মাসউদুর রহমান -blog


...


 


মহাসম্মানিত ১২ই শরীফ এবং সাইয়্যিদু সাইয়্যিদিশ শুহুরিল আ’যম মহাপবিত্র রবীউল আউয়াল শরীফ উনাদের সম্মানার্থে আখাছছুল খাছ বিষয় সম্পর্কে বিশেষ


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “আমার মহাসম্মানিত হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি জানিয়ে দিন, মহান আল্লাহ পাক উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ফযল মুবারক ও মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র রহমত মুবারক হিসেবে আপনাকে লাভ করার কারণে বিশ্ববাসী যেন খুশি মুবারক



আজ সুমহান ও বরকতময় পবিত্র ২৬শে মুহররমুল হারাম শরীফ। সুবহানাল্লাহ! সিবতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমার সেই উম্মতের জন্য আমার শাফায়াত ওয়াজিব, যে উম্মত আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করেন।’ সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান ও বরকতময় পবিত্র ২৬শে মুহররমুল হারাম



মহান আল্লাহ পাক তিনি নিজেই সাক্ষ্য দিচ্ছেন- মুসলমানদের চির শত্রু হলো- কাফেররা; তারা প্রকাশ্যে ও গোপনে ক্ষতিসাধনে লিপ্ত


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,أ يٰاَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا لا تَتَّخِذُوا بِطَانَةً مِّن دُونِكُمْ لا يَأْلُونَكُمْ خَبَالا وَدُّوا مَا عَنِتُّمْ قَدْ بَدَتِ الْبَغْضَاءُ مِنْ أَفْوَاهِهِمْ وَمَا تُخْفِي صُدُورُهُمْ أَكْبَرُ قَدْ بَيَّنَّا لَكُمُ الْآيَاتِ إِن كُنتُمْ تَعْقِلُونَ অর্থ: হে মু’মিনগণ! আপনারা



সলমান হিসেবে শক্তিশালী হতে চাইলে ‘মুসলমান’ পরিচয়কে আঁকড়ে ধরতে হবে


কাফির-মুশরিকরা ‘মুসলমান’ পরিচয়ের ভিত্তিতেই যুলুম-নিপীড়ন চালাচ্ছে, কারণ মুসলমানরা তাদের ‘মুসলমান’ পরিচয়ের ব্যাপারে সচেতন নয়। মুসলমানরা বর্তমানে ছাত্র-ব্যবসায়ী-পেশাজীবী প্রভৃতি পরিচয়কে যতোটা গুরুত্ব দেয়, তার ‘মুসলমান’ পরিচয়কে সে ততোটা গুরুত্ব দেয় না। উদাহরণস্বরূপ, কিছুদিন আগের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কথাই বলা যাক। সেসময় পুলিশ তাদের



শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সঠিক ইতিহাস চর্চাকে গুরুত্বহীন করার মাশুল দিতে হচ্ছে মুসলমানদের


ইতিহাসকে কেন্দ্র করে অমুসলিম-বিধর্মীরা অহরহ মুসলমানদেরকে সাম্প্রদায়িক আঘাত করে থাকে। বাবরি মসজিদ রামমন্দির ছিল কিংবা তাজমহল শিবমন্দির ছিল- এধরনের বিকৃত ইতিহাসকে কেন্দ্র করেই ভারতে বিজেপির রাজনীতি পরিচালিত হয়। কিন্তু বাস্তবতা হলো, বিধর্মীদেরই নিজস্ব কোনো ইতিহাসই নেই। বিধর্মীদের দাবিগুলোর সবকয়েকটিই দলিলবিহীন ও



কথিত অভিনয়কারীদের “তারকা” বলে সম্বোধন করা কুফরী


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন “মহান আল্লাহ পাক তিনি হযরত ছাহাবায়ে ক্বিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের প্রতি সন্তুষ্ট উনারাও মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি সন্তুষ্ট।” সুবহানাল্লাহ! আর পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “আমার



উলামায়ে সূ’ অর্থাৎ দুনিয়াদার মালানারাই সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিকৃতি ঘটায়


বর্তমানে উলামায়ে সূ’রা পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার ক্ষতি করার কোশেশ করে থাকে এবং মুসলমানগণ উনাদেরকে বিভ্রান্ত করার কোশেশ করে থাকে। মুসলমানগণ উনাদের সমস্ত ইবাদত-বন্দেগীকে নষ্ট করতে চায়। এবং কামিলে-মুকাম্মিল ওলীআল্লাহগণ উনাদের নিকট বাইয়াত হতে বাধা দেয়। নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক



মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বাই‘আতে আক্বাবাহ্ শরীফ এবং উনার শর্ত মুবারকসমূহ


আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মুত্বহ্হার, মুত্বহহির, আছ ছমাদ, মুজাদিদ্দে আ’যম মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বাই‘আতে আক্বাবাহ্ শরীফ তিন বার অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রথম



মুসলিম শিক্ষার্থীদের থেকে বাড়তি ভর্তি ফি আদায় করায় কলেজের অধ্যক্ষকে আইনি নোটিশ


মুসলিম শিক্ষার্থীদের থেকে বাড়তি ভর্তি ফি আদায় করায় কলেজের অধ্যক্ষকে আইনি নোটিশ একাদশ শ্রেণী ভর্তি ফীতে হিন্দু শিক্ষার্থীদের চেয়ে মুসলিম শিক্ষার্থীদের থেকে বেশি ফি আদায় করায় সরকারি সুন্দরবন আদর্শ কলেজের অধ্যক্ষ অভিজিৎকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। মুসলিম রাইটস ফাউন্ডেশনের সহকারী সাধারণ



বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তা’য়ালা আনহু সম্বন্ধে মিথ্যা ও মনগড়া তথ্য প্রদান করায় বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক, প্রকাশক


বিশিষ্ট ছাহাবী হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তা’য়ালা আনহু উনার সম্বন্ধে মিথ্যা ও মনগড়া তথ্য প্রদান করায় বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক, প্রকাশক ও এক কলাম লেখককে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। মুসলিম রাইটস ফাউন্ডেশনের সহকারী সাধারণ সম্পাদক মুহম্মদ আরিফুর রহমানের পক্ষে সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি এডভোকেট



কুল-কায়িনাতের সকল রাত ও দিনের চেয়েও লক্ষ-কোটিগুণ বেশি মর্যাদাসম্পন্ন ও ফযীলতপূর্ণ দিবস মুবারক


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি মহাসম্মানিত ১২ রবীউল আউওয়াল শরীফ ছুবহে ছাদিক্ব উনার সময় সম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেছেন। অর্থাৎ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান



কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ তথা শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে- মুসলমানদের জন্য মূর্তিপূজা শিরক, অমার্জনীয় কবীরা গুণাহ ॥ শরীয়তের


মূর্তিপূজা তথা শিরক করা যে কত কঠিন একটি গুনাহ, এ সম্পর্কে খালিক মালিক রব মহান আল্লাহপাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “মহান আল্লাহ পাক তিনি শিরক-এর গুনাহ মাফ করবেন না। শিরক ছাড়া অন্য যত গুনাহ আছে সেগুলো যাকে ইচ্ছা মাফ করে দিবেন।’’