সৈয়দ আবেদ উল্লাহ ( অপূর্ব ) -blog


Only Ahle Sunnat Waal Jamaat Is The Right Way.....


 


পবিত্র শবে বরাত শরীফ উনার একটি খাছ আমল ‘ছলাতুত তাসবীহ’ নামায!


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, একদা মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আমার পিতা হযরত আব্বাস আলাইহিস সালাম উনাকে বললেন, “হে আমার চাচা



শবে বরাতের ২ রাকায়াত নামায বনী ইসরাইলের এক বুযূর্গ ব্যক্তির পাথরের ভিতরে থেকে চারশত বছরের ইবাদতের চেয়ে উত্তম।’ সুবহানাল্লাহ!


শবে বরাতের ২ রাকায়াত নামায বনী ইসরাইলের এক বুযূর্গ ব্যক্তির পাথরের ভিতরে থেকে চারশত বছরের ইবাদতের চেয়ে উত্তম।’ সুবহানাল্লাহ! শবে বরাতের নামাযের ফযীলত সম্পর্কে ‘তাফসীরে রুহুল মায়ানীতে’ উল্লেখ করা হয়েছে যে, ‘যে ব্যক্তি শবে বরাতের নামায আদায় করবে সে ব্যক্তি ২০টি



সম্মানিত শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে- পহেলা বৈশাখ পালন জঘন্যতম শিরক!


যে বদ আমলের দ্বারা খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার আনুগত্য ও সন্তুষ্টি মুবারক লাভ করার পরিবর্তে পাপ অর্জিত হয় সে বদ আমলের মধ্যে শিরিক হচ্ছে সবচাইতে ভয়াবহ জঘন্যতম। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে যা হযরত আব্দুল্লাহ ইবনু



কুকুর যখন উলঙ্গ থাকে, তখন আরেকটি কুকুর কখনো মনে করে না যে এটা অশ্লীলতা!


কুকুর যখন উলঙ্গ থাকে, তখন আরেকটি কুকুর কখনো মনে করে না যে এটা অশ্লীলতা। কারন সে নিজেই উলঙ্গ। আবার কুকুর যখন প্রকাশ্যে সহবাস করে, তখনো আরেকটি কুকুর মনে করে না, এটা অশ্লীলতা। কারন কুকুরের বিবেক নাই, কুকুরের মনুষ্যত্ব নাই। তেমনি মানুষের



শরীয়ত অনুযায়ী মূর্তি, ভাস্কর্য তৈরি করা, স্থাপন হারাম। সুতরাং সকল মূর্তি ভাস্কর্য অপসারণ করতে হবে!


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “তোমরা মূর্তি সমূহের অপবিত্রতা, নাপাকি থেকে বেঁচে থাকো।” (পবিত্র সূরা হজ্ব শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ৩০) পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- “যারা প্রাণীর মূর্তি তৈরি করবে ক্বিয়ামতের দিন তাদের কঠিন



সম্মানিত শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে বাইয়াত হওয়া ফরয। যারা বলে বাইয়াত হওয়া বিষয়ে শরীয়তে কোন নির্দেশনা নেই তারা অজ্ঞ ও


মহান আল্লাহ পাক সুবহানাহূ ওয়া তায়ালা তিনি ইরশাদ মুবারক করেন: “তোমরা সকলেই আল্লাহওয়ালা-আল্লাহওয়ালী হয়ে যাও।” (পবিত্র সূরা আলে ইমরান শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ৭৯) মহান আল্লাহ পাক তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন: “যদি তারা মু’মিন হয়ে থাকে তবে তাদের দায়িত্ব ও



বাংলাদেশে পয়লা বৈশাখ অপসংস্কৃতি লালন-পালনের নেপথ্যে যারা


১৯৫১ সালে ওয়ারীর ৭নং হেয়ার স্ট্রিটে তথাকথিত লেখক, শিল্পী, সাংবাদিক, অধ্যাপক, মিলে “লেখক শিল্পী মজলিস” নামে একটি সংগঠন করে রেলওয়ের মাহবুব আলী ইনস্টিটিউটে এদেশে প্রথম পহেলা বৈশাখ অনুষ্ঠান করে। তবে তার আগে এরাই কার্জন হলে নববর্ষ উপলক্ষে গানের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।



মানুষের নফস সাফল্যের পথে একটি বাধা!


মানুষ সাধারণত নিজের দোষ-ত্রুটি লুকিয়ে রাখে এবং অন্যের দোষ খুঁজে বেড়ায়। বিষয়টি ফিকিরের। মানুষ যদি এই পক্ষপাতদুষ্ট আচরণের কারণ বুঝতে পারে, তাহলে সম্ভবত চেষ্টা করে এই ত্রুটি থেকে মুক্তি পেতে পারে। মানুষ আসলে নিজকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসে। এই মুহব্বতই মানুষের নিজের



বর্তমান কুফরী শিক্ষানীতি পরিবর্তনে সরকারকে বাধ্য করতে হবে!


রাশিয়ায় কমুনিস্টরা ক্ষমতা দখল করেই প্রথম যে কাজটি করেছিলো সেটি ছিলো- সম্পূর্ণ শিক্ষাব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন। কমুনিস্টরা নতুন শিক্ষাব্যবস্থা তৈরি করা পর্যন্ত বেশ কয়েকবছর তাদের সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে বন্ধ রাখে। এরপর তারা কমুনিজমকে শিক্ষার মূল পাঠ্য করে সেভাবেই পাঠ্যপুস্তকগুলো রচনা করে। কমুনিজমকে বাধ্যতামূলক



একটি ঐতিহাসিক ঘটনা: যারা হীনম্মনায় ভোগে, সে সকল মুসলমানদের জন্য!


সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার খিলাফত মুবারক পরিচালনাকালে তিনি হযরত যায়ীদ বিন আমের আল জুমাহী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাকে হিমসের গভর্নর করে পাঠালেন। সাইয়্যিদুনা হযরত ফারূক্বে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি কিছুদিন পর হিমসের সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণের জন্য হিমসে গেলেন।



সবার রিযিকের মালিক মহান আল্লাহ পাক তিনি; এটা সম্পূর্ণ কুদরতী বিষয়!


وَمَا مِن دَابَّةٍ فِي الْأَرْضِ إِلَّا عَلَى اللَّـهِ رِزْقُهَا অর্থ: “যমীনে যত প্রাণী আছে সবার রিযিকের মালিক মহান আল্লাহ পাক তিনি।” (পবিত্র সূরা হুদ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ-৬ ) হযরত সুলাইমান আলাইহিস সালাম তিনি একবার বললেন, মহান আল্লাহ পাক আমি সমস্ত



চাঁদ দেখা ও আরবী মাসের তারিখ ঘোষণা নিয়ে ষড়যন্ত্রের নেপথ্য কথা!


পবিত্র হাদীছ শরীফ মুতাবিক প্রতি মাসেই ২৯তম দিন শেষে আকাশে খালি চোখে চাঁদ দেখে মাস শুরু করতে হয়। কিন্তু অনেক নামধারী মুসলিম দেশ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার অনুসরণ না করে মনগড়াভাবে চাঁদের তারিখ ঘোষণা করছে। গভীরভাবে তলিয়ে দেখার পর জানা গেল-