সাকালাইন -blog


দেশপ্রেম ও ইসলামি চেতনায় উজ্জীবিত...


 


গায়েবী মদদ আসার রাস্তা বন্ধ করে রেখেছে মুসলমানরাই!


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে ঈমানদারগণ! তোমরা আমার শত্রু এবং তোমাদের শত্রুকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করো না।” (পবিত্র সূরা মুমতাহিনাহ শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ১) পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে কাফির-মুশরিকরা মুসলমানদের শত্রু একথা বারবার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেয়ার



হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি যালিম শাসকের যুলুমের বিরুদ্ধে এক প্রবল প্রতিবাদী বেমেছাল কণ্ঠস্বর


পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার গৌরবময় ইতিহাসে যুগে যুগে যতপ্রকার যুলুম অত্যাচার এসেছে তার প্রতিটির মূলেই ছিল ওই যুগের যালিম ফাসিক-ফুজ্জার শাসকদের কুৎসিত ভূমিকা। তারা তাদের ক্ষমতার যাচ্ছেতাই ব্যবহারের জন্য পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার বিধিবিধানকে কাটছাঁট করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হতো। বিপরীতে খালিক্ব



পবিত্র যাকাত প্রদানকারীর সীমাহীন ফাযায়িল-ফযীলত


ক) কবর, হাশর, মীযান, পুলছীরাত সব জায়াগায় তথা দুনিয়া ও আখিরাতে প্রশান্তির কারণ: এ সম্পর্কে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- خُذْ مِنْ اَمْوَالِـهِمْ صَدَقَةً تُطَهّرُهُمْ وَتُزَكّيْهِمْ بِـهَا وَصَلّ عَلَيْهِمْ اِنَّ صَلاتَكَ سَكَنٌ لَّـهُمْ وَاللهُ سَـمِيْعٌ عَلِيْمٌ. অর্থ: (ইয়া রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!)



নারীকুলের জন্য একমাত্র আদর্শ সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম


মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন কুল-কায়িনাতের মাখলুকাতের জন্য অনুপম গ্রহণযোগ্য একমাত্র আদর্শ।” সুবহানাল্লাহ! জিন-ইনসানকে সৃষ্টি করা হয়েছে মহান



বিজাতীয় পন্থায় দ্বীন ইসলাম কায়িম করার অলীক স্বপ্ন


ক্ষমতালোভী ধর্মব্যবসায়ী উলামায়ে ‘সূ’রা গণতন্ত্র করে। তাদের যুক্তি হচ্ছে- গণতন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতায় গিয়ে তারা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার বিধিবিধান জারি করবে। তারা হারাম নারী নেতৃত্ব মেনে থাকে। এক্ষেত্রে তারা ধোঁকাপূর্ণভাবে বলে থাকে- পবিত্র দ্বীন ইসলাম কায়িমের জন্য সাময়িক সময়ের জন্য এটা



আফসুস! ওইসব ব্যক্তির জন্য, যারা ‘পবিত্র শবে বরাত’ পাওয়ার পরও ইবাদত-বন্দেগী হতে গাফিল থাকে


“হাশরের দিনে বান্দার হিসাব-নিকাশ গ্রহণের পর দেখা যাবে, কতক উম্মতে হাবীবী তাদের উপর জাহান্নামের ফায়ছালা হয়ে গেছে। তখন হযরত ফেরেশতা আলাইহিমুস সালাম উনারা তাদেরকে জাহান্নামের দিকে নিয়ে যেতে থাকবেন এবং পথিমধ্যে জিজ্ঞাসা করবেন, হে ব্যক্তিরা! তোমাদের দেখে মনে হচ্ছে তোমরা উম্মতে



সতীদাহসহ বিধর্মীদের বিভিন্ন অপসংস্কৃতি বন্ধ করেছিলেন পূর্ববর্তী মুসলিম শাসকরা


বর্বর একটি প্রথার নাম হচ্ছে ‘সতীদাহ প্রথা’। এ বর্বর নির্মম প্রথা অনুসারে স্বামীর মৃত্যুর পর চিতায় মৃত স্বামীর সাথে জীবন্ত স্ত্রীকেও পুড়িয়ে হত্যা করা হতো। মহিলাটি পালিয়ে বাঁচার চেষ্টা করলে, তাকে টেনে-হেঁচড়ে, পিটিয়ে এরপর অগ্নিকুন্ডের মধ্যে নিক্ষেপ করতো। এটা বন্ধের ইতিহাস



‘এক পরিবার এক সন্তান’ ইহুদী-নাছারাদের এক ষড়যন্ত্রের ফাঁদ, এ ফাঁদ থেকে সতর্ক থাকতে হবে!


‘এক পরিবার এক সন্তান’ ইহুদী-নাছারাদের এক ষড়যন্ত্রের ফাঁদ, এ ফাঁদ থেকে সতর্ক থাকতে হবে! সন্তান মহান আল্লাহ পাক উনার একটি বিশেষ নিয়ামত মুবারক। যাদের সন্তান নেই শুধু তারাই এই সত্যটি গভীরভাবে উপলব্ধি করতে পারে। জনসংখ্যা কোনো দেশের জন্যই সমস্যা নয়। রিযিকের



প্রকৃত ইতিহাস কি বলে? কথিত দেবোত্তর সম্পত্তি, নাকি মুসলমানদের লাখেরাজ সম্পত্তি?


লাখেরাজ সম্পত্তি বলা হয় নিষ্কর বা শুল্ক মুক্ত ভূমিকে। মুসলিম শাসন আমলে মুসলিম শাসকগণ কর্তৃক এ অঞ্চলের মুসলিম ছূফী-দরবেশ ও আলিম-উলামা উনাদেরকে প্রশাসনের তরফ থেকে নিষ্কর অর্থাৎ বিনা খাজনায় হাজার হাজার বিঘা সম্পত্তি দেয়া হতো; যাতে করে উনারা নির্বিঘেœ ইসলামী শিক্ষা-দিক্ষার



“আত তাক্বউইমুশ শামসী” নামের অর্থ


আরবীতে اَلتَّقْوِيْـمُ ‘আত তাক্বউইম’ অর্থ বর্ষপঞ্জি আর اَلشَّمْسِ ‘আশ শামস’ অর্থ হচ্ছে ‘সূর্য’ আর দুইয়ে মিলে হয়েছে, اَلتَّقْوِيْـمُ اَلشَّمْسِىٌّ “আত তাক্বউইমুশ শামসী”। অর্থাৎ সৌর বর্ষপঞ্জি। “আত তাক্বউইমুশ শামসী” উদ্ভাবনের উদ্দেশ্য মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক



সন্ত্রাসবাদ নয়; জিহাদী যোগ্যতা অর্জন করা পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ অনুযায়ী ফরয


মুসলমান মাত্রই পবিত্র বিদায় হজ্জ উনার কথায় আগেবতাড়িত হন। পবিত্র বিদায় হজ্জ উনার খুতবায় অনুপ্রাণিত হন। পবিত্র বিদায় হজ্জ উনার খুতবার প্রথমদিকেই বর্ণিত হয়েছে, “আজকের এদিন যেমন পবিত্র, তেমনি প্রতিটি মুসলমানের জান-মাল অনেক পবিত্র।” আপন জান-মাল রক্ষার্থে মুসলমান যে যুদ্ধ করবে,



পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ অস্বীকার করলে কঠিন শাস্তি ভোগ করতে হবে


পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, হযরত ঈসা রূহুল্লাহ আলাইহিস সালাম তিনি দোয়া করেছিলেন, “আয় আল্লাহ পাক! আয় আমাদের রব! আমাদের জন্য আপনি আসমান হতে (বেহেশতী খাদ্যের) খাদ্যসহ একটি খাঞ্চা নাযিল করুন। খাঞ্চা নাযিলের উপলক্ষটি অর্থাৎ খাদ্যসহ খাঞ্চাটি যেদিন