মাসউদুর রহমান -blog


...


মাসউদুর রহমান
 


মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়া ইসরাইলের সাথে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর গলাগলি সম্পর্ক


সৌদিআরব, বাহরাইন, আরব আমিরাত এবং মিসরের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়া ইসরাইলের যে গলাগলি সম্পর্ক চলছে, এর ফলে ফিলিস্তিনের আকাশে কেবলই কালোমেঘ ঘন হচ্ছে। সাম্প্রতি নিউইয়র্ক থেকে ইহুদিদের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল এসে বাহরাইন ঘুরে গেছে। বাহরাইনে পাওয়া সম্মান ও আতিথেয়তায় উৎফুল্ল প্রতিনিধি



দ্বীন ইসলাম উনার দৃষ্টিতে বাল্য বিবাহ সামাজিক ব্যাধি নয় বরং সুন্নতে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “তোমাদের জন্য আমার সুন্নত মুবারক অবশ্যই পালনীয়। আমরা এই হাদীছ শরীফ দ্বারা বুঝতে পারি যে, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেছেন



পবিত্র লাইলাতুম মুবারাকা বা শবে বরাত শরীফ সম্পর্কে বর্ণিত একটি হাদীছ শরীফ; যা ছহীহ হওয়ার ব্যাপারে সকলেই একমত


পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ প্রসঙ্গে অসংখ্য ছহীহ হাদীছ শরীফ বর্ণিত আছে। এত ব্যাপক সংখ্যক বর্ণনার ফলে লা’মাযহাবীদের গুরুরাও পবিত্র হাদীছ শরীফগুলোকে ছহীহ মেনে নিয়েছে। তারপরও কিছু কুয়োর ব্যাঙ সালাফী, লা’মাযহাবীরা পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার উছূল সম্পর্কে অজ্ঞ হওয়ার কারণে ছহীহ হাদীছ



দ্বীন ইসলাম উনার দৃষ্টিতে বাল্য বিবাহ সামাজিক ব্যাধি নয় বরং সুন্নতে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম


নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “তোমাদের জন্য আমার সুন্নত মুবারক অবশ্যই পালনীয়। আমরা এই হাদীছ শরীফ দ্বারা বুঝতে পারি যে, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেছেন



শ্রমিক অধিকার নয়, একটি ধোঁকার নাম ‘১লা মে’


কেন শ্রমিক দিবস পালন করবে? ১লা মে কী হয়েছিলো? ১লা মে শ্রমিকদের কী কোনো ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠা হয়েছিলো? ১লা মে কী পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার সমর্থিত শ্রমিক দিবস। না, কখনোই নয়। কারা আজ শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠার কথা বলছে? ছূরতান লোক দেখানো



ফসলের ৪২ ভাগ যায় রাজাকার ত্রিদিবের সন্তান দেবাশীষের ঘরে। স্বাধীন বাংলা দেশে উপজাতি সন্ত্রাসী চৌকিদারকে কেন রাজা হিসেবে স্বীকৃতি


স্বঘোষিত রাজা ও রাণী কোন যুক্তিতে সাধারণ পাহাড়ী জনগোষ্ঠীর কাছ থেকে চাঁদা আদায় করেন একর প্রতি জুম ফসলের ৪২ ভাগ? এই অথোরিটি বাংলাদেশের কোন আইনে সিদ্ধ? কে দিয়েছে তাদের? বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে আমি তাই উচ্চকিত চিৎকারে বলি, “এই কথিত রাজার



সরকারের প্রতি- রমাদ্বান শরীফ উনার পবিত্রতা রক্ষার্থে হারাম খেলাধুলা, নাচ, গান-বাজনা, বন্ধ করা, দ্রব্যমূল্য হ্রাস করা, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের


মহান আল্লাহপাক তিনি কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন – يا ا يها الذين امنوا كتب عليكم االصيام كما كتب علي الذ ين من قبلكم لعلكم تتقون অর্থ: হে ঈমানদার বান্দা-বান্দীগণ! আপনাদের জন্য পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার মাসে পবিত্র ছিয়াম



আপনার শিশুকে আজই চিনিয়ে দিন তার প্রধান শত্রু “কে”


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা তোমাদের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে পাবে ইহুদী অতঃপর মুশরিকদেরকে।” (পবিত্র সূরা মায়িদা শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৮২) আরো ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “ইহুদী-নাছারারা হিংসাবশত মুসলমানদের ঈমান আনার পর কুফরী করাতে চায়। (পবিত্র সূরা বাক্বারা



কথিত বৈশাখী শাড়িতে মহান আল্লাহ পাক উনার নাম মুবারক যারা কটাক্ষ করে লিখেছে তাদেরকে বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেছেন- اِنَّ الَّذِيْنَ يُؤْذُوْنَ اللهَ وَرَسُوْلَهٗ لَعَنَهُمُ اللهُ فِى الدُّنْيَا وَالْاٰخِرَةِ وَاَعَدَّ لَـهُمْ عَذَابًا مُّهِيْنًا. অর্থ: “নিশ্চয়ই যারা মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে



পবিত্র খইরুল কুরূনে পবিত্র মক্কা শরীফে অর্থাৎ মসজিদুল হারাম শরীফে পবিত্র লাইলাতুম মুবারাকাহ বা পবিত্র লাইলাতুল বরাতে সারা রাত


বাতিল ফিরকারা বলে থাকে- পবিত্র লাইলাতুম মুবারাকাহ বা লাইলাতুন নিছফি মিন শা’বান পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ বিদয়াত। খইরুল কুরূনে কেউ পবিত্র লাইলাতুল বরাত শরীফ পালন করেন নাই। কেউ এ রাতে ইবাদত-বন্দেগী করেন নাই। নাউযুবিল্লাহ! নাউযুবিল্লাহ! নাউযুবিল্লাহ! অথচ ইতিহাস সাক্ষী- খাইরুল কুরুনে



মুক্তি ও নাজাতের রাত পবিত্র লাইলাতুম মুবারাকাহ বা লাইলাতুল বরাত


বান্দা-বান্দীকে মুক্তি ও নাজাত দানের জন্যই মহান আল্লাহ পাক তিনি অনেক রাত্রিকে ফযীলতপূর্ণ ও মর্যাদা সম্পন্ন করেছেন। ওই সকল বরকতময় রজনীসমূহে সারারাত সজাগ থেকে ইবাদত-বন্দেগী করার জন্য মহান আল্লাহ পাক তিনি ও উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি



পবিত্র লাইলাতুম মুবারাকাহ বা ‘লাইলাতুল বরাত’ কি কি নামে পরিচিত


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার পবিত্র সূরা ‘আদ দুখান’ শরীফ উনার ৩, ৪ নম্বর পবিত্র আয়াত শরীফে ‘শবে বরাত’কে ‘লাইলাতিম মুবারকাতিন’ (বরকতপূর্ণ রাত) হিসেবে উল্লেখ করে ইরশাদ মুবারক করেন- “নিশ্চয়ই আমি উহা (পবিত্র কুরআন শরীফ) এক বরকতপূর্ণ রাত্রিতে