেখা যায় সরকার স্বয়ং



পবিত্র আশূরা শরীফ উনার হাক্বীক্বী ফযীলত জানতে হযরত মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার ছোহবত মুবারকে আসুন


কতই না উত্তম একটা ফযীলতের দিন আমাদের সামনে তাশরীফ আনছেন; যে দিনটির উপমা ওই দিনই। আর তা হচ্ছে- পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ মাস উনার ১০ তারিখ; যা আশূরা শরীফ নামে খ্যাত। জগদ্বিখ্যাত মুহাদ্দিছ হযরত আব্দুল হক মুহাদ্দিস দেহলভী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি



আমীরুল মু’মিনীন সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার বেমেছাল মহানুভবতা


সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র খিলাফতকাল। তখন ইরানের একটি প্রদেশের শাসক ছিলেন হযরত হরমুজান রহমতুল্লাহি আলাইহি (তিনি তখনো পবিত্র দ্বীন ইসলাম গ্রহণ করেননি)। ইসলাম গ্রহণের পূর্বে হযরত হরমুজান রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি একদিকে যেমন অত্যাচারী, অপরদিকে ঘোর ইসলাম বিরোধী



‘পবিত্র কুরবানীর পশুর হাটের কারণে যানজট হয়’- এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা


একটি মহল কয়েক বছর যাবৎ অপপ্রচার করছে, পবিত্র কুরবানীর পশুর হাটের কারণে যানজট হয়। নাউযুবিল্লাহ! তারা যানজট এড়াতে হাটগুলোকে ঢাকার বাইরে নিয়ে গেছে। নাউযুবিল্লাহ! প্রকৃতপক্ষে ‘পবিত্র কুরবানীর পশুর হাটের কারণে যানজট হয়’ এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা। কারণ সারা বছর তো গরুর