শাওন -blog


...


 


দাসপ্রথা ও ইসলাম


ইসলাম বিদ্বেষীরা প্রায়ই রটনা করে থাকে যে, ইসলাম দাসপ্রথাকে ত্বরান্বিত করেছে, দাসদের উপর যৌন নির্যাতন চালানোকে বৈধতা দিয়েছে, মানুষকে পণ্য-সামগ্রী হিসেবে কেনাবেচার বৈধতা দিয়েছে-ইত্যাদি।   যিনি খ্বালিক, যিনি মালিক, যিনি রব মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ মুবারক করেন, فَكُّ رَقَبَةٍ অর্থ: “আর



গুলশান হামলার পেছনের খল নায়ক কারা?


প্রতিবারই হামলা শেষে ইহুদী মহিলা রিটা কাটজ পরিচালিত কথিত “সাইট ইন্টেলিজেন্স এজেন্সী”র মাধ্যমে আইএস দায় স্বীকার করে নেয়। ব্যস। হয়ে গেল তদন্ত। এবার গণহারে দাড়ি-টুপি ধর। দুনিয়ার সবাই জানে যে আইএস আমেরিকার সৃষ্টি। তারপরও মিডিয়ার ব্রেইন-ওয়াশকৃত চুশীল সমাজ নাঁকি সুরে বলেই



এইবারের ঈদ নাটক- “বাংলাদেশে আইএস থাকতেই হপে”


ঈদ নাটক- “বাংলাদেশে আইএস থাকতেই হপে” প্রযোজক- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নির্দেশক- সিআইএ সহকারী নির্দেশক- র মুল অভিনেতা- অজ্ঞাত তবে মুসলমান কৌতুক অভিনেতা- কতিপয় সাংবাদিক ক্যামেরা- হলুদ মিডিয়া পরিবেশক- সকল টিভি চ্যানেল এবং নিউজ মিডিয়া বিঃদ্রঃ- প্রথম আলু যেই টুইটার অ্যাকাউন্ট এর রেফারেন্স



দেশদ্রোহী হিন্দু সমাজ


হিন্দুদের অবস্থান ক্লিয়ার । তারা চায় বাংলাদেশে আইএস আছে সেটা প্রমাণ করতে এবং তার মাধ্যমে বাংলাদেশে বিদেশী শক্তির আগমণ ঘটাতে। আমি বলবো, ৫-১০ জন মারা গেলে যদি বিদেশী শক্তির হস্তক্ষেপ লাগে, তবে মুম্বাই হামলার সময় যখন ১৭৫ জন মারা গেলো তখন



শুধু টিভির লাইসেন্স বাতিল করলে হবে না, ইনুর মন্ত্রীত্বও বাতিল করতে হবে


সৈয়দ আশরাফ কয়েকদিন আগে মন্তব্য করেছিল- ইনুকে মন্ত্রীত্ব দেয়ার প্রায়শ্চিত্ত আওয়ামী লীগকে ‘আজীবন’ করতে হবে। তারই প্রতিফলন দেখা গেল গতকাল গুলশান হামলায় মিডিয়ার ভূমিকায়। এই হামলাকে কেন্দ্র করে এদেশের মিডিয়াগুলো বিশ্বব্যাপী প্রচার করলো, হামলাকারীরা ‘আল্লাহু আকবার’ বলে হামলা করেছে। এই প্রচারের



গুলশানের হামলা কেয়ামত নিয়ে আসবে না


গুলশানে হামলার জন্য এত চিন্তিত হওয়ার কিছু নাই। এতে বাংলাদেশের কিছু আসে যায় নাই। এর জন্য আমেরিকা বা ভারতের এত হা-হুতাশ করারও কিছু নাই। বাংলাদেশী বাহিনী এ ধরনের হামলা সামাল দেওয়ার জন্য যথেষ্ট এবং তাদের পূর্ণ শক্তি রয়েছে। এবং এটা বাংলাদেশী



যোগ ব্যামায় বা ইয়োগা হিন্দুদের ধর্মীয় অনুসঙ্গ


হিন্দুধর্মে এটি হিন্দু দর্শনের ছয়টি প্রাচীনতম (আস্তিক) শাখার অন্যতম। হিন্দু দর্শনে যোগের প্রধান শাখাগুলি হল রাজযোগ, কর্মযোগ, জ্ঞানযোগ, ভক্তিযোগ ও হঠযোগ।ভারতীয় হিন্দু দার্শনিক সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণনের মতে, পতঞ্জলির যোগসূত্রে যে যোগের উল্লেখ আছে, তা হিন্দু দর্শনের ছয়টি প্রধান শাখার অন্যতম। অন্যান্য যেসব



আমরা কৃষি থেকে শিল্পের দিকে যাচ্ছি- সউদি আরবকে প্রধানমন্ত্রী


সম্প্রতি বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরবে গিয়ে বলেছেন- “আমরা কৃষি থেকে শিল্পের দিকে যাচ্ছি ”। (http://bangla.bdnews24.com/economy/article1163053.bdnews) মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে শিল্পকারখানা বিস্তার চান, এটা নিয়ে আমার কোন দ্বিমত নাই। কিন্তু দ্বিমত হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রীর ঐ সফরের পর বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী বলেছেন, “কৃষকদেরও ট্যাক্স দিতে



ফায়ার সার্ভিসে ভারতীয় নাগরিক নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি


ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধীদপ্তরের স্টেশন অফিসার/স্টাফ অফিসার পদে মৌখিক পরীক্ষা সংক্রান্ত নির্দেশনা প্রকাশ করেছে সরকার। এই নির্দেশনার সর্বেশেষ (ঢ) নাম্বর ধারাটিতে উল্লেখ করা হয়েছে- “ভারতীয় তালিকায় যদি তাঁর নাম থাকে সেটার নাম্বার ও কপি!” অনলাইনে কপি দেখতে চাইলে এখানে



হিন্দুদের ২২ পুরুষের জমি মুসলমানরা শোধ করবে কিভাবে ?


সম্প্রতি কালী প্রদীপ চৌধুরী নামক এক ফ্রড ১৪২ তলা ভবন নির্মাণের উছিলা দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে। সে দাবি করেছে, ঢাকায় নাকি তার ২২ পুরুষের জমিজমা আছে, মুসলমানরা সেগুলো দখল করে রেখেছে, সেগুলো সে ফেরত চায়। ফ্রড কালী প্রদীপের কথায় মজে প্রতিবন্ধী অর্থমন্ত্রী



আসুন লাল সুতা দেখে নেই……


সবগুলো ছবি দেখুন। প্রথম ছবিগুলো বাংলাদেশের। আগে কিন্তু বাংলাদেশের হিন্দুদের হাতে লাল সুতা দেখা যেতো না। কিন্তু হঠাৎ করে হিন্দুদের হাতে লাল সুতার খুব আধিক্য দেখা যাচ্ছে। পরের ছবিগুলো ভারতের শিবসেনা’র। সাধারণত নেতৃস্থানীয় ও উগ্র শিবসেনারা হাতে লাল সুতা পরে। অনেকে



নাদিয়া, ডেজার্ট বানাতে কিন্তু চিনি লাগে


ব্রিটেনের সো কল্ড রানির জন্য কেক বানিয়ে এখন বাংলাদেশের খাদ্য কালচারকে আক্রমণ করছে সিলেটি বংশোদ্ভূত নাদিয়া। সে মন্তব্য করেছে, এ অঞ্চলের মানুষের খাদ্য সংস্কৃতিতে নাকি ডেজার্ট বা মিষ্টি জাতীয় খাদ্য নেই। এছাড়াও এদেশের খাদ্য নিয়ে আরো অনেক কটাক্ষ করেছে সে। উগ্র