হুমায়ন কবির -blog


...


 


প্রত্যেক মুসলমান উনাদের জন্য ফরয হচ্ছে- কাফির-মুশরিকদের সর্বপ্রকার ষড়যন্ত্রের ব্যাপারে সজাগ ও সতর্ক থাকা এবং সম্মানিত শরয়ী পর্দা উনার


হিজাব বা পর্দা স্বয়ং মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারাই ফরয করেছেন। যেমন, পবিত্র কুরআন শরীফ উনার “পবিত্র সূরা নিসা শরীফ, পবিত্র সূরা নূর শরীফ ও পবিত্র সূরা আহযাব শরীফ”



বিধর্মী বিজাতীদের সাথে মিল তথা তাশাব্বুহ না রাখার জন্য পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার ইফতারী অন্যতম দলীল


আজকাল অনেকে বলে থাকে, সর্বক্ষেত্রে কি ইহুদী-নাছারাদের সাথে মিল না রেখে, তাল না মিলিয়ে চলা যাবে? নাউযুবিল্লাহ! অথচ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- “যে ব্যক্তি যে জাতি বা কওমের সাথে মিল-মুহব্বত রাখবে, ক্বিয়ামতের ময়দানে তার হাশর-নশর তাদের সাথেই



কার গুরুত্ব বেশি- কুরবানীর পশুর হাট, নাকি খেলার মাঠ স্টেডিয়াম?


অজুহাত- এমন একটি হাত- যে হাতকে ব্যবহার করে নিজের স্বার্থসিদ্ধির কাজ করে থাকে একটি বিশেষ শ্রেণী। যাদেরকে মানুষ কখনোই ভালো চোখে দেখে না, কারণ তাদের প্রতিটি কাজেই থাকে ছলচাতুরী আর প্রতারণা। দেশের মুসলমানগণও কুরবানী নিয়ে সরকারি কর্মকর্তাদের নানা অজুহাতকে ভালোভাবে গ্রহণ



‘ইহুদী নিধন’ অভিযোগে ক্ষুব্ধ পোল্যান্ড


দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ইহুদী নিধনে পোল্যান্ডের দায় ছিল, যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআই প্রধানের এমন অভিযোগের প্রতিক্রিয়ায় দেশটিতে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে সমন পাঠিয়েছে পোল্যান্ড। গত ইয়াওমুল আহাদ (রোববার) পোল্যান্ড পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা এ কথা জানিয়েছে। গেল সপ্তাহের প্রথম দিকে এফবিআই প্রধান জেমস কোমি ওয়াশিংটনে



নারী জাতির মুক্তি, মর্যাদা, শ্রেষ্ঠত্ব ও সভ্যতা শুধুমাত্র হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার সুমহান আদর্শ মুবারক অনুসরণের মধ্যেই নিহিত


তথাকথিত ইহুদী-নাছারাদের দ্বারা আত্মপ্রকাশকারী সংগঠন “নারীবাদী” “নারী মুক্তি” ইত্যাদি নামে অসভ্য বর্বর, চরিত্রহীন, বিশ্ব বিপর্যয় সৃষ্টিকারী নারী সংগঠন প্রকাশ পেয়েছে; মূলত তারা আরবের তৎকালীন আইয়ামে জাহিলী বংশধরেরই অনুচর। জাহিলী যুগের লোকেরা নারীদেরকে যেভাবে বেহায়া-বেলেল্লাপনায় অন্যায় অশ্লীল কাজে লেলিয়ে দিয়ে শুধুমাত্র ভোগ্য