মাসউদুর রহমান -blog


...


 


‘নির্যাতিতে’র অভিনয় করাই হলো অমুসলিমদের প্রধানতম অস্ত্র


এদেশের অধিকাংশ আইনজীবীদের মতে, ‘নারী নির্যাতন আইন’ নামে যে আইনটি রয়েছে এদেশে, তার ব্যবহারের চেয়ে অপব্যবহার বেশি। যেহেতু এই আইনটিতে সাক্ষী কিংবা প্রমাণের তোয়াক্কা না করেই কেবল কথিত ‘ভিকটিমে’র দাবির উপর ভিত্তি করে রায় দেয়া হয়, সেহেতু অধিকাংশ ক্ষেত্রেই উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিরুদ্ধপক্ষের



বিধর্মীরা তাদের শিশুদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র তুলে দিয়ে মুসলিম নিধনের হাতেখড়ি দেয়; বিপরীতে মুসলমানরা তাদের শিশুদের হাতে তুলে দেয় বাদ্যযন্ত্র


মাঝে মাঝে পত্রপত্রিকাতে প্রকাশিত হয় যে, যুক্তরাষ্ট্রে শিশুদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়ে অস্ত্র প্রশিক্ষক দ্বারা অস্ত্র প্রশিক্ষণ। এভাবে বিশ্বের প্রতিটি খ্রিস্টান দেশেই তাদের নাগরিকদের অস্ত্র প্রশিক্ষণ দেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। ইহুদীরা অনেকটা হাতেখড়ি দেয়ার মতো করেই তাদের শিশুদের হাতে ইসরাইলে প্রস্তুতকৃত উজি



এক নজরে- সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন, আফদ্বলুন নাস ওয়ান নিসা বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা


সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল হাদিয়াহ্ ‘আশার আলাইহাস সালাম তিনি হচ্ছেন হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মধ্যে বিশেষ ব্যক্তিত্বা মুবারক। সুবহানাল্লাহ! তিনি শুধু যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি নন এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ



পবিত্র আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সাথে কোন সৃষ্টির মাঝে তুলনা করা যাবে না। উনারা সকল মিছালের উর্ধ্বে


এ প্রসঙ্গে পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- قال النبى صلى الله عليه وسلم نـحن اهل البيت لايقاس بنا احد অর্থ : নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- আমরা, পবিত্র আহলু বাইত



মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র আইয়্যামুল্লাহ শরীফ উনাদের পরিচিতি মুবারক এবং পালনের গুরুত্ব, তাৎপর্য ও ফাযায়িল-ফযীলত মুবারক


اَيَّامٌ (আইয়্যামুন) শব্দ মুবারকখানা يَوْمٌ (ইয়াওমুন) শব্দ মুবারক উনার বহুবচন। অর্থ দিনসমূহ। আর শব্দ মুবারকখানা লফযে আল্লাহ (اَللهُ শব্দ মুবারক) উনার সাথে ইযাফত হয়ে- اَيَّامُ اللهِ (আইয়্যামুল্লাহ্) হয়েছেন। সুবহানাল্লাহ! আর اَيَّامُ اللهِ (আইয়্যামুল্লাহ্) উনার অর্থ হচ্ছেন- যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান



এক নজরে- সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন, আফদ্বলুন নাস ওয়ান নিসা বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা


সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল হাদিয়াহ্ ‘আশার আলাইহাস সালাম তিনি হচ্ছেন হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মধ্যে বিশেষ ব্যক্তিত্বা মুবারক। সুবহানাল্লাহ! তিনি শুধু যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি নন এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ



সুমহান বেমেছাল বরকতময় ৩রা ছফর শরীফ। সুবহানাল্লাহ!


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম! নিশ্চয়ই আপনারা অন্য কোনো মহিলাদের মতো নন।” অর্থাৎ কোনো পুরুষ ও মহিলা কেউই আপনাদের মত নয়। সুবহানাল্লাহ! আজ সুমহান বেমেছাল বরকতময় ৩রা ছফর শরীফ। সুবহানাল্লাহ! নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ



হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল হাদিয়াহ্ ‘আশার আলাইহাস সালাম উনার


ইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন, উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল হাদিয়াহ্ ‘আশার আলাইহাস সালাম উনার ‘আযীমুশ শান নিসবতে ‘আযীম শরীফ প্রথম শাদী মুবারক: সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন,



মাযহাব মানা ফরয; অস্বীকারকারীরা গুমরাহ


মাযহাব অনুসরণ করার বিশেষ কয়েকটি খুছুছিয়ত- ১. সহীহ ও সুস্পষ্টভাবে সম্মানিত শরীয়ত পালন করা, ২. পবিত্র কুরআন মাজীদ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের সঠিক তাফসীর ও ব্যাখ্যা জেনে আমল করা, ৩. ইজমাউল উম্মাহ ও ছহীহ ক্বিয়াস উনাদের মাসয়ালাগুলো সহজেই জানা, ৪.



উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল হাদিয়াহ্ ‘আশার আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বরকতময় নসবনামাহ মুবারক


সাইয়্যিদাতু নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন, আফদ্বলুন নাস ওয়ান নিসা’ বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল হাদিয়াহ্ ‘আশার আলাইহাস সালাম তিনি মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র নসব মুবারকগত দিক থেকে সম্মানিত কুরাইশ বংশীয়। সুবহানাল্লাহ! উনার মহাসম্মানিত পিতা হচ্ছেন সাইয়্যিদুনা হযরত



ইতিহাসে এই প্রথম, নজিরবিহীন, অভূতপূর্ব, আশ্চর্যজনক, কিংবদন্তী, বিস্ময়কর ঘটনা…..


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুজূর পাক হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রশংসা মুবারক বর্ণনা করে সারা বিশ্বজুড়ে অনেক মাহফিল হয়। কোনটি হয় ১ দিন কোনটি হয় ২ দিন কোনটি হয় ৭দিন কোনটি বা হয় ৩০ দিনব্যাপী। কিন্তু সারা বছর এমনকি



বিধর্মীরা তাদের কথিত ধর্মীয় ঐতিহ্য লালন করতে অসভ্যতা, বর্বরতা, কুসংস্কারকে আঁকড়ে ধরে আছে; পক্ষান্তরে মুসলমানরা কাফিরদের সাথে মিশে নিজের


মালউন (অভিশপ্ত) সম্প্রদায় হিসেবে যবন, ম্লেচ্ছ, অস্পৃশ্য মূর্তিপূজারী (মুশরিক) জাতি কুখ্যাতি অর্জন করেছে বহু বছর আগে। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “নিশ্চয়ই মুশরিকরা নাপাক।” (পবিত্র সূরা তওবা শরীফ, পবিত্র আয়াত শরীফ-২৮) কাফির-মুশরিকরা এখনো সভ্য সমাজে (মুসলমানদের সাথে) বাস