শাহ্‌ সাইয়্যিদ মুহম্মদ আব্দুল্লাহ বিন হামিদ (অপূর্ব) -blog


Only Ahle Sunnat Waal Jamaat Is The Right Way.....


 


পুজিবাদী অর্থ ব্যবস্থায় চলছে দেশ। কোটিপতির সংখ্যা এখন লাখেরও বেশি। অধিকাংশরাই কর ফাঁকি দিচ্ছে। অথচ যাকাতদানের চেতনা তৈরি করলে


সুষম বণ্টন, স্বতঃস্ফুর্ত সমৃদ্ধির উচ্চাশা নিয়েই যাত্রা হয়েছিল স্বাধীনতা-উত্তর উন্নয়ন পরিকল্পনার। তবে উন্নয়ন ব্যবস্থাপনার ত্রুটির কারণে সাম্প্রতিক দশকগুলোয় সামাজিক অসমতা ও বৈষম্য যে পর্যায়ে পৌঁছেছে, তাতে ব্রিটিশ ঔপনেসিক আমলের শোষণ-লুণ্ঠন অর্থনীতিরই যেন পুনরুজ্জীবন ঘটছে। সমাজের বিরাট এক অংশ এখনো ক্ষুধার জ্বালা



দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের নেপথ্যে পাহাড়ি উপজাতি গোষ্ঠী


রাঙ্গামাটিতে বিছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী সংগঠন ইউপিডিএফ-এর সন্ত্রাসী কর্মী রোমেল চাকমার মৃত্যু নিয়ে আবারো উপজাতি সন্ত্রাসীগোষ্ঠি এবং তাদের দালালরা দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে এ প্রচার যুদ্ধ নতুন নয়। ১/১১-পর এই প্রচারণা নতুন মাত্রা পেয়েছে। ইন্টারনেটসহ সব



‘সামরিক বাজেটে ধ্বংস হয়ে যাবে আমেরিকার অর্থনীতি’


মার্কিন কংগ্রেসের সাবেক সদস্য রন পল দেশটির সামরিক ব্যয়কে ‘বিনাশের পথ’ বলে উল্লেখ করে বলেছে, এতে আমেরিকার অর্থনীতি ধ্বংস হয়ে যাবে। নিজ ওয়েবসাইটে প্রকাশিত নিবন্ধে এ মন্তব্য করে পল। সে বলেছে, “পেন্টাগনের সামরিক ব্যয়ের পরিকল্পনা আমেরিকাকে দেশের ভেতর নিজ অর্থনীতি ধ্বংসের



একটি নছীহতপূর্ণ ঘটনা এবং কিছু শিক্ষা


একদা বৃষ্টিসিক্ত দিনে ইমামুশ শরীয়ত ওয়াত তরীক্বত হযরত হাসান বসরী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি রাস্তা দিয়ে কোথাও যাচ্ছিলেন। বিপরীত দিক থেকে একজন ছেলে আসছিলেন। ছেলেটি কিছুটা এলোমেলোভাবে হাঁটছিলেন। যেহেতু রাস্তা পিচ্ছিল ছিল তাই হযরত হাসান বছরী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি ছেলেটিকে সাবধানে হাঁটতে



বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ভারতের ইতিহাস, লুটপাটের ইতিহাস


স্বাধীনতার পর ভারতীয় সুযোগসন্ধানী বাহিনী ৩ ডিসেম্বর ১৯৭১ থেকে মার্চ ১৯৭২ পর্যন্ত সময় বাংলাদেশে অবস্থান করে। এই সময়ে কি পরিমাণ লুটপাট তারা করে তা বর্ণনাতীত।তাদের লুটপাট মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারণ মানুষদেরকে হতবাক করে দেয়। ২১শে জানুয়ারি ১৯৭২ সালে ব্রিটেনের বিখ্যাত গার্ডিয়ান পত্রিকায়



চেতনাজীবি জাফর ইকবালের রাজাকারনামা (১)


জাফর ইকবালকে অনেকে জানে সাহিত্যিক হিসেবে, অনেকে চিনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাজীবি হিসেবে। কিন্তু তার এই চেতনাবাজির আড়ালের রূপ তথা ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়কালে তার অবস্থান, তার ভূমিকা কি ছিলো সেটা অনেকেরই অজানা ছিলো। কিন্তু সম্প্রতি তার অতি উৎসাহী তথা উতলে



বিদেশ থেকে নিম্নমানের ট্রেন কোচ কিনতে কোচপ্রতি ৭ কোটি টাকা খরচ হলেও দেশীয় প্রযুক্তিতে এই কোচ তৈরী সম্ভব মাত্র


সমস্ত প্রশংসা মুবারক খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য; যিনি সকল সার্বভৌম ক্ষমতার মালিক। সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নবী আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবী, রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি



বিদেশে গিয়ে নির্যাতন, নিপীড়ন ও দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে নারী শ্রমিকরা। রেমিটেন্স বৃদ্ধির নামে দেশের নারীদের অশ্লীলতা ও লালসার পাত্র


সব প্রশংসা মুবারক খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য; যিনি সব সার্বভৌম ক্ষমতার মালিক। সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, হযরত নবী আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবী, হযরত রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম



দ্বীন ইসলাম উনার খাতিরে করলে ‘অস্বাভাবিক অলৌকিক’, বিপরীতে দুনিয়ার খাতিরে করলে ‘বেজায় স্বাভাবিক’!


গাউছুল আ’যম হযরত বড়পীর ছাহিব রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার সম্মানিত পিতা হযরত মূসা জঙ্গী দোস্ত রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি কি প্রকার ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত ছিলেন একটি আপেল ফলের ঋণ শোধের জন্য, বিষয়টি সবাই জানেন। উনার সম্মানিত শ্বশুর হযরত আবদুল্লাহ সাওমাই রহমতুল্লাহি আলাইহি



বাংলা নামের উৎপত্তি !


হযরত নূহ আলাইহিস সালাম উনার আমলে মহাপ্লাবন, কুরআন শরীফসহ সকল ধর্মগ্রন্থে স্বীকৃত। মহাপ্লাবনের পর হযরত নূহ আলাইহিস সালাম , উনার স্ত্রী, সন্তানসহ ৮০ জন নর-নারী আল্লাহপাক উনার হুকুমে পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে বংশ বৃদ্ধিতে নিয়োজিত থাকেন। হযরত নূহ আলাইহিস সালাম উনার পরবর্তী



” দ্বীনি জ্ঞানশূন্য একজন চিকিৎসকের দ্বীনি বিষয়ে ফতওয়া দেয়া অনধিকার চর্চা, যা জিহালতির শামিল “


একজন সাধারণ ধার্মিক মুসলমান জানে যে, সাধারণত সূর্য উদয় থেকে অস্ত পর্যন্ত পানাহার ও নির্জনবাস থেকে বিরত থাকাকে ছিয়াম বা রোযা বলে। কেউ যদি মুখ গহ্বর ছাড়া অন্য পথে শরীরে খাদ্য, খাদ্য উপাদান বা পানীয় প্রবেশ করায় তাহলে তার রোযা ভঙ্গ



সবাই সুখী হতে চায়, কিন্তু জানে না সুখ কোথা রয়


মাত্র দুটি অক্ষর কিন্তু এর ব্যাপ্তি অনেক বেশি। এই পৃথিবীতে সবাই সুখী হতে চায় কিন্তু জানে না সুখের পায়রাটা কোথায়? সুখ হৃদয়ের একটি অনুভূতি। ছূফীরা যাকে বলে ‘তাতমাইনুল ক্বুলুব’- হৃদয়ের প্রশান্তি। মানুষের হৃদয় বেশি সময় এটা ধরে রাখতে পারে না। অশান্ত