মাসউদুর রহমান -blog


...


 


জ্বর, ঠাণ্ডা, সর্দি, কাশি হলেই করোনা নয়।


জ্বর, ঠাণ্ডা, সর্দি ও কাশি হওয়া খাছ সুন্নত উনার অন্তর্ভুক্ত। এ সম্পর্কে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, عن حضرت أَبِىْ عَسِيبٍ رضى الله تعالى عنه مَوْلَى رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى



তারা ইসলামের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যেই বলে, কিন্তু মুসলমানরা প্রতিবাদ করতেও লজ্জা পায়!


ইন্টারনেট খুললে, দেশের পত্র-পত্রিকাগুলোর পাতা উল্টালে বেপর্দা, বেহায়া আর ইসলাম নিষিদ্ধ কাজগুলোরই প্রশংসা। অমুক নারী খেলোয়াড় এটা জিতেছে, অমুক নায়িকা এটা করেছে সেটা করেছে। যেন সে বিরাট কিছু। অথচ সে যে বিবস্ত্র প্রায় পোশাক পরে লাখো পুরুষদের সামনে শারীরিক কসরত করে



নদী রক্ষার নামে পবিত্র মসজিদ ভাঙ্গা বা স্থানান্তর করা চলবে না, কারণ পবিত্র মসজিদ উনার মালিক কোন ব্যক্তি-গোষ্ঠি বা


রাস্তা-ঘাট, ফ্লাইওভার, মেট্ররেল, নদী সংরক্ষণ বা সরকারী-বেসরকারী যে কোন প্রয়োজনের নাম দিয়ে পবিত্র মসজিদ ভাঙ্গা, স্থানান্তর করা অথবা মসজিদ উনার জমি বিক্রয় করা চলবে না। কারণ পবিত্র মসজিদ উনার মালিক কোন ব্যক্তি-গোষ্ঠি বা কোন দেশের সরকার নয়। পবিত্র মসজিদ উনার একমাত্র



তিনি এমন এক মর্যাদাসম্পন্না ওলীআল্লাহ, যে মাক্বামে সৃষ্টির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আর কেউ পৌঁছাতে পারবে না


আমাদের মহাসম্মানিতা সাইয়্যিদাহ হযরত দাদীজান ক্বিবলা আলাইহাস সালাম তিনি এমন এক মর্যাদার অধিকারিণী সেই অবস্থান বা মাক্বামে সৃষ্টির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আর কেউ কখনো পৌঁছতে পারবে না। যা হচ্ছে, ‘উম্মু মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহাস সালাম হওয়ার সুমহান মর্যাদা। অর্থাৎ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ



আজ সুমহান বরকতময় ২৫শে শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! আওলাদে রসূল সাইয়্যিদাতুনা হযরত সাইয়্যিদাতুন নিসা আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র বিছালী শান


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘নিশ্চয়ই আমার ওলী উনারা আমার জুব্বা মুবারক উনার নিচে অর্থাৎ আমার কুদরত মুবারক উনার মধ্যে অবস্থান করেন, আমি ছাড়া উনাদেরকে কেউ



প্রকৃত ইতিহাস কি বলে? কথিত দেবোত্তর সম্পত্তি, নাকি মুসলমানদের লাখেরাজ সম্পত্তি?


লাখেরাজ সম্পত্তি বলা হয় নিষ্কর বা শুল্ক মুক্ত ভূমিকে। মুসলিম শাসন আমলে মুসলিম শাসকগণ কর্তৃক এ অঞ্চলের মুসলিম ছূফী-দরবেশ ও আলিম-উলামা উনাদেরকে প্রশাসনের তরফ থেকে নিষ্কর অর্থাৎ বিনা খাজনায় হাজার হাজার বিঘা সম্পত্তি দেয়া হতো; যাতে করে উনারা নির্বিঘেœ ইসলামী শিক্ষা-দিক্ষার



বিধর্মীদের দোকানপাট থেকে কেনাকাটায় মুসলমানদের বিরত থাকার বিকল্প নেই


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে ঈমানদারগণ! তোমরা আমার (মহান আল্লাহ পাক উনার) শত্রু এবং তোমাদের (মুসলমানদের) শত্রু (কাফির, মুশরিক, ইহুদী, নাসারা ইত্যাদি) তাদেরকে বন্ধু হিসেবে গ্রহন করো না।” (পবিত্র সূরা মুমতাহিনাহ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ১) প্রসঙ্গত উল্লেখ্য



পবিত্র কুরবানী নিয়ে ষড়যন্ত্র কঠোর হস্তে বন্ধ না করলে সরকারের সহযোগিতা প্রমাণিত হবে


পবিত্র কুরবানী মুসলমানদের ঈমানের সাথে অর্থাৎ মুসলমানিত্বের সাথে সম্পৃক্ত, যা গোটা দেশের জন্য শুধু বরকতের কারণই নয়; বরং অর্থনৈতিকভাবেও ব্যাপক সমৃদ্ধির কারণ। এই বরকতময় কুরবানীতে যেন মুসলমানগণ বাধাগ্রস্ত হয়, কুরবানীর সংখ্যা যেন ধীরে ধীরে কমে আসে, কুরবানীতে যেন বিশৃঙ্খল সৃষ্টি হয়



আজ সুমহান বেমেছাল বরকতময় ২৪শে শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম! নিশ্চয়ই আপনারা অন্য কোনো মহিলাদের মতো নন।” সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান বেমেছাল বরকতময় ২৪শে শাওওয়াল শরীফ। সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে সাইয়্যিদাতুন



“ছোঁয়াচে রোগ বলতে কোনো রোগ নেই” এটা সম্মানিত শরীয়ত উনার কথা, শরীয়তের কথা বলার অধিকারও কি তারা কেড়ে নিতে


কাফির মুশরিকরা করোনাকে ছোঁয়াচে রোগ বলে প্রচার করছে আর তাদের এই প্রচারনায় মুসলমানরাও বিশ্বাস করছে। নাউযুবিল্লাহ! এমতাবস্থায় হক্কানী উলামায়ে কিরাম উনারা মুসলমানদের ঈমান আক্বীদা হিফাযতের লক্ষ্যে প্রচার করছেন যে, সম্মানিত ইসলামে ছোঁয়াচে বলতে কোন রোগ নেই। ছোঁয়াচে বিশ্বাস করা শিরকের অন্তর্ভুক্ত।



প্রকাশ্য কিছু দেখলেই অবনত হওয়া বিধর্মীদের বদ খাছলত


সাধারণ মানুষের স্বাভাবিক প্রশ্ন- এতবড় মালানা-মুফতে সাহেব এই কাজ করলো, তাইলে এটা কিভাবে ভুল হতে পারে? ডাক্তার জাকির নায়েক তথা কাফির নালায়েকের মতো এ রকম অনেক প্রকা- প্রকা- গুমরাহ ও বিভ্রান্ত লোক আছে যাদের হাজার হাজার ভক্ত আছে, আছে বিভিন্ন মিডিয়ায়



মুজাদ্দিদে আ’যম, আওলাদে রসূল, ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি উম্মাহর জন্য বেমেছাল রহমত


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- اللهُ اَعْلَمُ حَيْثُ يَـجْعَلُ رِ‌سَالَتَهُ ۗ অর্থ: “মহান আল্লাহ পাক তিনি সমধিক জ্ঞাত তিনি উনার রিসালাত মুবারক কোথায় বা কাকে দিবেন।” (পবিত্র সূরা আলে ইমরান শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ১২৪) অর্থাৎ রিসালাত, নুবুওওয়াত