কুমিল্লাবাসী -blog


...


কুমিল্লাবাসী
 


উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক এবং সম্মানিত পবিত্রতা মুবারক


বনী মুছত্বলিক্বের জিহাদ থেকে প্রত্যাবর্তনের সময় আফদ্বলুন নিসা বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, উম্মুল মু’মিনীন আছ ছালিছাহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত শান মুবারক উনার খিলাফ মিথ্যা অপবাদ রটনা করে মুনাফিক্ব সর্দার উবাই ইবনে সুলূল লা’নাতুল্লাহি আলাইহি এবং



বিশ্ব বেহায়া প্রতিযোগিতায় নারীদেরকে পাঠানোর পদক্ষেপ এক দুঃসহ নব্য জাহিলিয়্যাত


সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রী ইনু ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ থেকে বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতা তথা বিশ্ব বেহায়া প্রতিযোগিতায় বেহায়া নারীদের পাঠাবে। নাউযুবিল্লাহ! কি হয় সে বিশ্ব বেহায়া প্রতিযোগিতায়? বিশ্ব বেহায়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বেহায়া নারীকে যখন বিশ্ব সুন্দরী বা কোনো দেশের সেরা সুন্দরীর বিরাট



‘র’ ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ৯৮ ভাগ মুসলমানের দেশ বাংলাদেশকে মসজিদশূন্য করতে চাচ্ছে! নাউযুবিল্লাহ! এদেশের মুসলমান কি মুখ বুঁজে থাকবে?


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, لتجدن اشد الناس عداوة للذبن امنوا اليهود والذين اشركوا অর্থ: “তোমরা মানুষের মধ্যে তোমাদের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে পাবে প্রথমতঃ ইহুদীদেরকে অতঃপর মুশরিকদেরকে। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার দ্বারা অকাট্যভাবে প্রমাণিত হয় যে, মুশরিক অর্থাৎ



মৃত্যু যেহেতু আছেই, তবে প্রকৃত ঈমানদার-মুসলমান হয়েই মৃত্যুবরণ করুন।


মৃত্যু যেহেতু আছেই, তবে প্রকৃত ঈমানদার-মুসলমান হয়েই মৃত্যুবরণ করুন। মৃত্যু যে শ্বাশত সত্য- এটা মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মাঝে ইরশাদ মুবারক করেছেন। প্রত্যেক নফসকে, প্রত্যেক মানুষকে তথা জিন-ইনসানসহ সমস্ত মাখলুকাতকে মৃত্যুবরণ করতে হবে।” সূরা আল ইমরান শরীফ:



আহলান ওয়া সাহলান : সাইয়্যিদুনা হযরত শাহদামাদ-এ ছানী আলাইহিস সালাম


আরবী পঞ্চম মাস উনার নাম পবিত্র জুমাদাল ঊলা। পবিত্র জুমাদাল ঊলা মাস উনার অনেক ফাযায়িল-ফযীলতের মধ্যে একটি বিশেষ দিক হচ্ছে, এ মাসে জলীলুল ক্বদর ছাহাবী এবং হযরত খুলাফায়ে রাশিদা আলাইহিমুস সালাম উনাদের চতুর্থ খলীফা সাইয়্যিদুনা হযরত আলী র্কারামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম



মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতবাসীকে।


আজ সুমহান ও বরকতময় ১৪ শাওওয়াল শরীফ।   নকশবন্দিয়া-মুজাদ্দিদিয়া তরীক্বা উনার ইমাম আফযালুল আউলিয়া হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি এদিন পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন।   এ উপলক্ষে সকলের দায়িত্ব ও কর্তব্য হচ্ছে- উনার পবিত্র সাওয়ানেহে উমরী মুবারক



উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার বেমেছাল শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, اِنَّ الْعِزَّةَ لِلَّهِ جَمِيعًا অর্থ: “নিশ্চয়ই সমস্ত ইজ্জত তথা শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক একমাত্র যিনি খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য। অর্থাৎ তিনি সমস্ত ইজ্জত-সম্মান, শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক উনার একক মালিক।”



১৪ শাওওয়াল শরীফ: হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার স্মরণে রাষ্ট্রদ্বীন পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার সরকারের করণীয় কিছু


মতুল্লাহি আলাইহি। যিনি এই পবিত্র শাওওয়াল শরীফ মাস উনার ১৪ তারিখ পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ! আজকে যে সরকার, যে দেশ পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাকে রাষ্ট্রদ্বীন হিসেবে ঘোষণা করতে বাধ্য হয়েছে; সেই দ্বীন ইসলাম উনাকেই সম্রাট আকবরের ফিতনা থেকে



দেশে নৈতিকতার দুর্ভিক্ষ দেখা দিয়েছে


বাস্তবতা হলো আমাদের গণমাধ্যম কলকাতার বাবু-সংস্কৃতি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। স্বাধীনতার পর থেকে দীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে এই নিয়ন্ত্রণ সফলভাবে বজায় রাখায় বাংলাদেশের জনগোষ্ঠীর নিজস্ব সাংস্কৃতিক পরিচয় অদ্যাবধি বিকশিত হতে পারেনি। এদেশের অধিকাংশ মিডিয়ায় এমনভাবে প্রচার চালানো হয়েছে, যাতে ইসলাম ধর্মের আচার-আচরণকে বাঙালিত্বের



 ‘তোমাদের মধ্যে ঐ ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট অধিক সম্মানিত যে ব্যক্তি অধিক মুত্তাক্বী ।


পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার মাধ্যমে অর্জিত তাক্বওয়া পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার পরবর্তী মাসগুলোতেও বজায় রাখতে হবে। অর্থাৎ পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার পরবর্তী মাসগুলিতেও সর্বপ্রকার অশ্লীল ও সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার বিরোধী কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে। তবেই হাক্বীক্বী কামিয়াবি অর্জন করা



সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে সবধরনের খেলাধুলাকে হারাম ঘোষণা করা হয়েছে।


অতএব খেলাধুলার মাধ্যমে উপার্জিত সমস্ত অর্থসম্পদও হারাম। এবং হারাম গানবাজনা ও নাটক সিনেমা করে মিথ্যা অভিনয় করার মাধ্যমে উপার্জিত সমস্ত অর্থসম্পদও হারাম। আর হারাম অর্থ সম্পদ গ্রহণকারী ব্যক্তির কোন ইবাদত-বন্দেগী কবুল তো হবেই না। উপরন্তু সে পরকালে জাহান্নামের কঠিন শাস্তির সম্মুখীন



পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করতে করতে হিন্দুস্থানের বিশিষ্ট ওলী হযরত কুতুবুদ্দীন বখতিয়ার কাক্বী রহমতুল্লাহি


চীশতিয়া খান্দানের বিশিষ্ট বুযুর্গ হযরত খাজা গরীবে নেওয়াজ ম্ঈুনুদ্দীন হাসান চীশতি রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার প্রধান খলীফা হলেন হযরত কুতুবুদ্দীন বখতিয়ার কাক্বী রহমতুল্লাহি আলাইহি। তিনি ‘দলীলুল আরেফীন’ নামক বিখ্যাত কিতাবের লিখক। উনার পবিত্র বিছাল শরীফ গ্রহণের ঘটনাটি অনেক মশহুর। ঘটনাটি ‘কুতুবে ছে’র’