মাসউদুর রহমান -blog


...


মাসউদুর রহমান
 


পাবর্ত্য চট্টগ্রামে উপজাতি গোষ্ঠীগুলোকে উস্কানি দিচ্ছে বিদেশী এনজিওগুলো


পার্বত্য চট্টগ্রামে উপজাতি গোষ্ঠীগুলো উস্কে দেয়ার মূলে কাজ করছে বিদেশী কিছু সংস্থা, যেমন- জাতিসংঘ (ইহুদীসংঘ), ইউএনডিপি, কারিতাস, কেয়ার, আশা, সিসিডিবি’সহ আরো কিছু বিদেশী এনজিও। এরাই কুটবুদ্ধি ও কুপরামর্শ দিয়ে উপজাতি গোষ্ঠীগুলোকে ক্ষেপিয়ে রাখছে। এই উস্কে দেয়ার পেছনে উপজাতিদের মুলো দেখানো হয়-



সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উপলক্ষে খুশি প্রকাশ না করলে কঠিন শাস্তি ভোগ


পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, হযরত ঈসা আলাইহিস সালাম তিনি দোয়া করেছিলেন, “আয় আল্লাহ পাক! আয় আমাদের রব! আমাদের জন্য আপনি আসমান হতে (বেহেশতী খাদ্যের) খাদ্যসহ একটি খাঞ্চা নাযিল করুন। খাঞ্চা নাযিলের উপলক্ষটি অর্থাৎ খাদ্যসহ খাঞ্চাটি যেদিন নাযিল



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ‘হায়াতুন্ নবী’ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ‘হায়াতুন নবী’। এ সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যারা মহান আল্লাহ পাক উনার রাস্তায় শহীদ হয়েছেন, তোমরা উনাদেরকে মৃত বলো না, বরং উনারা জীবিত। অথচ তোমরা তা উপলব্ধি



উযু করার নিয়মাবলী ও ফযীলত


উযুর ফযীলত: নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ক্বিয়ামতের দিন আমার উম্মতগণকে এ অবস্থায় পেশ করা হবে যে, তখন তাদের চেহারা দুনিয়ায় থাকতে যে উযু করেছিল উহার বরকতে এমন ঝকমক করতে থাকবে- যেমন ঘোড়ার



যে মায়ানমার রোহিঙ্গাদের গণশহীদ করছে, সে মায়ানমারেরই অধিবাসী বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামের উপজাতিরা


মায়ানমারের হানাদার সরকার বলে থাকে- ‘রোহিঙ্গা মুসলমানরা বাংলাদেশী। তাই তাদের সেখানে থাকতে দেয়া হবে না।’ অথচ এর কোনো ঐতিহাসিক ভিত্তি নেই। বরং ঐতিহাসিকভাবে প্রমাণিত সত্য যে- পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত উপজাতি সন্ত্রাসীরা মায়ানমার থেকে এসেছে। (১). চাকমা: পূর্বনিবাস হলো চম্পকনগর, মায়ানমার। আনুমানিক



মুসলমান উনাদের জন্য পবিত্র ঈমান রক্ষার জন্য ফান্ড তৈরি করা উচিত


প্রত্যেক মুসলমান উনাদের জন্য ঈমান রক্ষার জন্য ফান্ড তৈরি করা উচিত। যার যার আয় থেকে ৩০% অথবা ৪০% জমা করা উচিত। এটা প্রত্যেক মুসলমান উনাদের ঈমানী দায়িত্ব। এই ফান্ডের টাকা দিয়ে পবিত্র ঈমান রক্ষার জন্য যা যা করার প্রয়োজন সেই বিষয়গুলোতে



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্রতম পরিবার তথা আহালে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত আছে। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, তোমরা আমার মুহব্বত, মা’রিফাত, রেযামন্দি, সন্তুষ্টি মুবারক পেতে চাইলে আমার পবিত্র আহলে বাইত শরীফ উনাদেরকে মুহব্বত করো, তা’যীম করো, তাকরীম করো।



পিতা-মাতা উনাদের প্রতি সন্তানের কর্তব্য


মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার পবিত্র কালাম পাক উনার পবিত্র সূরা বনী ইসরাইল শরীফ উনার ২৩ নম্বর পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমাদের রব তায়ালা তিনি আদেশ মুবারক দিয়েছেন যে, তোমরা মহান আল্লাহ পাক উনার ব্যতীত কারো ইবাদত



‘শিক্ষানীতি’তে দেশের কোটি কোটি মুসলমানদের আশা-আকাঙ্খার প্রতিফলন নেই কেন !!


এটা সবারই জানা আছে, পড়ালেখা করুক আর না করুক- সবাই এই কথাটিকে আওড়িয়ে থাকে। ‘শিক্ষা জাতির মেরুদ-’। কিন্তু শিক্ষা নামক এই মেরুদন্ড নিয়ে এ দেশের মুসলমানদের কখনো কোনো চিন্তা-ভাবনা করে থাকে বলে মনে হয় না। কারণ আজ অনেক বছর থেকেই দেশের



তাদের জন্য রয়েছে লাঞ্ছনাদায়ক শাস্তি….


পতিতাবৃত্তি নিকৃষ্ট কাজ ব্যতিত অন্য কিছু নয়। সে পুরুষ বেশ্যা হোক আর মহিলা বেশ্যা হোক। ওরা সমাজে থেকেই সমাজের ধার ধারে না। সমাজের ভাল কিছু গ্রহণ করে না। ইসলাম উনাকে তা’যীম না করার কারণে তাদের এই লাঞ্ছনা। একটা পাপ থেকে অগনিত



মসজিদে ঠিঠি পাঠিয়ে নয়, বরং সংবিধানে মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি ‘পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস’ পুনঃস্থাপন করে জনগণের আস্থা


আওয়ামী লীগ নাকি হিন্দুর দল, নাস্তিকের দল। এটা কিন্তু এক সময় সবার মুখে মুখে প্রচলিত ছিল। কিন্তু নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিতে শেখ হাসিনা যখন বললেন, “আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় গেলে পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ বিরোধী কোনো আইন পাশ হবে না” এ



মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তোমরা সকলেই আল্লাহওয়ালা হও।’


প্রত্যেক মুসলমান পুরুষ ও মহিলা উনাদের সকলের জন্যেই আল্লাহওয়ালা, আল্লাহওয়ালী হওয়া ফরয। আল্লাহওয়ালা হওয়ার জন্য পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের ইলিম অর্জন করতে হয়। এ সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের দোয়া শিক্ষা দিয়েছেন যে, ‘আয় মহান আল্লাহ