মালিক ভরসা -blog


...


 


সুমহান মহাপবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ উনার ১, ২, ৫, ৮, ১০, ১২, ১৬, ২৩, ২৫, এবং ২৬ তারিখ সম্মানিত


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘মহান আল্লাহ পাক উনার নিদর্শন সম্বলিত দিবসগুলিকে স্মরণ করিয়ে দিন সমস্ত কায়িনাতকে। নিশ্চয়ই এর মধ্যে ধৈর্যশীল ও শোকরগোজার বান্দা-বান্দী উনাদের জন্য ইবরত ও নছীহত রয়েছে।’ সুবহানাল্লাহ! মহাপবিত্র ও মহাসম্মানিত মুর্হরমুল হারাম শরীফ মাস উনার



মুসলমানগণের জন্য শ্রমিক দিবসসহ কাফির-মুশরিকদের কোনো দিবসই পালন করা জায়িয নেই


ইহুদী-নাছারারা শ্রমিকদের স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য ‘পহেলা মে’ শ্রমিক দিবস পালন করে থাকে। তারা মহিলা অধিকার রক্ষার জন্য মহিলা দিবস পালন করে থাকে। তারা বিশ্ব বাবা দিবস, মা দিবস, ভালবাসা দিবস, থার্টি ফার্স্ট নাইট, হাত ধোয়া দিবস, নার্স দিবস ইত্যাদি পালন করে



পহেলা বৈশাখ করলে পালন হবে বরবাদ জিন্দেগীর সব আমল


ফসলী সন তথা কথিত বাংলা সনের প্রথম দিন পহেলা বৈশাখ মূলত বিজাতীয়-বিধর্মীদের উৎসব। পহেলা বৈশাখের আগের দিন চৈত্র সংক্রান্তি পূজা আর পহেলা বৈশাখ হলো ঘটপূজা, গনেশ পূজার দিন। বৌদ্ধরা এই দিন উল্কি পূজা করে। মজূসীরা (অগ্নি উপাসকরা) এই দিন নওরোজ উৎসব



মহান আল্লাহ পাক তিনি নিজেই সাক্ষ্য দিচ্ছেন- মুসলমানদের সবচেয়ে বড় শত্রু হচ্ছে ইহুদী ও মুশরিক গোষ্ঠ


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, لَتَجِدَنَّ أَشَدَّ النَّاسِ عَدَاوَةً لِّلَّذِينَ آمَنُوا الْيَهُودَ وَالَّذِينَ أَشْرَكُوا অর্থ: (আয় আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম!) “আপনি মু’মিন উনাদের জন্য মানুষদের মধ্যে সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে পাবেন ইহুদীদেরকে। অতঃপর যারা মুশরিক তাদেরকে।” (পবিত্র



সুমহান ঈদে মীলাদে হাবীবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনই সর্বশ্রেষ্ঠ আমল


সুমহান ঈদে মীলাদে হাবীবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তথা সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনই সর্বশ্রেষ্ঠ আমল يايها الناس قد جاءتكم موعظة من ربكم وشفاء لـما فى الصدور وهدى ورحمة للمؤمنين. قل بفضل الله وبرحمته فبذالك فليفرحوا هو خير مـما يجمعون. তরজমা: হে



পবিত্র ১০ই মুহররমুল হারাম শরীফ বা পবিত্র আশূরা শরীফ দিনের বিশেষ বিশেষ ওয়াকিয়াসমূহ


এই বরকতময় পবিত্র ১০ই মুহররমুল হারাম শরীফ উনার দিনেই সৃষ্টির সূচনা হয় এবং এই দিনেই সৃষ্টির সমাপ্তি ঘটবে। বিশেষ বিশেষ সৃষ্টি এ বরকতময় দিনেই করা হয় এবং বিশেষ বিশেষ ঘটনা এ বরকতময় দিনেই সংঘটিত হয়। যেমন :- এ দিনেই মহান আল্লাহ



আল আয্হার, আল আমান, আল হাই, যুল ওয়াসীলাহ, খইরুল আলামীন, সাইয়্যিদুছ ছাক্বলাইন, ছাহিবুল কাওছার, আল গালিব, মালিকু জামিয়িন নি‘য়াম,


সম্মানিত যাবীহুল্লাহ লক্বব মুবারক সম্পর্কে কিছু পর্যালোচনা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সম্মানিত ও পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, اَنَا ابْنُ الذَّبِـيْحَيْنِ অর্থ: “আমি দুই যাবীহুল্লাহ আলাইহিমাস সালাম উনাদের সন্তান।” সুবহানাল্লাহ! (শারফুল মুস্ত¡ফা,



মহাসম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সংশ্লিষ্ট রাত মুবারক উনাদের মর্যাদা-মর্তবা, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক লক্ষ কোটি শবে


একমাত্র যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি অর্থাৎ উনারা ব্যতীত সমস্ত জিন-ইনসান, তামাম কায়িনাতবাসী সকলের জন্য ফরযে আইন হচ্ছে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ



উম্মুল মু’মিনীন আস সাবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র লক্বব মুবারক


মালিকাতুল কায়িনাত, ক্বায়িদাতুল্লাহ ওয়া ক্বায়িদাতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি ‘আলাল ‘আলামীন, আফদ্বলুন নাস ওয়ান নিসা’ বা’দা রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উম্মুল মু’মিনীন আস সাবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত আত্বওয়ালু ইয়াদান আলাইহাস সালাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র লক্বব মুবারক মহান



ইমামুল আউওয়াল সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র দ্বীন ইসলাম গ্রহণ


পবিত্র তাফসীরে তাবারী শরীফ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে- নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত নুবুওওয়াত আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশের দশ বছর পূর্বে সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহিস সালাম তিনি পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। উনার পবিত্র বিলাদতী



আহলু বাইতি রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, সিবত্বতু মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম, জান্নাতী মেহমান, সাইয়্যিদাতুল উমাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত শাহ


সিবত্বতু মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম, জান্নাতী মেহমান, সাইয়্যিদাতুল উমাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত শাহ নাওয়াসী আর রবি’য়াহ আলাইহাস সালাম তিনি হচ্ছেন সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাস্সাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস



লআকরামুল আউওয়ালীন ওয়াল আখিরীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উনার মহাসম্মানিত হযরত আহলু


إِنَّ شَانِئَكَ هُوَ الْأَبْتَرُ অর্থ: “আপনার শান মুবারক বিরোধীরাই নির্বংশ তথা লাঞ্চিত ও অপমানিত।” (পবিত্র সূরা কাওছার শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ-৩) অর্থাৎ যে বা যারা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি যথাযথ তা’যীম প্রদর্শন করবে