সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

জহির রহমান -blog


লেখকের সম্পর্কে আর কি জানবেন! তার চেয়ে দুইটি গল্প শোনেন (এক) কমনওয়েলথের উদ্যোগে পুলিশের দক্ষতা পরীক্ষা হচ্ছে। পরীক্ষক সামনে একটি বন দেখিয়ে ইংল্যান্ডের পুলিশদের বললেন, এই বনে একটা কালো বিড়াল আছে। খুঁজে আন। খোঁজাখুঁজি শেষে ইংল্যান্ডের পুলিশ ফিরে এসে বলল, সরি স্যার, এই বনে কোনো কালো বিড়াল নেই। এবার ছুটল ভারতীয় পুলিশ। তারা সারা বন তোলপাড় করে, বনের একাংশে আগুন লাগিয়ে দিল। তারপর পুড়ে যাওয়া একটা প্রাণীর কঙ্কাল হাতে নিয়ে এলো, এই যে স্যার এটাই সেই কালো বিড়ালের কঙ্কাল। পরীক্ষক বলল, তোমরাও ফেল করলে। এবার বাংলাদেশের পুলিশের ডাক এলো, অতি দ্রুত বিজয়ের গর্বে স্ফীত হয়ে বাংলাদেশের পুলিশ বন থেকে বেরিয়ে এলো একটা ভালুককে বেঁধে ধুম পেটাতে পেটাতে। আর ভালুকটি প্রাণ ফাটা চিত্কার করে বলছে, স্যার আমি ভালুক না, আমি কালো বিড়াল, স্যার আমিই কালো বিড়াল। (দুই) বিধাতার কাছে গেছেন এক তালেবান কমান্ডার। বললেন, হে বিধাতা আমেরিকানরা কবে মানুষ হবে? বিধাতা ভেবেচিন্তে বললেন, আরও পঞ্চাশ বছর লাগবে? তালেবান কমান্ডার কাঁদতে কাঁদতে চলে গেলেন। কারণ, তিনি তার জীবদ্দশায় বিষয়টা দেখে যেতে পারবেন না। এবার গেলেন সোনিয়া গান্ধী, হিন্দু মৌলবাদীদের হাত থেকে ভারত রক্ষা পাবে কবে? বিধাতা অনেক ভেবেচিন্তে বললেন, আরও একশ’ বছর লাগবে। শুনে সোনিয়া কাঁদতে কাঁদতে চলে গেলেন, তিনিও তার জীবদ্দশায় এটা দেখে যেতে পারবেন না। এদের দেখাদেখি বাংলাদেশের এক কৃষকও বিধাতার সামনে গিয়ে হাজির। বলল—হে বিধাতা, আমাদের রাজনীতিবিদরা মানুষ হবে কবে? অনেক ভেবেচিন্তে ভেউ ভেউ করে কাঁদতে শুরু করলেন বিধাতা। কৃষক আশ্চর্য হয়ে বলল, আপনি কাঁদছেন? বিধাতা বলল, এরা যে কবে মানুষ হবে আমি জানি না। আমার জীবদ্দশায় বোধ করি দেখে যেতে পারব না।


জহির রহমান
 


কুল-কায়িনাতের সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উপলক্ষে গরিব ও ছিন্নমূল মানুষদেরকে খাদ্য ও বস্ত্র বিতরণের ব্যবস্থা করা হোক


পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম অর্থাৎ পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ সমস্ত ঈদের সেরা ঈদ। এই দিনে স্বয়ং মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি দুনিয়ার যমীনে তাশরীফ মুবারক আনেন। তাই



পবিত্র মুহররম শরীফ উনার শ্রেষ্ঠ দিন আশূরা


‘আশূরা’ শব্দটি আরবী ‘আশারুন’ শব্দ থেকে উদ্ভূত। যার অর্থ দশ (১০)। ইসলামী শরীয়ত উনার পরিভাষায় পবিত্র মুহররম শরীফ উনার দশ তারিখকে পবিত্র আশূরা শরীফ বলা হয়। পবিত্র মুহররম শরীফ উনার পূর্ণ মাসের মধ্যে দশ তারিখ তথা পবিত্র আশূরা শরীফ উনার দিনটি



পবিত্র কুরবানী উনার হালাল পশুর ৮টি অংশ না খাওয়া প্রসঙ্গে


পবিত্র কুরবানী উনার পশুর গোশত খাওয়া হালাল ও সুন্নত। তারপরও ওই পশুর ৮টি অংশ খাওয়া নিষেধ। আর তা হলো- (১) দমে মাছফুহা বা যবেহ করার সময় প্রবাহিত রক্ত হারাম। (২) অ-কোষ। (৩) মূত্রনালী (৪) পিত্ত (৫) লিঙ্গ (৬) গুহ্যদ্বার (৭) গদুদ



উম্মু আবীহা, আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত বরকতময় বিছালী শান মুবারক প্রকাশ, সম্মানিত গোসল


মহাসম্মানিত বরকতময় বিছালী শান মুবারক প্রকাশ: সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, উম্মু আবীহা, আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত বরকতময় বিছালী শান মুবারক প্রকাশের প্রায় ৬ মাস পর অর্থাৎ



পবিত্র কারবালা উনার হৃদয় বিদারক ঘটনার স্মরণ ও দুঃখ অনুভব করা হবে মু’মিনের নাজাতের কারণ


পবিত্র আশূরা মিনাল মুহররমুল হারাম শরীফ মুসলমানগণ উনাদের জীবনে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ রহমত, বরকত, সাকীনা ও মাগফিরাত মুবারক উনার মাস। চন্দ্র মাসের প্রথম মাস পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ এবং পবিত্র মাস উনাদের একটি। এ মাসের গুরুত্ব ও তাৎপর্য মুসলমানগণ আগে খুব একটা



হাসপাতালে ২২ ব্যক্তিকে হত্যা; মার্কিন কমান্ডারের ভুল স্বীকার


অবশেষে আফগানিস্তানের কুন্দুজ শহরের হাসপাতালে বিমান হামলা চালিয়ে ২২ জন নিরপরাধ মানুষকে হত্যার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে আমেরিকা। আফগানিস্তানে মোতায়েন বহুজাতিক বাহিনীর মার্কিন কমান্ডার জন ক্যাম্পবেল বলেছে- ভুল করে হাসপাতালে বিমান হামলা চালানো হয়েছে। ক্যাম্পবেল আরও দাবি করে, তারা কখনো ইচ্ছাকৃতভাবে



উপজাতিদের আপত্তি ও বাধা: ৩ বার স্থান নির্ধারণ করেও হয়নি রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ


  রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলায় মেডিকেল কলেজ স্থাপনের জন্য এ পর্যন্ত তিনবার স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু গুটিকতক উপজাতি পাহাড়িদের আপত্তির মুখে তা বাতিল করা হয়েছে। চতুর্থ দফায় জমি দেখা হলেও তা নিয়েও কিছু সংখ্যক উপজাতি পাহাড়িরা বিভিন্ন রকম ওজর আপত্তি পেশ



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার শান মুবারকে ব্যবহৃত কতক সম্মানিত পরিভাষা


সাইয়্যিদুল আম্বিয়া ওয়াল মুরসালীন, রহমাতুল্লিল আলামীন, খাতামুন নাবিয়্যীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন নূরুম মুজাসসাম অর্থাৎ আপাদমস্তক নূর। যার কারণে উনার সবকিছু বিষয়েই উম্মতের থেকে আলাদা। যেমন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া



সেদিন…


সেদিন যখন বিষন্ন মনে দাঁড়িয়ে ছিলাম একা বট বৃক্ষের ছায়… হেটে এল পায়… দিয়েছিলে দেখা।



তিন লাইন্যা তিনটি কবুতা


১# যদি তুই জানিস শুধু ভালবাসিতে তবে হবি তুই বিশ্বজয়ী এই ধরাতে।



সকল লোকের তরে


এই চরাচর হোক নিরাপদ সকল লোকের তরে; এই ধরণী সুন্দর হোক পূণ্যে ও প্রেমে ভরে।



এটা কি হচ্ছে!?


এটা কি  হচ্ছে, পোস্ট করলেই পোস্ট কই চলে যাচ্ছে, এটা কেন হয়? মডু জানাবেন কি?