মুহম্মদ মাহদিউল ইসলাম -blog


...


 


যে ঘরে বা স্থানে প্রকাশ্যে প্রাণীর ছবি, মূর্তি, ভাস্কর্য, ম্যানিকিন থাকে সেখানে রহমতের ফেরেশ্তা উনারা থাকেন না।


নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘যে ঘরে বা স্থানে প্রকাশ্যে প্রাণীর ছবি, মূর্তি, ভাস্কর্য, ম্যানিকিন থাকে সেখানে রহমতের ফেরেশ্তা উনারা থাকেন না।’ প্রাণীর প্রতিকৃতি যেকোনো উদ্দেশ্যে তৈরি করা হোক না কেন, সবই মূর্তির



মাতৃভূমির স্বার্থ বিলিয়ে এ কেমন বন্ধুত্ব?


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “স্বদেশের প্রতি মুহব্বত পবিত্র ঈমান উনার অঙ্গ।” বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশের স্বার্থের বিষয়ে বিদেশী রাষ্ট্রের সাথে কোনো আপোস করেনি। বাংলাদেশ



আবারো নাস্তিক ও ইসলামবিদ্বেষীদের হাতেই সিলেবাস ও শিক্ষানীতি


বাংলাদেশের শিক্ষা মন্ত্রণালয় নবম ও দশম শ্রেণির ১২টি বইয়ের মধ্যে বাংলা সাহিত্য বইটি পরিমার্জনের দায়িত্ব দিয়েছে নাস্তিক্যবাদী ও চরম ইসলামবিদ্বেষী শ্যামলীকে, ইংলিশ ফর টুডে বইয়ের দায়িত্ব দিয়েছে মনজুরুলকে, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বইয়ের দায়িত্ব দিয়েছে আখতারুজ্জামানকে, বাংলাদেশ ও বিশ্বসভ্যতা বইয়ের দায়িত্ব দিয়েছে



কাশ্মীর সংকট সমাধানে বঙ্গবন্ধু যা বলেছিলেন


১৯৪৭ সালে ভারত-পাকিস্তান দুটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে আত্মপ্রকাশের পর থেকেই কাশ্মীর সমস্যা শুরু। কাশ্মীরের একটি অংশ পাকিস্তানের সাথে সংযুক্ত। আরেকটি অংশ তথা কাশ্মীর ও জম্মুর জোরপূর্বক দখল নেয় ভারত। দুই কাশ্মীরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংকট ভারত দখলকৃত জম্মু-কাশ্মীর ঘিরেই। কাশ্মীর সংকট



মুসলমানদের একটি মর্মান্তিক ইতিহাস ‘পহেলা এপ্রিল’


“এপ্রিল ফুল” বাক্যটা মূলত ইংরেজি। অর্থ- এপ্রিলের বোকা। এপ্রিল ফুল ইতিহাসের এক হৃদয় বিদারক ঘটনা। প্রতি বছর পহেলা এপ্রিল এলেই একে অপরকে বোকা বানানো এবং নিজেকে চালাক প্রতিপন্ন করার জন্য এক শ্রেণীর লোকদের বিশেষভাবে তৎপর হয়ে উঠতে দেখা যায়। বলাবাহুল্য, তারা



জনসংখ্যার নিম্নহার সমস্যায় ভুগছে বেশ কয়েকটি দেশ


বর্তমানে জনসংখ্যার নিম্নহার সমস্যায় ভুগছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ, যেমন জার্মানি, লাটভিয়া। জাপানের নিম্ন জন্মহার তো এখন সরকারের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে ১৯৫০ সালে চীনের জন্মহার ছিল ব্যাপক। ফলে জনসংখ্যা ৫০ কোটি থেকে বেড়ে ১৪০ কোটিতে পৌঁছে যায়। এরপর জন্মহার কমাতে



মুনাফিকের অন্যতম একটা বৈশিষ্ট্য হলো গালি দেয়া।


ভালো মানুষ কখনো গালি দেয় না। দিতেই পারে না। কারো প্রতি রাগান্বিত হলেও সে খারাপ ভাষা ব্যবহার করে না। ভালো মানুষের রাগ প্রকাশের ভঙ্গিটাও হয় সুন্দর ও সংযত। পক্ষান্তরে মন্দ মানুষ যখন রাগান্বিত হয় তখন সে ভুলে যায় ভদ্রতা এবং তার



পবিত্র আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনারা সকল মিছালের উর্ধ্বে। সুবহানাল্লাহ!


এ প্রসঙ্গে পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- قَالَ النَّبِىُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ نَـحْنُ اَهْلُ الْبَيْتِ لَايُقَاسُ بِنَا اَحَدٌ অর্থ : নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- আমরা, পবিত্র আহলু বাইত



দেহের মধ্যে যারা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম কায়িম করতে পারে না, তারা কিভাবে দেশে ইসলাম কায়িমের কথা বলে?


আজকে কী বাংলাদেশ, কী পাকিস্তান, কী ভারত কিংবা অন্য অনেক অনেক মুসলিম অধ্যুষিত দেশে এমন অনেক অনেক ইসলামী দলের নেতা পাওয়া যায়, যারা সমাজে নিজেদের প্রাধান্য বিস্তার করার জন্য বলে থাকে, তারা সমাজে, দেশে কিংবা বিশ্বে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম কায়িম করার



হযরত আহলে বাইত ও আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের বিরোধিতাকারীরা জাহান্নামী


বিখ্যাত ছাহাবী হযরত ইবনে আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- لوان رجلا صعد بين الركن والمقام فصلى وصام ثم مات وهو مبغض لاهل بيت النبى صلى الله



নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছামিনাহ্ আলাইহাস সালাম


প্রথম শাদী মুবারক উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছামিনাহ্ আলাইহাস সালাম উনার প্রথম শাদী মুবারক স্বীয় গোত্রর হয় মুসাফি’ ইবনে ছাফ্ওয়ান মুছত্বলিক্বী খুযা‘য়ীর সাথে। সে একজন অনেক বড় যোদ্ধা এবং প্রসিদ্ধ কবি ছিলো। সে বনূ মুছ্ত্বলিক্বের জিহাদে কাফির অবস্থায় নিহত হয়।



উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছালিছাহ্ ‘আশার আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বরকতময় নসবনামাহ্ মুবারক


উম্মুল মু’মিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত আছ ছালিছাহ্ ‘আশার আলাইহাস সালাম উনার উনার মহাসম্মানিত পিতা হচ্ছেন সাইয়্যিদুনা হযরত খুযাইমাহ্ ইবনে হারিছ আলাইহিস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ! তিনি উনার মহাসম্মানিত পিতা উনার দিক থেকে ১৮তম মহাসম্মানিত পুরুষে যেয়ে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি