কুমিল্লাবাসী -blog


...


কুমিল্লাবাসী
 


দেশে নৈতিকতার দুর্ভিক্ষ দেখা দিয়েছে


বাস্তবতা হলো আমাদের গণমাধ্যম কলকাতার বাবু-সংস্কৃতি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। স্বাধীনতার পর থেকে দীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে এই নিয়ন্ত্রণ সফলভাবে বজায় রাখায় বাংলাদেশের জনগোষ্ঠীর নিজস্ব সাংস্কৃতিক পরিচয় অদ্যাবধি বিকশিত হতে পারেনি। এদেশের অধিকাংশ মিডিয়ায় এমনভাবে প্রচার চালানো হয়েছে, যাতে ইসলাম ধর্মের আচার-আচরণকে বাঙালিত্বের



 ‘তোমাদের মধ্যে ঐ ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট অধিক সম্মানিত যে ব্যক্তি অধিক মুত্তাক্বী ।


পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার মাধ্যমে অর্জিত তাক্বওয়া পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার পরবর্তী মাসগুলোতেও বজায় রাখতে হবে। অর্থাৎ পবিত্র রমাদ্বান শরীফ উনার পরবর্তী মাসগুলিতেও সর্বপ্রকার অশ্লীল ও সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার বিরোধী কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে। তবেই হাক্বীক্বী কামিয়াবি অর্জন করা



সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে সবধরনের খেলাধুলাকে হারাম ঘোষণা করা হয়েছে।


অতএব খেলাধুলার মাধ্যমে উপার্জিত সমস্ত অর্থসম্পদও হারাম। এবং হারাম গানবাজনা ও নাটক সিনেমা করে মিথ্যা অভিনয় করার মাধ্যমে উপার্জিত সমস্ত অর্থসম্পদও হারাম। আর হারাম অর্থ সম্পদ গ্রহণকারী ব্যক্তির কোন ইবাদত-বন্দেগী কবুল তো হবেই না। উপরন্তু সে পরকালে জাহান্নামের কঠিন শাস্তির সম্মুখীন



পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম পালন করতে করতে হিন্দুস্থানের বিশিষ্ট ওলী হযরত কুতুবুদ্দীন বখতিয়ার কাক্বী রহমতুল্লাহি


চীশতিয়া খান্দানের বিশিষ্ট বুযুর্গ হযরত খাজা গরীবে নেওয়াজ ম্ঈুনুদ্দীন হাসান চীশতি রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার প্রধান খলীফা হলেন হযরত কুতুবুদ্দীন বখতিয়ার কাক্বী রহমতুল্লাহি আলাইহি। তিনি ‘দলীলুল আরেফীন’ নামক বিখ্যাত কিতাবের লিখক। উনার পবিত্র বিছাল শরীফ গ্রহণের ঘটনাটি অনেক মশহুর। ঘটনাটি ‘কুতুবে ছে’র’



মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমি তোমাদের জন্য ব্যবসাকে হালাল করেছি, আর রিবা বা সুদকে হারাম করেছি।’


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি লা’নত বা অভিসম্পাত করেন- যে সুদ খায় তার প্রতি, যে সুদ দেয় তার প্রতি, যে সুদের দলীল লিখে তার প্রতি এবং যে দুই জন সুদের সাক্ষী হয় তাদের প্রতি। তিনি ইরশাদ



আপনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার বন্ধু হবেন, নাকি শত্রু হবেন?


কুল-কায়িনাতের সৃষ্টির উসীলা সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, রহমাতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি। উনার লক্ষ-কোটি জানা-অজানা লক্বব মুবারক উনার মধ্য থেকে অন্যতম একখানি লক্বব মুবারক হচ্ছেন ‘হাবীবুল্লাহ’ বা মহান আল্লাহ পাক উনার বন্ধু। এই লক্বব



সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ও সম্মানিত ঈমান


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মূলভিত্তি সম্মানিত ঈমান। সম্মানিত ঈমান ব্যতীত আমল কোনো কাজেই আসবে না। সম্মানিত ঈমান উনার কোনো একটি বিষয় অস্বীকার করলে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম হতে খারিজ হয়ে যাবে। সম্মানিত ঈমান ব্যতীত যত নেক কাজই করা হোক না কেন কোনোই



সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত খাদিজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম উনার সাওয়ানেহে উমরী বা জীবনী মুবারক মুবারক(৩)


পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ: উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ সম্পর্কে সম্পর্কে কিতাবে উল্লেখ করা হয়, ولدت خديجة بنت خويلد عليها السلام في مكة قبل ولادة الرسول صلى الله عليه و سلم بخمسة



মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। নিশ্চয়ই এর মধ্যে ধৈর্যশীল ও শোকরগোজার বান্দা-বান্দী


সুমহান বেমেছাল বরকতময় ২২শে জুমাদাল ঊলা শরীফ- নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনাদের মহাপবিত্র মহাসম্মানিত আযীমুশ্শান নিকাহিল আযীম শরীফ দিবস। সাইয়্যিদু কুরাইশ, সাইয়্যিদুন নাস, মালিকুল জান্নাহ, জাদ্দু রসূলিল্লাহ



সাইয়্যিদুনা হযরত জাদ্দু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হচ্ছেন সর্বকালের সর্বযুগের সর্বশ্রেষ্ঠ ব্যক্তিত্ব মুবারক


সাইয়্যিদুনা হযরত জাদ্দু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং জাদ্দাতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত ফাত্বিমা বিনতে আমর আলাইহাস সালাম উনারা ছিলেন ওই যামানায় মহান আল্লাহ পাক উনার আখাচ্ছুল খাছ লক্ষ্যস্থল, উনার সর্বাধিক মাহবূব ও মাহবূবাহ। উনাদের সম্মানার্থে



সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত খাদিজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম সালাম উনার সাওয়ানেহে উমরী বা জীবনী মুবারক (২)


জীবনী মুবারক (২) সম্মানিত ওয়ালিদ আলাইহিস সালাম: উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম সম্মানিত ওয়ালিদ আলাইহিস সালাম সম্পর্কে কিতাবে উল্লেখ করা হয়, كان أبوها خويلد عليه السلام من سادة قريش وسيد بني عبد العزى بن قصي وأحد أشراف قريش অর্থ:



সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, উম্মুল মু’মিনীন হযরত খাদিজাতুল কুবরা আলাইহাস সালাম উনার সংক্ষিপ্ত সাওয়ানেহে উমরী বা জীবনী মুবারক (১)


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, يَااَيُّهَا النَّاسُ قَدْ جَاءَتْكُمْ مَوْعِظَةٌ مّـِنْ رَّبّـِكُمْ وَشِفَاء لّـِمَا فِى الصُّدُوْرِ وَهُدًى وَّرَحْمَةٌ لّـِلْمُؤْمِنِيْنَ. قُلْ بِفَضْلِ اللهِ وَبِرَحْمَتِهٖ فَبِذٰلِكَ فَلْيَفْرَحُوْا هُوَ خَيْرٌ مّـِمَّا يَـجْمَعُوْنَ. অর্থ: “হে মানুষেরা! হে সমস্ত জিন-ইনসান, কায়িনাতবাসী!