ইহসান -blog


...


ইহসান
 


মাহে ছফর শরীফ উনার আইয়ামুল্লাহ শরীফসমূহ:


৩ ছফর শরীফ: নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আল হাদিয়াহ আশার আলাইহাস সালাম উনাদের নিসবাতুল আযীমাহ শরীফ দিবস। ৫ ছফর শরীফ: উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছানিয়াহ আশার আলাইহাস সালাম উনার



পবিত্র আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত মুবারক উনার ব্যাপারে ৪টি গুণের যে কোন একটি গুণ যাদের মধ্যে


এ প্রসঙ্গে পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- قَالَ النَّبِـىُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ “اَرْبَعَةٌ” اَنَا لَـهُمْ شَفِيْعٌ يَّوْمَ الْقِيَامَةِ. اَلْـمُكْرِمُ لِذُرِّيَّتِىْ، اَلْقَاضِىُ لَـهُمْ حَوَائِجَهُمْ، اَلسَّاعِىُ لَـهُمْ فِـىْ اُمُوْرِهِمْ عِنْدَ اِضْطِرَارِهِمْ اِلَيْهِ، اَلْـمُحِبُّ لَـهُمْ بِقَلْبِه وَلِسَانِه অর্থ : নূরে



আপনি জানেন কি?


(১) কোন্ দেশ সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার কথা বললেও অনুসরণ করে ইহুদী কাফিরদের? (২) কোন্ দেশ চাঁদ দেখে আরবী মাস শুরু করার কথা বললেও বাস্তবে আরবী মাস শুরু করে মনগড়া ভাবে? (৩) কোন্ দেশ সবসময় আগে চাঁদ দেখার মিথ্যা দাবি করে?



নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি মুহব্বত ও আনুগত্য প্রকাশের সবচেয়ে বড়


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালাম পাক উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক ফরমান, “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি লোকদেরকে বলে দিন যদি তারা মহান আল্লাহ পাক উনাকে মুহব্বত করে, তবে যেন আপনার আনুগত্য প্রদর্শন করে।” উল্লেখ্য,



স্বয়ং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নিজে এবং হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তা‘য়ালা আনহুম


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, دعا رسول الله صلى الله عليه وسلم لحضرت عمر بن الخطاب عليه السلام أو لابي جهل بن هشام فأصبح حضرت عمر عليه السلام وكانت الدعوة يوم الاربعاء، فأسلم حضرت عمر عليه السلام



ধর্মব্যবসায়ী কারা? কি তাদের পরিচয়?


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “আমার উম্মতের মধ্যে যারা উলামায়ে ‘সূ’ বা ধর্মব্যবসায়ী তারাই সৃষ্টির নিকৃষ্টেরও নিকৃষ্ট।” এ সম্পর্কিত পবিত্র ইলম অর্জন করা সকলের জন্যই ফরয। ধর্মব্যবসায়ীদেরকে না চিনার কারণেই সাধারণ মুসলমানরা তাদের ধোঁকায় পড়ে সম্মানিত ঈমান-আমল বিনষ্ট



বাঁচতে চাইলে খালিছ ইস্তিগফার-তওবা করুন


গণতন্ত্রের কারণে সরকারের নীতি নির্ধারণকারী, উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা-কর্মচারী থেকে শুরু করে নিম্ন শ্রেণীর কর্মকর্তা-কর্মচারী পর্যন্ত প্রায় সকলেই প্রতিযোগিতামূলকভাবে চুরি ডাকাতি, ছিনতাই, রাহজানী, খুনখারাবি ইত্যাদি অপরাধ অপকর্মে লিপ্ত। নাউযুবিল্লাহ! অপরাধ নিয়ন্ত্রণকারী সংগঠন, প্রশাসন ইত্যাদি কোন কাজই আসছে না। যাকে যে দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে



যাকাত না দেওয়ার কঠিন পরিণতি সম্পর্কে জানা আছে কি?


  মুসলমান উনাদের জন্য সম্মানিত যাকাত একটি ফরয ইবাদত। প্রত্যেক ছাহিবে নিসাব উনার জন্য বছরে একবার যাকাত দেয়া ফরয। যার উপর যাকাত ফরয তাকে যাকাত দিতেই হবে। এর থেকে ফিরে থাকার কোন উপায় নেই। এখন কেউ যদি যাকাত ফরয হওয়ার পরও



কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু আনহুম উনাদের ফযীলত


হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু আনহুম উনাদের ফজিলত সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক কালামুল্লাহ শরীফে অনেক আয়াত শরীফ বর্ননা করেছেন। কতিপয় আয়াত শরীফ উল্লেখ করা হলো- اولءك الذين امتحن الله قلوبهم. لهم مغفرة و اجر عظيم অর্থ: আল্লাহ পাক উনাদের অন্তর সমূহ তাক্বওয়ার



হাফাদাতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত আসবাত্ব


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত হযরত আওলাদ আলাইহিমুস সালাম উনারা মোট ৮ জন। উনাদের মধ্যে হযরত আবনা’ (ছেলে) আলাইহিমুস সালাম উনারা ৪ জন এবং হযরত বানাত (মেয়ে) আলাইহিন্নাস সালাম উনারা ৪ জন। হযরত আবনা’ আলাইহিমুস



অশুভ বা কুলক্ষণ বিশ্বাস করা কুফরী


ফক্বীহুল উম্মত হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার থেকে বর্ণনা করেন। মহান আল্লাহ পাক উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,



এই “কেন” এর জবাব কি?


কেন একজন ইহুদী, খ্রিস্টান কিংবা বিধর্মী দাড়ি রাখলে সে তার ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করছে বলা হয়। অথচ একজন মুসলমান একই কাজ করলে সে একজন চরমপন্থী এবং উগ্রপন্থী কিংবা মধ্যযুগীয় মনমানসিকতা সম্পন্ন লোক বলে সম্বোধন করা হয়! কেন একজন নান তার