মাসউদুর রহমান -blog


...


 


আমাদের কি জানা আছে- যামানার মহান ইমাম ও মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আযম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম উনার সম্পর্কে?


মুবারক নছব বা বংশ পরিচয়: মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার মুবারক বংশ পরম্পরা সাইয়্য্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে সম্পৃক্ত। সম্মানিত পিতা-মাতা উভয়ের দিক থেকে তিনি যথাক্রমে সাইয়্যিদু শাবাবি আহলিল



পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার সুমহান সম্মানার্থে মাহফিল করা, সাধ্যমত খরচ করা ফরযে আইন এবং সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বোত্তম ইবাদত


খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক করেন, يَا ايُّهَا النَّاسُ قَدْ جَاءتْكُم مَّوْعِظَة مّن رَّبّكُمْ وَشِفَاء لّمَا فِى الصُّدُورِ وَهُدًى وَرَحْمَة لّلْمُؤْمِنِينَ .قُلْ بِفَضْلِ اللّهِ وَبِرَحْمَتِه فَبِذلِكَ فَلْيَفْرَحُواْ هُوَ خَيْر مّمَّا يَجْمَعُونَ অর্থ



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিশেষ ওছিয়্যত মুবারক: সম্মানিত নাম মুবারক


এ প্রসঙ্গে পবিত্র হাদীস শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- عَنْ حَضْرَتْ حَنَشٍ رَحْـمَةُ اللهِ عَلَيْهِ قَالَ رَأَيْتُ حَضْرَتْ عَلِيًّا عَلَيْهِ السَّلَامُ يُضَحّىْ بِكَبْشَيْنِ فَـقُلْتُ لَه مَا هٰذَا فَقَالَ اِنَّ رَسُوْلَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ اَوْصَانِـىْ اَنْ اُضَحّىَ عَنْهُ فَاَنَا



পবিত্র কুরবানী কার উপর ওয়াজিব?


পবিত্র কুরবানী ওয়াজিব হওয়ার জন্য শর্ত হচ্ছে- ১. মুসলমান হওয়া, ২.স্বাধীন হওয়া, ৩. মুক্বীম হওয়া, ৪. বালিগ হওয়া, ৫. মালিকে নিসাব হওয়া। পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস উনার ১০ তারিখ ছুবহি ছাদিক হতে ১২ তারিখ সুর্যাস্তের পূর্ব পর্যন্ত এ সময়ের মধ্যে যদি



পবিত্র কুরবানী উনার সংশ্লিষ্ট মাসয়ালা-মাসায়িল


পবিত্র কুরবানী উনার পশুর বৈশিষ্ট্য মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- فَصَلّ لِرَ‌بّكَ وَانْـحَرْ‌ ◌ অর্থ : “আপনার মহান রব তায়ালা উনার উদ্দেশ্যে নামায পড়–ন এবং কুরবানী করুন।” (পবিত্র সূরা কাওছার শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ২) এখন কুরবানী করতে



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি যবন, ম্লেচ্ছ, অস্পৃশ্য কাফির-মুশরিকগুলির কতবেশি বিদ্বেষ, তার একটি


ইংরেজিতে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত এবং মহাপবিত্র নাম মুবারক “সাইয়্যিদুনা মুহম্মদ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম” লিখলে প্রথমে ‘গ’ অক্ষরটি আসে। সেই হিসেবে ইংরেজি বর্ণমালা অনুযায়ী ‘গ’ অক্ষরটি ১৩ নম্বরে আসে। সে জন্য এই যবন,



বিভ্রান্তি সৃষ্টির জন্যই বিধর্মীরা ভারতবর্ষের মুসলিম শাসকদের ইতিহাসকে বিকৃত করে থাকে


“মহোদয়গণ, এখানে ঐ ছবির সামনে দাঁড়িয়ে (দেয়ালে টাঙ্গানো শিবাজির ছবি দেখিয়ে) আমরা কি তার জীবন থেকে অনুপ্রেরণা লাভ করতে পারি না।… আমি জানি শিবাজি বার বার বঙ্গদেশে হামলা করেছিল (হাস্য), তার বাহিনী আমাদের সম্পদ লুট করেছে, আমাদের মন্দির ও গৃহদেবতা পর্যন্ত



প্রসঙ্গ শিক্ষাব্যবস্থার নতুন রূপ: বিশ্বব্যাপী ইহুদী ষড়যন্ত্রের মাস্টার প্ল্যান প্রটোকল অফ ইহুদী


(সারা বিশ্বের ভারসাম্য নষ্ট করে নিজেদের করতলে নেওয়ার জন্য ইহুদীরা শত শত বছর আগে তৈরী করে দুটি মাস্টার প্ল্যান। একটি ছিলো দুই শত বছর মেয়াদী মাস্টারপ্লান অপরটি ছিলো তিনশত বছরব্যাপী মাস্টারপ্ল্যন। যাকে বলা হয় প্রটোকল অফ ইহুদী। এটা পাঠে পাঠক অতি



উপজাতি-বৌদ্ধগুলোর রাজাকারগিরি ইতিহাস থেকে মুছে যায়নি


৭১ সালের স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় পার্বত্য চট্টগ্রামের উপজাতিদের দুই প্রধান ত্রিদিব এবং অংশু প্রু পাকিস্তানের পক্ষ নেয়। ত্রিদিব সে প্রথম রাঙ্গামাটিতে পাকিস্তানি আর্মিদের নিয়ে আসে। এরপর আসে বিশুদ্ধানন্দের নাম। ‘একাত্তরের ঘাতক ও দালালেরা কে কোথায়’ বইতে উল্লেখ করা হয়েছে- স্বাধীনতা যুদ্ধের



মানুষের ঘরে খাবার নেই। খাবারের জন্য চলছে বিক্ষোভ, সরকারি ত্রাণে চলছে লুটপাট। জনগণের অসহায়ত্ব নিয়ে টালবাহানার পরিণাম হতে পারে


সারাদেশে চলছে তথাকথিত লকডাউন। বাজার ঘাট বন্ধ, সব ধরণের পেশার উৎসও বন্ধ। এমন পরিস্থিতিতে দেশের অধিকাংশ মানুষের ঘরেই নেই খাবার। ফলে লকডাউন ভেঙ্গে রাস্তায় নেমে আসছে সাধারণ মানুষ। ক্ষুধায় কাতর হয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে ত্রাণের আশায়। কোথাও ত্রাণের গাড়ি দেখলে হুমড়ি



প্রতিটি পরিস্থিতিতে একমাত্র মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতিই তাওয়াক্কুল বা ভরসা করতে হবে


নেক খাছলত বা নেক স্বভাবের অর্ন্তভুক্ত বিষয় সমূহের মধ্যে একটি বিষয় হচ্ছে তাওয়াক্কুল। বান্দা-বান্দী, জিন-ইনসান পুরুষ-মহিলা সকলের জন্য ফরয মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতিই নির্ভরশীল হওয়া, ভরসা করা, তাওয়াক্কুল করা। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার একাধিক পবিত্র আয়াত শরীফ উনাদের মধ্যে তাওয়াক্কুলের



কোন অধিকারে- ক্ষুধার্ত মানুষকে আঘাত করা হচ্ছে?


ঘরে বসে থাকলে খাবার দিবে কে? এটাই এখন দেশের কোটি কোটি মানুষের প্রশ্ন। অথচ সরকারী আমলা-কামলারা সরকারের কথিত আদেশ-নিষেধ বাস্তবায়নের নামে এইসকল মানুষদের উপরই জুলুম শুরু করেছে। রাস্তায় বের হয়েছে কেন, মাস্ক পরেনি কেন, দোকান খুলেছে কেন, রিকশা চালাচ্ছে কেন ইত্যাদি