সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

হাসনাত -blog


...


 


বিদয়াত-শিরকের ফতুয়া কই? ৫ই মে’র ‘শহীদ দিবস’ আর বেগানা মহিলার ‘শুকরিয়া মাহফিল’


ধর্মব্যবসায়ীরা সারাজীবন বলে এসেছে, আল্লাহ ছাড়া আর কারও শুকরিয়া করা শিরক, বেদয়াত। কিন্তু মহান আল্লাহপাক উনার কুদরত- এখন সেই ধর্মব্যবসায়ীরাই জনগণের সামনে খোলা ময়দানে ফাসেক-ফুজ্জার, দুনিয়াদার ও বেগানা মহিলাদের ‘শুকরিয়া’ আদায় করছে। নাউযুবিল্লাহ! ধর্মব্যবসায়ীদের একটি বড় অংশ হলো কওমী, দেওবন্দী, খারেজীরা।



বিদয়াতীরা পবিত্র মসজিদ উনাকে নাট্যশালা বানাতে চায়, নাউযুবিল্লাহ!


বিগত বেশ কয়েক বছর যাবৎ দেশে বিদেশের বিভিন্ন মসজিদে পবিত্র নামায উনার কাতারে কাতারে বিভিন্ন স্টাইলের চেয়ার টেবিল বসিয়ে নামায পড়া শুরু করেছে কতিপয় দুনিয়াদার মুসল্লী নামধারী, যাদের আর্থিক মদদে ধর্মব্যবসায়ী বিদয়াতীরা লালিত পালিত হয়। জানা গেছে, এই বিদয়াতী অপকর্ম সর্বপ্রথম



প্রশাসনের মধ্যে ইসলামবিদ্বেষীদের অনুপ্রবেশ সরকারের জন্য বুমেরাং হবে


সম্প্রতি কিছু ইসলামবিদ্বেষীদের নড়াচড়া লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিদেশী এজেন্ট গণমাধ্যম আর কিছু গ্রন্থ প্রকাশনা সংস্থার উপর ভর করে এসব অবাঞ্চিত মহল এদেশে নাস্তিক্যবাদ, সমকামিতা, নারী স্বাধীনতা আর প্রগতিশীলতার নামে বেপরোয়াভাবে ইসলামবিদ্বেষমূলক কর্মযজ্ঞ চালিয়ে যাচ্ছে। এরা মুসলমান সমাজে বাস করে, মুসলমানদেরটা খেয়ে-পরে



হালাল ও হারাম উভয়ের গুরুত্ব: গইরুল্লাহর মুহতাজ হওয়া হারাম


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি হচ্ছেন এক ও অদ্বিতীয়। তিনি সব বিষয়ে ক্ষমতাবান। সবকিছুই উনার করায়ত্তে। তিনি কারো মুহতাজ নন। বরং কুল-কায়িনাতের সবাই হচ্ছে উনার মুহতাজ। তাই সকল মাখলূক্বাতের জন্য বিশেষ করে জিন-ইনসানের জন্য ফরয-ওয়াজিব হচ্ছে- খালিক্ব মালিক রব



সকলেই ইসরায়েলী ও ভারতীয় পণ্য বর্জন করুন


ইজরায়েলের বিরুদ্ধে সারাবিশ্ব জুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। আমাদের দেশেও নানা স্তর থেকে সবাই এক হয়ে প্রতিবাদ করেছে। মানববন্ধন হয়েছে। এই প্রতিবাদের সাথে চলছে ইজরায়েলি পণ্য বর্জন এবং এই পণ্য বর্জনের লিস্টটাও নেহাত ছোট নয়। লিস্ট: 1. Coca cola + Pepsi 2.



আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার কর্তৃক সম্মানিত উহুদ যুদ্ধ মুবারক-এ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক


তৃতীয় হিজরী সনে সম্মানিত উহুদ জিহাদ মুবারক সংঘটিত হয়। এই সম্মানিত জিহাদ মুবারক-এ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার একখানা সম্মানিত দান্দান মুবারক শহীদ হন। ‘মুসনাদে আহমদ শরীফ’ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, عَنْ أَنَسٍ أَنَّ رَسُولَ اللهِ



সাইয়্যিদাতুন নিসা আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার কতিপয় ছিফতী নাম মুবারক


আরবী মাসসমূহের ষষ্ঠ মাস হচ্ছে “জুমাদাল উখরা।” ‘জুমাদা’ শব্দটি মুয়ান্নাছ (স্ত্রী লিঙ্গ) তার অর্থ ‘জমাট পানি’ বা ‘বরফ।’ সে হিসেবে তার পরে “উখরা” শব্দটিও ‘আখির’ শব্দ থেকে মুয়ান্নাছ এবং উনার অর্থ শেষ। বিশুদ্ধ মতে, আনুষ্ঠানিক নুবুওওয়াত প্রকাশের প্রায় তিন বৎসর পূর্বে



কুকুর মরলে দুঃখ পাবো, কাফির মরলে নয়


একদিন বিকেলে, রাস্তা দিয়ে হাঁটার সময়ে রাস্তার মাঝখানে প্রায় দশ-বারোটি কুকুরছানা আমার চোখে পড়লো। ছানাগুলো একটি মাদী কুকুরকে ঘিরে কাড়াকাড়ি করে দুধ খাচ্ছে। একেকটি ছানার দুধ খাওয়া শেষ হচ্ছে, আর সেই ছানাটি এগিয়ে গিয়ে মাদী কুকুরটির মুখ চেটে দিচ্ছে। দৃশ্যটি দেখে



সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত নিবরসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম উনাকে মুহব্বত করার


সম্মানিত ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, عَنْ حَضْرَتْ أَبِىْ هُرَيْرَةَ رَضِىَ اللهُ تَعَالى عَنْهُ قَالَ قَالَ رَسُوْلُ اللهَ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ خَيْرُكُمْ خَيْرُكُمْ لِأَهْلَىْ مِنْ بَعْدِىْ. অর্থ: “হযরত আবূ হুরায়রা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত,



কোনো রোগই সংক্রামক বা ছোঁয়াচে নয়, তবে ইচ্ছা না হলে কোনো বিশেষ রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে খাওয়া-দাওয়া ও এক


কোনো রোগকে সংক্রামক বা ছোঁয়াচে মনে করা যাবে না। প্রথম ব্যক্তি যেভাবে আক্রান্ত হয় অপরাপর লোকেরাও সেভাবেই আক্রান্ত হয়ে থাকে। সম্মানিত দ্বীনি ইলম উনার অভাবে এবং বেদ্বীন-বদ্বীনদের সাথে মেলামেশার কারণে এই জল্পনা-কল্পনা ও বদ ধারণাগুলো সমাজে ছড়িয়ে পড়েছে। একই কারণে সম্মানিত



সাইয়্যিদুনা হযরত সাইয়্যিদুল উমাম আলাইহিস সালাম তিনি হচ্ছেন সমস্ত কায়িনাতবাসীর জন্য নিরাপত্তাদানকারী


সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, عَنْ حَضْرَتْ عَلِـىٍّ عَلَيْهِ السَّلَامُ قَالَ قَالَ رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ النُّجُوْمُ اَمَانٌ لِّاَهْلِ السَّمَاءِ اِذَا ذَهَبَتِ النُّجُوْمُ ذَهَبَ اَهْلُ السَّمَاءِ وَاَهْلُ بَيْتِـىْ اَمَانٌ لِّاَهْلِ الْاَرْضِ فَاِذَا ذَهَبَ اَهْلُ بَيْـتِـىْ ذَهَبَ



৯৮% মুসলমানের সামর্থ্যহীন গরিবদের পবিত্র কুরবানী করতে সরকারীভাবে অর্থ সাহায্য দেয়া হোক?


১.৫ ভাগ হিন্দুরা যাতে ঘটা করে দুর্গাপূজা পালন করতে পারে সেজন্য ধনী-গরিব প্রত্যেক হিন্দুকে মুসলমানের খাজাঞ্চীখানা থেকে পর্যাপ্ত সরকারি অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয় (!), যা দিয়ে নুন আনতে পানতা ফুরানো হিন্দুরা পর্যন্ত ৩-৪টা করে পূজাম-প তৈরি করে এদেশে হিন্দুত্বের জয়গান করছে!