সকাল>বিকাল -blog


...


 


দায়েমী যিকির-আযকারের ফাযায়িল-ফযীলত!


দায়েমী যিকির-আযকারের ফাযায়িল-ফযীলত! মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- فَاذْكُرُوا اللَّـهَ قِيَامًا وَقُعُودًا وَعَلَىٰ جُنُوبِكُمْ অর্থ: তোমরা দাঁড়ানো, বসা, শোয়া সর্ববস্থায় মহান আল্লাহ পাক উনার যিকির করো। (পবিত্র সূরা নিসা শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ১০৩) এখন আমরা দাঁড়িয়ে, বসে শুয়ে



সর্বপ্রকার নেক কাজে তিনিই ছিলেন অগ্রগামী!


সর্বপ্রকার নেক কাজে তিনিই ছিলেন অগ্রগামী! আমীরুল মু’মিনীন হযরত ফারূকে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি বলেন, একবার নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আমাদেরকে মহান আল্লাহ পাক উনার রাস্তায় দান-ছদকা করার জন্য নির্দেশ করলেন। সে সময় আমার পর্যাপ্ত



হযরত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনারা সকল সচ্ছলতার মালিক- একটি আকলী দলিল


একদিন হযরত রাবেয়া বসরী রহমতুল্লাহি আলাইহা উনার কাছে দু’জন দরবেশ এলেন। মেহমানদারী করারও প্রয়োজন কিন্তু ঘরে ছিল মাত্র ২টা রুটি। তিনি দু’জন দরবেশকে তা পরিবেশনও করলেন। উনারা যখন খাদ্য গ্রহণ করতে যাবেন, তখন একজন সুওয়ালকারী বা ভিক্ষুক এলো। তিনি দরবেশ উনাদের



কে প্রকৃত বুদ্ধিমান…?


কে কত বেশি টাকা কামাই করতে পারলো, কত বড় বাড়ি বানাতে পারলো, বিতর্কে জয়ী হতে পারলো- এদেরকেই আমরা বেশি বুদ্ধিমান, জ্ঞানী বলে মনে করি। কিন্তু আসলে কে প্রকৃত বুদ্ধিমান- এ বিষয়ে যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক



প্রকৃত মু’মিন উনাদের বৈশিষ্ট কী?


আমরা প্রত্যেকেই মুসলমান। একজন মুসলমানের জন্য দায়িত্ব-কর্তব্য হচ্ছে মহান আল্লাহ পাক উনার এবং উনার হাবীব নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের আদেশ -নিষেধ মুবারক মানা। উনাদের আদেশ-নিষেধ মুবারক মানা প্রত্যেক বান্দা-বান্দীর জন্য ফরয ও ওয়াজিব। মহান আল্লাহ



যারা নিজেদের মু’মিন দাবি করেন তাদের করণীয়…


যে বা যাঁরা নিজেদেরকে মু’মিন বলে দাবি করে থাকে, নিজেদেরকে মু’মিন বলে পরিচয় দিয়ে থাকে, তাদের করণীয় কাজ হচ্ছে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদেরকে সন্তুষ্ট করা।



খেলাধূলা বর্জন করবেন কেন?


১. পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার দৃষ্টিতে সকল প্রকার খেলা হারাম। ২. হারাম কাজে খুশি প্রকাশ করা কুফরী। অথচ খেলাধূলা প্রতিযোগিতায় তা করা হয়। ৩. খেলাধুলাকে সমর্থন করা হারাম ও কুফরী। ৪. খেলা পুরোপুরিভাবে দ্বীন ইসলামী তাহযীব-তামাদ্দুন বিরোধী। ৫. খেলাধূলা মহান আল্লাহ



পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনে সীমাহীন ফযীলত, বুযুর্গী, সম্মান হাছিল


বর্ণিত রয়েছে, খলীফা হারুনুর রশীদের খিলাফতকালে বছরা শহরে এক যুবক ছিল। সে নিজের নফসের প্রতি যুলুমকারী ছিল অর্থাৎ সে নানা পাপাচারে লিপ্ত ছিল। তার অপকর্মের কারণে শহরবাসীর চোখে সে ঘৃণিত ও সমালোচিত ছিল। তবে তার একটা উত্তম আমল হচ্ছে যখন সম্মানিত



সম্মানিত ১২ শরীফ যে কারণে স্মরণীয় ও খুশি প্রকাশের দিন


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার সম্মানিত হাবীব নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে সবচেয়ে মর্যাদা ও শ্রেষ্ঠত্বের অধিকারী করে সৃষ্টি করেছেন। শুধু তাই নয়, উনাকে এত অধিক মর্যাদা-মর্তবার অধিকারী করেছেন যে, উনার সাথে নিসবতযুক্ত



কুল-কায়িনাতের সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনের জন্য সারা বিশ্বের সকলে এখন প্রস্তুতি গ্রহণ করা কর্তব্য


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র সূরা ফাত্হ শরীফ উনার ৮-৯ নম্বর পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- “(হে আমার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) নিশ্চয়ই আমি আপনাকে সাক্ষী, সুসংবাদদাতা এবং সতর্ককারীরূপে পাঠিয়েছি; যেন (হে মানুষ!)



রোহিঙ্গাদের নিয়ে অপতৎপরতায় দুই এনজিও নিষিদ্ধ


আন্তর্জাতিক এনজিও আদ্রা ও আল মারকাজুল ইসলামীকে সারাদেশে নিষিদ্ধ করেছে এনজিও ব্যুরো। গত ২৫ আগস্ট কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের মহাসমাবেশে আর্থিক সহায়তা এবং প্রত্যাবাসনবিরোধী প্রচারণার দায়ে এই এনজিও দুটিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে এই দুই এনজিও’র ব্যাংকের সব লেনদেন বন্ধ রাখার কথাও



সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল উমাম আলাইহাস সালাম উনার নিসবত হাছিল ব্যতীত উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত আন নূরুর রবি‘য়াহ যাহরা আলাইহাস


মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক উনার রহমত রয়েছে উনার মুহসিন বান্দা উনাদের নিকটে।” অর্থাৎ মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া