সুলতান -blog


আমার প্রথম শত্রু ইহুদী এরপর হিন্দু এরপর খ্রিস্টান এরপর তাবত অমুসলিমরা


 


কোনো সরকারই এ যাবৎ ‘চিকেনস নেক’-এর গুরুত্ব বুঝেনি। বাংলাদেশের উপর ভারতের প্রাধান্যের পরিবর্তে বাংলাদেশই ভারতের উপর প্রাধান্যের প্রভাব বিস্তারের


বাংলাদেশের দুই নদীপথে খননকাজ করার ব্যাপারে ভারতের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। দুটি নদীপথের ৪৭০ কিলোমিটার খনন করা হবে। এতে ব্যয় হবে ৩০৫ কোটি রুপি। যার ২৪৪ কোটি রুপিই ঋণ হিসেবে দেবে ভারত। চলতি ২০১৭ সালেই দরপত্র আহ্বান করা হবে। সেখানে বাংলাদেশের পাশাপাশি



মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ‘ফালইয়াফরহূ শরীফ’ সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উপলক্ষে বাদশাহ হযরত মালিক মুযাফ্ফার রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার খরচ মুবারক


বিশ্বখ্যাত ইমাম ও মুজতাহিদ, মুহাদ্দিছ, মুফাসসির, ফখরুল আউলিয়া ওয়াল মাশায়িখ, শাইখুল ইসলাম হযরত ইমাম আল্লামা আবুল ফারাজ নূরুদ্দীন আলী ইবনে ইবরাহীম ইবনে আহমদ ইবনে ‘আলী ইবনে ‘উমর হালাবী মিছরী ক্বাহিরী শাফিয়ী রহমতুল্লাহি আলাইহি, যিনি হযরত আলী নূরুদ্দীন ইবনে বুরহানুদ্দীন হালাবী রহমতুল্লাহি



ট্যানারির বর্জ্য থেকে শিল্প গড়ে তোলার পরামর্শ


কসাইখানার ‘বর্জ্য-চামড়া দিয়ে যেমন ট্যানারি শিল্প গড়ে উঠেছে তেমনি ট্যানারি শিল্পের বর্জ্য দিয়েও লাভজনক শিল্প গড়ে তোলা সম্ভব। এমন দাবির প্রেক্ষিতে সরকারকে পাইলট প্রকল্প হাতে নিয়ে এ ধরনের উদ্যোগ যাচাই বাছাই করার পরামর্শ দিচ্ছেন পরিবেশ ও অর্থনীতিবিদরা। আর বর্জ্য ব্যবস্থাপনার এমন



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পক্ষ থেকে আযীমুশ শান সম্মানিত সম্মানিত নিসবতে আযীম শরীফ-এ


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ‘আযীমুশ শান নিসবতে ‘আযীম শরীফ-এ হাদিয়া মুবারক: বিভিন্ন কিতাবের বর্ণনা অনুযায়ী নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পক্ষ থেকে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ‘আযীমুশ শান নিসবতে ‘আযীম শরীফ-এ উম্মু আবীহা, আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত



অশ্লীলতা ও বিকৃতরুচিতে ভরপুর মূর্তিপূজকদের গোটা সমাজজীবন


“সেকালে বাঙালীদের (মূর্তিপূজকদের) মধ্যে ‘শাশুড়ে’ এবং ‘বৌও’ বলিয়া দুটি গালি শোনা যাইত, উহার প্রথমটির অর্থ শাশুড়িরত, ও দ্বিতীয়টির অর্থ পুত্রবধূরত। শ্বশুর-পুত্রবধূর ব্যাপার সম্ভবত খুব কমই দেখা যাইত, কিন্তু শাশুড়ি-জামাই ঘটিত ব্যাপার বিরল ছিল না।” (সূত্র: বাঙালি জীবনে রমণী, নীরদ সি চৌধুরী,



ঢাকার নদীগুলো বাঁচাতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কঠিন হলেও, কঠিন নয় নদীতে মূর্তি বিসর্জন ঠেকানো; প্রয়োজন আদালতের একটি আদেশ


সাধারণ মানুষ ও প্রশাসনের অসচেতনতা ও অপরিকল্পিত কার্যকলাপের কারণে নগরের চার পাশে থাকা বুড়িগঙ্গা, তুরাগ, বালু ও শীতলক্ষ্যা নদীর প্রতিবেশ ব্যবস্থা বছরের পর বছর ভয়াবহ সঙ্কটের দিকে ধাবিত হচ্ছে। ভবিষ্যতে নদীগুলো অস্তিত্ব সঙ্কটে পড়ার আশঙ্কা দেখা যাচ্ছে। একদিক থেকে দেখা যাচ্ছে,



ত্বহিরা, ত্বয়্যিবাহ, সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, উম্মু মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহাস সালাম উনাকে মুহব্বত মুবারক করা পবিত্র


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- لَا يَدْخُلُ قَلْبَ امْرَئِ ۣ الْاِيْـمَانُ حَتّٰى يُـحِبَّهُمْ لِلّٰهِ وَلِقَرَابَتِـىْ অর্থ: কোন লোকের অন্তরে ততক্ষণ পর্যন্ত ঈমান প্রবেশ করবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত তারা



আবারও চাঁদ নিয়ে ইফা ও ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর ছলচাতুরী


মুজাদ্দিদে আযম সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম উনার উছিলায় ঈদের দিনেও রোজা রাখার মত হারাম ও নাজায়িজ কাজ থেকে রক্ষা পেলো কোটি কোটি মুসলমান মাত্র ১ মাস আগেই পবিত্র শাবান শরীফ মাস নিয়ে ইফা ও ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর চাঁদ নিয়ে ভুল



পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ পালন করা সুন্নত; বিদয়াত বলা কুফরী


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, والذين اتبعوهم باحسان رضى الله عنهم ورضوا عنه অর্থ: “হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদেরকে যারা উত্তমভাবে অনুসরণ করবে, মহান আল্লাহ পাক তিনি তাদের প্রতিও সন্তুষ্ট হবেন এবং তারাও মহান আল্লাহ পাক উনার



সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল আলামীন, উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি উনার সম্মানিত বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করার


এই সম্পর্কে সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, عَنْ ام المؤمنين حضرت سَلْمَى عليها السلام قَالَتِ اشْتَكَتْ سيدتنا حضرت فَاطِمَةُ بِنْتِ رَسُولِ اللهِ صلى الله عليه وسلم شَكْوَاهَا الَّتِى قُبِضَتْ فِيهِ فَكُنْتُ أُمَرِّضُهَا فَأَصْبَحَتْ يَوْمًا كَأَمْثَلِ مَا رَأَيْتُهَا فِى



আসন্ন পবিত্র ঈদুল আদ্বহা উপলক্ষে ঢাকা শহরে প্রত্যেক পাড়া-মহল্লায় পশুর হাট চাই-


সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে প্রতিবছরই কুরবানীর পশুর চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু কুরবানীর হাটের সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে না। এতে করে প্রতিবারই মুসলমানরা অত্যন্ত দুর্ভোগ ও বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন। মাত্র কয়েক দিনে লক্ষ লক্ষ গরু-ছাগল আনা নেয়া, বিক্রি ইত্যাদি কাজকে আরো সুন্দরভাবে ব্যবস্থাপনা



মুবারক হো মহিমান্বিত পবিত্র সুমহান ২৯শে শা’বান শরীফ


  খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি জিন-ইনসান উনাদেরকে খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার বিশেষ বিশেষ দিন সম্পর্কে জানিয়ে দিন, বুঝিয়ে দিন,