কুমিল্লাবাসী -blog


...


কুমিল্লাবাসী
 


ইহকালে যা উপার্জন করা হয়েছে, পরকালে তাই খরচ করতে হবে। মুফতে কিছু মিলবে না


ইহকালে যা উপার্জন করা হয়েছে, পরকালে তাই খরচ করতে হবে। মুফতে কিছু মিলবে না আমরা এক মাসে যা আয় করি পরবর্তী মাসে তা থেকে ব্যয় করি। কোনো মাসে আয় কম হলে পরবর্তী মাসে কষ্টে জীবন চলে। মানব জীবনের অন্য দিক ইহজীবন



“মহান আল্লাহ পাক তিনি কি করে ঐ সম্প্রদায়কে হিদায়েত দান করবেন ??


‘সূরা আলে ইমরান শরীফ’ উনার ৮৬, ৮৭ ও ৮৮ নম্বর পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, যারা ঈমান আনার পর কুফরী করে এবং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে সত্য বলে সাক্ষ্য দেয়ার পর উনার



কারামতে হযরত নিবরাসাতুল উমাম আলাইহাস সালাম


লক্ষ কোটি দূরূদ ও সালাম যিনি যামানার মূল, যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ আমাদের প্রাণপ্রিয় শায়েখ, আমাদের আক্বা ক্বিবলা কা’বা মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম এবং নূরে জাহান, গুলে মদীনা, নূরে মুবিনা, কায়িম-মাক্বামে ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম, আমাদের প্রাণপ্রিয়



পাকিস্তানে ৪ লাখ পর্নো সাইট বন্ধ


পাকিস্তান চার লাখেরও বেশি পর্নো সাইট বন্ধ করে দিয়েছে। পাকিস্তানের একটি পত্রিকার বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া গতকাল এ খবর জানিয়েছে। এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের খবরে বলা হয়েছে, দেশটির টেলিকমিউনিকেশন কর্তৃপক্ষ ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে চার লাখেরও বেশি ‘পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট’ বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ



কথিত ক্রিসমাস থেকে পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ নয়, বরং পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ থেকে খ্রিস্টানারা কথিত ক্রিসমাসের থিউরী গ্রহণ


কিছু মূর্খ দাবি করে থাকে, খ্রিস্টানদের ক্রিসমাস থেকে মুসলমানরা পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করতে শিখেছে। নাউযুবিল্লাহ! মূলত, এ শ্রেণীর লোকরা এবং গ-মূর্খ কাফিরদের কাজের দ্বারা হীনম্মন্য হয়ে পড়েছে। ইতিহাসই বলে দেয়, সেই শুরু থেকেই মুসলমানগণ উনাদের মধ্যে পবিত্র ১২ই রবীউল



মুসলমানদের উচিত সপ্তাহের বারসমূহের নাম পবিত্র হাদীছ শরীফ অনুযায়ী উচ্চারণ করা ।


একজন বয়োঃপ্রাপ্ত ও সুস্থ বিবেকসম্পন্ন মুসলমান পুরুষ-মহিলার জন্য দৈনিক ৫ ওয়াক্ত নামায আদায় করতে হয়। এ পাঁচ ওয়াক্ত নামাযের নামকরণ পবিত্র হাদীছ শরীফ দ্বারাই হয়েছে। যেমন ফজর, যুহর, আছর, মাগরিব ও ‘ইশা। আজ পর্যন্ত কোন মুসলমান এই পাঁচ ওয়াক্ত নামাযকে ওয়াক্তের



হযরত আবনাউ রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সাওয়ানেহে উমরী মুবারক এবং বেমেছাল ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক সম্পর্কে জানা সমস্ত


খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, قُلْ لَّااَسْاَلُكُمْ عَلَيْهِ اَجْرًا اِلَّا الْمَوَدَّةَ فِى الْقُرْبـٰى وَمَنْ يَّقْتَرِفْ حَسَنَةً نَّزِدْ لَهٗ فِيْهَا حُسْنًا اِنَّ اللهَ غَفُوْرٌ شَكُوْرٌ. অর্থ: “(হে আমার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া



আজ সুমহান বরকতময় মহাপবিত্র আযীমুশ শান ৫ রবীউল আউওয়াল শরীফ


  নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘আমার সম্মানিত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো আমার সন্তুষ্টি মুবারক লাভের জন্য।’ আজ সুমহান বরকতময় মহাপবিত্র আযীমুশ শান ৫ রবীউল আউওয়াল শরীফ উম্মু রসূলিনা



ঐতিহাসিক আদিনা মসজিদের উপর আক্রমণ ও বর্তমানে ভারতের মসজিদসমূহের উপর হামলা


ব্রিটিশ আমল শুরুর পর যখন থেকে ভারতবর্ষে মুসলিম শাসনের অবসান হয়েছে, তখন থেকেই সাম্প্রদায়িক হিন্দুরা মুসলমানদের দুর্বলতার সুযোগে বহু ঐতিহাসিক মসজিদ ও মাযার শরীফ ধ্বংস করেছে। সেসবের প্রতিবাদ হয়নি বলেই কাল্পনিক ‘রামমন্দির’-এর দোহাই দিয়ে বাবরি মসজিদ ধ্বংস করেছে এবং তাজমহলের জায়গায়



কুল-কায়িনাতের সর্বশ্রেষ্ঠ ঈদ ও ইবাদত পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ আসতে আর মাত্র ৩২ দিন বাকি।


অথচ ৯৮ ভাগ মুসলমান ও রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম উনার দেশের সরকারের এ বিষয়ে কোনো মাথা ব্যথাই নেই। কুল-কায়িনাতের সর্বশ্রেষ্ঠ নবী ও রসূল, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ দিবস



সিসিটিভি কস্মিনকালেও সিকিউরিটি নয়; বরং সুস্পষ্ট একটি প্রতারণা


ইহুদী-খ্রিস্টানরা খুব ভালো করেই জানে- যেখানে ছবি থাকে সেখানে রহমতের ফেরেশতা প্রবেশ করে না এবং সেখানে হাজারো ইবাদত-বন্দেগী করলেও তা কবুল হয় না। তাই তারা সূক্ষ্মভাবে মুসলমানদের ইবাদতের স্থলে হারাম সিসিটিভি লাগিয়েছে। আর ছবি সম্পর্কে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক



যাবতীয় প্রচারিত প্রোপাগান্ডার বিপরীতে কাফির মুশরিক ম্লেচ্ছ যবন অস্পৃশ্যগুলিই হচ্ছে মূলত নিকৃষ্ট সন্ত্রাসী। কাফিরগুলির সন্ত্রাসী কর্মকা- অতীত ইতিহাস থেকেই


সারা বিশ্বব্যাপী কাফিরগুলি আজ মুসলমানদের চরমভাবে যুলুম নির্যাতন করছে এবং উল্টো মুসলমানদের তারা দোষারোপ করছে যে, মুসলমানরাই সন্ত্রাসী। নাউযুবিল্লাহ!!!! অথচ তার বিপরীতে সুদূর অতীতকাল থেকেই দেখা যায়, এই বর্বর অস্পৃশ্য যবন অচ্ছুৎ কাফিরগুলিই মূলত সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রম চালিয়ে আসছে এবং মুসলমানগণের উপর