সকাল>বিকাল -blog


...


 


যারা নিজেদের মু’মিন দাবি করেন তাদের করণীয়…


যে বা যাঁরা নিজেদেরকে মু’মিন বলে দাবি করে থাকে, নিজেদেরকে মু’মিন বলে পরিচয় দিয়ে থাকে, তাদের করণীয় কাজ হচ্ছে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরকে সন্তুষ্ট করা।



খেলাধূলা বর্জন করবেন কেন?


১. পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার দৃষ্টিতে সকল প্রকার খেলা হারাম। ২. হারাম কাজে খুশি প্রকাশ করা কুফরী। অথচ খেলাধূলা প্রতিযোগিতায় তা করা হয়। ৩. খেলাধুলাকে সমর্থন করা হারাম ও কুফরী। ৪. খেলা পুরোপুরিভাবে দ্বীন ইসলামী তাহযীব-তামাদ্দুন বিরোধী। ৫. খেলাধূলা মহান আল্লাহ



পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনে সীমাহীন ফযীলত, বুযুর্গী, সম্মান হাছিল


বর্ণিত রয়েছে, খলীফা হারুনুর রশীদের খিলাফতকালে বছরা শহরে এক যুবক ছিল। সে নিজের নফসের প্রতি যুলুমকারী ছিল অর্থাৎ সে নানা পাপাচারে লিপ্ত ছিল। তার অপকর্মের কারণে শহরবাসীর চোখে সে ঘৃণিত ও সমালোচিত ছিল। তবে তার একটা উত্তম আমল হচ্ছে যখন সম্মানিত



সম্মানিত ১২ শরীফ যে কারণে স্মরণীয় ও খুশি প্রকাশের দিন


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার সম্মানিত হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে সবচেয়ে মর্যাদা ও শ্রেষ্ঠত্বের অধিকারী করে সৃষ্টি করেছেন। শুধু তাই নয়, উনাকে এত অধিক মর্যাদা-মর্তবার অধিকারী করেছেন যে, উনার সাথে নিসবতযুক্ত



কুল-কায়িনাতের সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনের জন্য সারা বিশ্বের সকলে এখন প্রস্তুতি গ্রহণ করা কর্তব্য


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র সূরা ফাত্হ শরীফ উনার ৮-৯ নম্বর পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- “(হে আমার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) নিশ্চয়ই আমি আপনাকে সাক্ষী, সুসংবাদদাতা এবং সতর্ককারীরূপে পাঠিয়েছি; যেন (হে মানুষ!)



রোহিঙ্গাদের নিয়ে অপতৎপরতায় দুই এনজিও নিষিদ্ধ


আন্তর্জাতিক এনজিও আদ্রা ও আল মারকাজুল ইসলামীকে সারাদেশে নিষিদ্ধ করেছে এনজিও ব্যুরো। গত ২৫ আগস্ট কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের মহাসমাবেশে আর্থিক সহায়তা এবং প্রত্যাবাসনবিরোধী প্রচারণার দায়ে এই এনজিও দুটিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে এই দুই এনজিও’র ব্যাংকের সব লেনদেন বন্ধ রাখার কথাও



সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল উমাম আলাইহাস সালাম উনার নিসবত হাছিল ব্যতীত উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত আন নূরুর রবি‘য়াহ যাহরা আলাইহাস


মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক উনার রহমত রয়েছে উনার মুহসিন বান্দা উনাদের নিকটে।” অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া



পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র হাদীছ শরীফ থেকে বাল্যবিবাহের স্পষ্ট দলীল


পবিত্র সূরা নিসা শরীফ উনার ৩নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ মুবারক করেন, وَإِنْ خِفْتُمْ أَلَّا تُقْسِطُوا فِي الْيَتَامَىٰ فَانكِحُوا مَا طَابَ لَكُم مِّنَ النِّسَاءِ مَثْنَىٰ وَثُلَاثَ وَرُبَاعَ অর্থ: “আর যদি তোমরা ভয় কর যে, ইয়াতীম মেয়েদের



মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মহাসম্মানিত শান মুবারকসমূহ অত্যন্ত সূক্ষ্ম থেকেও সূক্ষ্মতর


আরবী ক্বাওয়ায়িদ বা ব্যাকরণ অনুযায়ীاَهْلُ بَيْتٍ (আহলু বাইত) মুরাক্কাবে ইদ্বাফী হয়েছে। অর্থাৎ اَهْلُ (আহাল) শব্দ মুবারকখানা হচ্ছেন মুদ্বাফ আর بَيْتٍ (বাইত) শব্দ মুবারকখানা হচ্ছেন মুদ্বাফ ইলাইহ। اَهْلُ (আহাল) শব্দ মুবারক উনার অর্থ মুবারক হচ্ছেন অধিবাসী, পরিবার-পরিজন, লোকজন, বাসিন্দা, সদস্য, আত্মীয়-স্বজন ইত্যাদি।



মুসলিম বিজ্ঞানী-মনীষীদের স্মরণ করে অনেকেই আফসোস করে। কিন্তু মুসলিম মনীষীদের যাঁরা তৈরি করেছিলেন, সেই হক্কানী পীর-মুর্শিদগণ উনাদের নিকট যাওয়া


বর্তমানে গোটা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহ এক চরম হতাশার মধ্যে দিনাতিপাত করছে। যারা ইতিহাস সচেতন, তারা অতীতের মুসলিম বিজ্ঞানী-কবি সাহিত্যিকদের ইতিহাস স্মরণ করে আফসোস করে। তারা আফসোস করে এই ভেবে যে, আগে আমাদের সবই ছিল, কিন্তু এখন আমাদের কিছুই নেই। কিন্তু কেন



আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত মুবারক মুসলমানদের জন্য ফরযে আইন


মহান আল্লাহ পাক তিনি হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সম্পর্কে ইরশাদ মুবারক করেন- قُل لَّا اَسْأَلُكُمْ عَلَيْهِ اَجْرً‌ا اِلَّا الْمَوَدَّةَ فِي الْقُرْ‌بٰى অর্থ: “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি (উম্মতদেরকে) বলুন, আমি তোমাদের নিকট কোন বিনিময় চাই



আসাদুল্লাহিল গালিব সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার আত্মত্যাগের বিরল দৃষ্টান্ত


ইমামুল আউয়াল সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি পবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের অন্যতম। কুরাঈশ বংশের হাশেমী শাখায় তিনি বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। পিতৃকুল ও মাতৃকুল উভয় দিক থেকে তিনি কুরাঈশ বংশোদ্ভূত। সবচেয়ে বিশুদ্ধ ও গ্রহণযোগ্য