গোলামে মাদানী আক্বা -blog


...


 


ইসলামী মূল্যবোধ, আদর্শ ও ইতিহাস থেকে ভালো শাসক হওয়ার শিক্ষা নিতে হবে


  সারা পৃথিবীর ইতিহাসে ন্যায়পরায়ণ শাসক হিসেবে সুবিখ্যাতদের অন্যতম একজন হলেন খলীফাতুল মুসলিমীন হযরত উমর ইবনে আব্দুল আযীয রহমতুল্লাহি আলাইহি। তিনি সম্মানিত খিলাফত মুবারক উনার দায়িত্ব গ্রহণের পর সে সময়কার অন্যতম শ্রেষ্ঠ তাবে’য়ী আমরুশ শরীয়ত ওয়াত তরীক্বত সাইয়্যিদুনা হযরত হাসান বসরী



বাল্যবিবাহ মুক্ত জেলা উপজেলা ঘোষণা করার অন্তরালে আসল রহস্য কি?


ইদানীং পত্র-পত্রিকা-মিডিয়াতে একটি সংবাদ খুব হাইলাইট করে প্রচার করা হয়। সেটা হলো- আজ অমুক জেলা, কাল অমুক উপজেলা কিংবা ইউনিয়নকে বাল্যবিবাহ মুক্ত হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। অর্থাৎ দ্বীন ইসলাম বিষয়ে জাহিল প্রশাসন এবং বিদেশী বিজাতি এনজিও গং খুব তৎপরতার সাথে জেলা,



যেভাবে মাইনাস টু ফর্মুলার বাস্তবায়ন


মুসলমান উনাদের জান, মাল, দ্বীন, ঈমান-আমল ইত্যাদীর শত্রু ইহুদী, মুশরিক ও নাছারারা। এই শত্রুরা সবসময় চায় এবং ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত করে কি করে, মুসলমান উনাদের ক্ষতি করা যায়, ধন-সম্পদ লুণ্ঠন করা যায়, যুলুম-নির্যাতন করা যায়, শহীদ করা যায়, সর্বোপরি মুসলমান উনাদের



পবিত্র কুরআন শরীফ হতে ৭শ’ পবিত্র আয়াত শরীফ বাদ দেয়ার দাবি জানানো হয়েছিলো কি কারণে তা জানা আছে কি?


খুব বেশিদিন আগের কথা নয়। মহাসন্ত্রাসী আমেরিকার তথাকথিত সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধের অংশ হিসেবে সাবেক সউদী ওহাবী বাদশাহ আব্দুল্লাহ তার ওহাবী ধর্মগুরুদের পরামর্শে খ্রিস্টানদের পোপের সাথে যৌথ উদ্যোগে স্পেনের মাদ্রীদে আয়োজন করে বিশ্ব আন্তঃধর্ম সম্মেলন। সব ধর্মের মধ্যে সেতুবন্ধন করে সব ধর্মের অনুসারীরা



মুসলমানগণ কাদেরকে অনুসরণ করবে? সেটা ইহুদী নাসারা বিধর্মী-বিজাতীরা বলে দেয়া লাগবে না!


আখিরী যামানা বলে কথা। আসলে আখিরেরও আখির চলতেছে বর্তমানে। নতুবা যেখানে মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল ইজ্জত তিনি এবং উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা পবিত্র কুরআন শরীফ এবং পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের মাঝে বলে দিয়েছেন-



মুসলমানগণ কখনো এক ভুল বারবার করে না


পবিত্র বদরের জিহাদে আব্দুল উজ্জা নামক এক মুনাফিক ধরা পড়লো। এ মুনাফিকের কাজ ছিলো সারা দিন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক শান উনার মানহানী করে কুৎসা রটনা করা এবং সেগুলো দিয়ে গান-বাজনা বানিয়ে প্রচার করা।



মহান আল্লাহ পাক তিনি কী কাউকে সালাম জানিয়েছেন?


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা সম্মানিত দিবসসমূহের কথা স্মরণ করো, নিশ্চয়ই প্রত্যেক শোকর গোযার এবং ধৈর্য্যশীলদের জন্য রয়েছে নিদর্শন, ইবরত, নছীহত।” সেই মহাসম্মানিত দিনসমূহ উনাদেরকে স্মরণ করতে এগিয়ে যাই সম্মানিত ২২শে জুমাদাল ঊলা শরীফ উনার দিকে। সেই দিন



মহান আল্লাহ পাক উনার সবচেয়ে বেশি সন্তুষ্টি মুবারক হাছিলের বিশেষ মাধ্যম


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “হযরত সাহল ইবনে সা’দ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, যদি মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট দুনিয়ার মূল্য



নিজস্ব পরিচয় বা দাবির ভিত্তিতে নয় বরং পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র সুন্নাহ শরীফ উনাদের দৃষ্টিতে মু’মিন মুসলমান হতে


যিনি খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি উনার কালাম পবিত্র কুরআন শরীফ সূরা বাক্বারা শরীফ ১৩নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করে জানিয়ে দিয়েছেন যে, হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা যেরূপ ঈমান এনেছেন তদ্রƒপ অন্যান্য সকলকে



ইমামুর রবি’ সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আলী আওসাত যাইনুল আবিদীন আলাইহিস সালাম উনার ইল্ম ও পরহেযগারিতা


হযরত ইমাম যুহরী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি বলেছেন, আমি ইমামুর রবি’ সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম আলী আওসাত যাইনুল আবিদীন আলাইহিস সালাম উনার চেয়ে শ্রেষ্ঠ ফকীহ আর দ্বিতীয় কাউকে দেখিনি। অথচ তিনি খুব কম হাদীছ শরীফ বর্ণনা করেছেন। (তাযকিরাতুল হুফফাজ-১/৭৮) হযরত ইমাম আবু হাজিম



জামাত-শিবির মওদুদীবাদী বাতিল ফিরকার বইপত্র পড়লে আর পড়ালে ঈমান থেকে খারিজ হয়ে বেঈমান মুরতাদ হতে হবে


  বাতিল ফিরকা মওদুদীবাদী জামাত-শিবিরের পরিচালিত- শিবির অনলাইন লাইব্রেরীর মাধ্যমে শিশু-কিশোর যুব সমাজকে কঠিন ঈমান বিধ্বংসী কুফরী আক্বীদা শিখানো হচ্ছে প্রতিনিয়ত। যে ছাহাবা রদ্বিয়াআল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা হলেন ঈমানের মাপকাঠি। উনাদের মুবারক শানে অপবাদ দিয়ে ইহুদী, নাছারা, ফাসিক, ফুজ্জার, মুনাফিকদের রচিত



খাছ সুন্নতী বাল্যবিবাহ বন্ধে প্রশাসনের অতি-তৎপরতা মুসলিম সমাজে গণ বিস্ফোরণ সৃষ্টি করতে পারে


গত কয়েকদিন আগে পত্র-পত্রিকা বিশেষ করে ইহুদী-নাছারাদের দোসর অনলাইন পত্রিকাগুলো একটি খবর খুব হাইলাইট করে প্রচার করেছে। যেন বিশাল এক রাজ্য জয় করার মতো খবর। খবরটির মূল বিষয় ছিলো- মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার আটিগ্রামে বাল্যবিয়ে করানোর দায়ে মোশারফ হোসেন (৪৯) নামে এক