গোলামে মাদানী আক্বা -blog


...


 


অভাব মানুষের নিজের তৈরি


মহান আল্লাহ পাক মানুষকে পরিমিত রিযিক দিয়ে থাকেন। মহান আল্লাহ পাক তিনি অভাব মুক্ত তাই তিনি বান্দাকেও অভাব মুক্ত রাখেন। কখনো কখনো রিযিকের সঙ্কীর্ণতা দ্বারা বান্দাকে পরীক্ষা করে থাকেন। সাধারণভাবে মহান আল্লাহ পাক তিনি বান্দাকে কখনোই রিযিকের অভাবে রাখেন না। বান্দা



বিশ্ব কর্তৃত্বের আশায় বিশ্ব মিডিয়া নিয়ন্ত্রণ করছে ইহুদীরা। মূল টার্গেট পবিত্র দ্বীন ইসলাম এবং মুসলিমরা। মুসলিম বিশ্বের উচিত- এদের


বর্তমান মিডিয়া এমন একটি অপশক্তি, যা সাধারণ ভাষায় বলতে গেলে- ‘মিডিয়া একটি অঘোষিত প্রকাশ্য বিশ্বসন্ত্রাসী’। মিডিয়ার প্রভাবে এখন চিরসত্যও চিরমিথ্যাতে পরিণত হয়। আর এই সন্ত্রাসী মিডিয়া পরিচালনা করে কুখ্যাত ইহুদী সম্প্রদায়। ইহুদীদের ইশারায় সারা বিশ্বের সব মিডিয়া প্রভাবিত এবং তাদের সিডিউল



তথাকথিত জাতিসংঘের অধীনে এখনো ইসরাইল নামক অবৈধ রাষ্ট্র টিকে থাকে কী করে? ঘৃণ্য ইসরাইল এখন গোটা ফিলিস্তিনকে গ্রাস করতে


  গত শনিবার প্রকাশিত এক সংবাদে জানা গেছে, ফিলিস্তিনি ভূখ-ে ইসরাইলের বসতি স্থাপনের বিরুদ্ধে কড়া প্রস্তাব পাস করেছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। বিভিন্ন দিক থেকে তীব্র চাপ সত্ত্বেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রশাসন এ প্রস্তাবের বিরুদ্ধে কোনো ভেটো দিতে সম্মত হয়নি। যুক্তরাষ্ট্র



তাবলীগ সম্পর্কে কিছু তথ্য যার ব্যাখ্যা তাবলীগদের নিজেদেরও জানা নেই


১. তাবলীগরা “মুরুব্বি” শব্দটা বহুল ব্যবহৃত। তাবলীগের মুরুব্বিকে ইংরেজিতে এরা Elder বলে। আপনি কি জানেন এই মুরুব্বি বা Elder শুধু দুদল বেশি মান্য করে? ইহুদী ও তাবলীগরা। ১৯০৫ সালে ইহুদীদের “The protocol of the learned elders of Jews” বা “জ্ঞানী ইহুদী



কওমী গুরু মুফতী অামিনীর কাছে ঈদে মীলাদুন্নবী হারাম, খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন করা আরাম


প্রধানমন্ত্রীরা নেতৃত্বে বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি দিন দিন উজ্জ্বল হচ্ছে । _মুফতী ফজলুল হক আমীনি।স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে গতকাল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ইসলামী ঐক্যজোটোর চেয়ারম্যান মুফতী ফজলুল হক আমীনি এমপি তার সাথে সাক্ষাত করে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে



২৫শে ডিসেম্বরকে ‘বড়দিন’ নামে ডাকা হবে কোন যুক্তিতে ?


প্রথমেই বলে রাখি, এ পোস্টের উদ্দেশ্য সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ ছড়ানো নয়, বরং সাংবাদিক বা মিডিয়া যখন কোন কোন বিশেষ ধর্মের বিষয়গুলো উদ্দেশ্যমূলক প্রোমোট করে তখন তাদের সাম্প্রদায়িক উদ্দেশ্য নিয়ে সন্দেহ থেকেই বিভিন্ন প্রশ্নের উদ্রেক ঘটে। যেমন সামনে খ্রিষ্টাদের ধর্মীয় উৎসব ২৫শে ডিসেম্বর



দ্বীনি মেহনত‎দেওবন্দীদের আসল চেহারা – তাবলীগকে ‘নিরীহ’ বলে মনে করা আর সাপকে দড়ি ভেবে ভুল করা একই কথা


আমাদের দেশে তাবলীগীদের ‘নিরীহ’ বলে ধারণা করে থাকে অনেকেই। তাদের কথিত ইজতিমায় ক্ষমতাসীন দলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রধান ও নেতাকর্মীরা শরীক হয়। তাবলীগীদের আস্তানায় রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের যোগদানের সচিত্র খবর বিভিন্ন পত্র-পত্রিকাতে ফলাও করে প্রকাশিত হয়, টিভি মিডিয়ায় তা দেখানো হয়। ফলশ্রুতিতে



ফিলিপাইনে ২৫শে ডিসেম্বর আঘাত হানতে পারে শক্তিশালী টাইফুন


ফিলিপাইনে খ্রিস্টানদের ধর্মীয় অনুষ্ঠানের দিন একটি শক্তিশালী টাইফুন আঘাত হানতে পারে। দেশটির আবহাওয়া কর্মকর্তারা গতকাল এত তথ্য জানিয়েছে। ইউএস জয়েন্ট টাইফুন ওয়ার্নিং সেন্টার জানায়, আগামীকাল ইয়াওমুল আহাদ (রোববার) দ্বীপপুঞ্জটির প্রধান দ্বীপ লুজোনের পূর্ব প্রান্তে নক-টেন নামের টাইফুনটি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৪১ কিলোমিটার



মুসলিমরা ‘খ্রিস্টমাস ডে’ পালন করলে ৫ বছরের সাজা -ব্রুনাইয়ের সুলতান


  ব্রুনাইয়ের কোনো মুসলিম যদি ২৫ ডিসেম্বরের উৎসবে অংশ নেয় তাদের ৫বছরের কারা ভোগ করতে হবে। এমন কি, তারা যদি বড়দিনের কোনো গান গায় বা বড়দিনের কোনো ছবি ফেসবুকে আপলোড করে তাও এই শাস্তি বলবৎ থাকবে। ব্রুনাইয়ের বহুল জনপ্রিয় সুলতান হাসানাল



শুনুন শুনুন মহাজন! শুনুন দিয়া মন! মসজিদ নাপাক করা তাবলীগের কাহিনী করি গো বর্ণন…………


১) ছয় উছূলী তাবলীগের লোকজন মসজিদের মধ্যে অবস্থান নেয়। কিন্তু স্বাভাবিকভাবে ঘুমের মধ্যে তো সবার স্বপ্ন (!) একরকম থাকে না। আর তাই দলবেধে মসজিদে ঘুমিয়ে এই গোষ্ঠীটি দ্বারা হরহামেশাই নাপাকি ছড়িয়ে থাকে। ( বি:দ্র: মসজিদে ইতিক্বাফের নিয়ত ছাড়া থাকা জায়িজ নেই)



ঈমানে মূল্য কত জানেন?


আসুন একটা হিসাব করা যাক, পৃথিবীর ভর ৫.৯৭২৩৭x১০^২৪ কেজি। ১১.৬৬৪ গ্রাম = ১ ভরি ১ কেজি = ৮৫.৭৩৪ ভরি ৫.৯৭২৩৭x১০^২৪ কেজি = ৮৫.৭৩৪ x ৫.৯৭২৩৭x১০^২৪ ভরি = ৫১২.০৩৫x১০^২৪ ভরি = ৫,১২,০৩৫,০০,০০,০০০,০০,০০,০০০,০০,০০,০০০ ভরি। ৫ লাখ ১২ হাজার ৩৫ কোটি কোটি কোটি ভরি



লালন কে?? কি তার পরিচয়???


লালন ছিল বাউল সম্প্রদায়ের গুরু। আমরা কি জানি কারা এই বাউল সম্প্রদায়? কি তাদের ধর্মবিশ্বাস ও জীবনাচরণ? নব্বই ভাগ মুসলিম অধ্যুষিত একটি দেশে সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের ধর্মীয় বিশ্বাস ও মূল্যবোধের সাথে লালন ফকির বা বাউল সম্প্রদায়ের আচার-আচরণ, বিশ্বাস ও মূ্ল্যবোধ আসলে কতটুকু