যুবরাজ খান -blog


...


 


দেশের খনিজ সম্পদের ইজারা বারবার বিদেশী মুনাফাখোরদের নিকট দেয়ার প্রতিবাদ জানাই


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার অবারিত রহমতের ধনভা-ার বিরাজ করছে আমাদের এই সোনার বাংলায়। বিশেষ করে খনিজ সম্পদের মজুদ এখানে ব্যাপক। এসব খনিজ সম্পদগুলো যথাযথ পদ্ধতিতে উত্তোলন করে দেশের জনসাধারণের চাহিদা পূরণ করে বিদেশেও রফতানী করা যায়। সরকারি-বেসরকারি অনেক



দেশের খনিজ সম্পদের ইজারা বারবার বিদেশী মুনাফাখোরদের নিকট দেয়ার প্রতিবাদ জানাই


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার অবারিত রহমতের ধনভা-ার বিরাজ করছে আমাদের এই সোনার বাংলায়। বিশেষ করে খনিজ সম্পদের মজুদ এখানে ব্যাপক। এসব খনিজ সম্পদগুলো যথাযথ পদ্ধতিতে উত্তোলন করে দেশের জনসাধারণের চাহিদা পূরণ করে বিদেশেও রফতানী করা যায়। সরকারি-বেসরকারি অনেক



সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, উম্মুল মু’মিনীন আল ঊলা সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার আযীমুশ নিসবতে আযীম মুবারক এবং প্রাসঙ্গিক


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বরকতময় কোন বিষয় সাধারণ মানুষের মত নয়। তাই, সাধারণ মানুষের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত সাধারণ শব্দসমূহ উনার মুবারক শানে ব্যবহার করা যাবেনা। আর এ জন্য উনার মুবারক শানে শাদী, বিবাহ বা নিকাহ ইত্যাদী



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দুনিয়ার যমীনে অবস্থানকালীন সময়ে ইয়াওমুল ইছনাইনিল আযীম শরীফ যে


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে- عَنْ حَضْرَتْ اَبِـي قَتَادَةَ الأَنْصَارِيِّ رَضِىَ اللهُ تَعَالٰى عَنْهُ اَنَّ رَسُوْلَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ سُئِلَ عَنْ صَوْمِ الاِثْنَيْنِ فَقَالَ فِيْهِ وُلِدْتُ وَفِيْهِ اُنْزِلَ عَلَىَّ‏.‏ অর্থ: “হযরত আবূ ক্বাতাদাহ্ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার



মুবারক হো! মুবারক হো!! মুবারক হো!!! ঈদে বিলাদতে সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, গুলে মুবীনা, নূরে মদীনা


হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনারা সবসময়ই নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম; যদিও দুনিয়াবী দৃষ্টিতে উনারা অল্প বয়স মুবারকে হন না কেন। তদ্রƒপ হযরত আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনারাও সর্বাবস্থায় হযরত আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম; যদিও উনারা অল্প বয়স মুবারকে হন। মহান আল্লাহ পাক



ঘৃণা জানানোর ভাষা নেই


  রাস্ট্রধর্ম ইসলাম তুলে দেয়ার পুরস্কার হিসেবে হিন্দু প্রধান বিচারপতিকে রাস্ট্রপতি করা হতে পারে বলে সম্ভাব্য খবর আনন্দবাজার পত্রিকা প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশকে ধর্মনিরপেক্ষ প্রমাণ করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে বাংলাদেশের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট করতে পারেন। কলকাতার আনন্দবাজার



রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বহাল রাখার দাবি এবার দেশ অচলের হুমকি দিল ওলামা লীগ


  সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলামকে বাদ দেয়া হলে সারাদেশে বড় ধরনের আন্দোলন গড়ে তোলে দেশ অচল করে দেয়া হবে বলে সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগসহ সমমনা ১৩টি ইসলামি দল। এর আগে গতকাল একই দাবিতে দেশ অচলের হুমকি দেয় হেফাজতে



ধর্মনিরপেক্ষতাকে বেজ করে মুক্তিযুদ্ধ হয়নি


  অনেকেই দাবি করছে, ৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিলো ধর্মনিরপেক্ষতাকে বেজ করে, তাই রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম রাখা ঠিক নয়। যারা এ ধরনের কথা বলে, তাদের জন্য বলছি ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের মূল পটভূমি ছিলো ৭০ এর নির্বাচন। আর সেই ৭০ এর নির্বাচনের সময় বঙ্গবন্ধু



অত্যন্ত জরুরী পোষ্ট ………………………….


বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি হিসেবে যখন হিন্দু ধর্মাবলম্বী এসকে সিনহা নিয়োগ পায়, তখন সাথে সাথে ভারতীয় মিডিয়ায় আনন্দের জোয়ার বয়ে যায়। টাইমস অব ইন্ডিয়া, দ্য হিন্দু, আইএনবি খবর করে- এই প্রথম বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি পদে এক হিন্দু ধর্মাবলম্বী আসছে। (সূত্র: http://goo.gl/4diFTp,http://goo.gl/tRejms, http://goo.gl/Fd4J0i)



মহা সম্মানিত মহা পবিত্র সুমহান ঈদে বিলাদতে উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম


বন্ধুগণ, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি অতুলনীয় শান মান বুযুর্গী সম্মান মর্যাদা মর্তবার অধিকারিনী। উনার লক্বব মুবারক-এর শেষ নেই। বেমেছাল সুমহান ব্যক্তিত্ব হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, তিনি সাইয়্যিদাতু নিসায়িল



“দাদা অর্ধেকটা দিলুম পুরোটা খাবেন কিন্তু !” হা হা হা


অনলাইন জগতে প্রায়ই হিন্দুদের বলতে শুনা যায়, এই বাংলাদেশের সব জমি নাকি হিন্দুদের। তারা মুসলমানদের ওপর হিন্দুদের জমি কেড়ে নেয়ার অপবাদ দেয়। নাউযুবিল্লাহ! অথচ আসলে ইতিহাস বলছে সম্পূর্ণ উল্টো কথা। ইতিহাসের সত্য হচ্ছে, ১৭৯৩ সালে চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত করে মুসলমানদের জমিগুলো কেড়ে



আপনি কি জানেন ‘এপ্রিল ফুল’ কি?


  ‘এপ্রিল ফুল’ হচ্ছে ঐ দিবস, যে দিবসে লক্ষ লক্ষ মুসলমান উনাদেরকে ধোঁকা দিয়ে নির্মমভাবে শহীদ করা হয়েছে। আর এই ‘এপ্রিল ফুল’ পালন করা মুসলমান উনাদের জন্য হারাম ও কুফরী। কেননা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি