মেঘমালা -blog


...


 


মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ২২শে জুমাদাল উলা শরীফ কি এবং এ দিবসে কি করা হয়?


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- وَذَكِّرْهُمْ بِاَيَّامِ اللهِ اِنَّ فِـىْ ذٰلِكَ لَاٰيٰتٍ لِّكُلِّ صَبَّارٍ شَكُوْرٍ অর্থ: “আর আপনি তাদেরকে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র আইয়্যামুল্লাহ শরীফ তথা মহান আল্লাহ পাক উনার মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র বিশেষ বিশেষ দিন



পবিত্র কুরআন শরীফ উনার বর্ণনার আলোকে হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদের ফযীলত মুবারক


‘পবিত্র সূরা ফাত্হ শরীফ’ উনার ২৯ নং পবিত্র আয়াত শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথী অর্থাৎ হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা কাফিরদের প্রতি কঠোর। নিজেদের পরস্পরের মধ্যে সহানুভূতিশীল।



আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা হযরত হাদিউল উমাম আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করার সুমহান দিবস


‘জুমাদাল ঊলা’ মাস সম্মানিত মাস। মুবারক মাস। কারণ এ মাসেরই ৯ তারিখ পবিত্র বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন বর্তমান যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, গাউসুল আ’যম, আওলাদে রসূল, রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার লখতে জিগার, ছানী আওলাদ,



জাতির মেরুদণ্ডে পচন ধরেছে!


একটি বাক্য। একটি বুলি। এটা সবাই জানে। “শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড-”। কিন্তু এই মেরুদন্ড- এখন কেমন আছে, কোনো অবস্থায় আছে- এটা নিয়ে কি বাঙালি মুসলমানদের যে কোনো ভাবনা নেই, এটা বুঝার জন্য বেশি দূরে যাওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। আপনি আপনার সন্তানের বা



যালূমান জাহূলান


‘যালুমান, জাহূলান’ শব্দ দুটি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে উল্লেখিত হয়েছে। শাব্দিক অর্থ যালিম ও জাহিল। যালিম অর্থ- যুলুমকারী আর জাহিল অর্থ- অজ্ঞ ও মূর্খ। শব্দ দুটি দ্বারা প্রথমতঃ কাফিরদেরকে বুঝানো হয়েছে। কেননা কাফির-মুশরিকরা তারা সন্দেহাতীতভাবে যালিম ও জাহিল। ফলে তারা



মুশরিকরা কখনোই ঈমানদারদের সাহায্যকারী বা বন্ধু হতে পারে না


সভা-সমাবেশ সর্বত্র খুব জোর দিয়ে বলা হয়, মুশরিকরা আমাদের খুব ভালো প্রতিবেশী ও বন্ধু। তারা আমাদের সাহায্যকারী। তাদের সাহায্য ছাড়া আমরা মুসলমানরা না খেয়েই মরবো। নাউযুবিল্লাহ! এটা কি কোনো ঈমানদার বান্দার কথা হতে পারে! হ্যাঁ, যারা মহান আল্লাহ পাক উনাকে এবং



মুসলমান-ঈমানদারগণই সর্বোচ্চ সম্মান ইজ্জতের অধিকারী


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “নিশ্চয়ই সমস্ত ইজ্জত সম্মান মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য এবং তিনি সবকিছু শোনেন ও জানেন।” (পবিত্র সূরা ইউসুফ শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ৬৫) মহান আল্লাহ পাক তিনি আরো ইরশাদ মুবারক করেন, “মহান আল্লাহ



এদেশে রাজনৈতিক পিতার সমালোচনা করলে শাস্তি হয়, কিন্তু দ্বীন ইসলাম নিয়ে কটূক্তি করলে শাস্তি হয় না!!


দেশের মানুষ এখন অনেক বেশি রাজনীতিতে সচেতন হয়েছে, আইন আদালতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়েছে, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের সম্মান দিতে শিখেছে। তাইতো এদেশে কোনো রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের সমালোচনা হলে, কটূক্তি করা হলে প্রশাসন তাদের হন্যে হয়ে খুঁজে, তাদের জেল দেয়, জরিমানা দেয়। কেউ আদালত অবমাননা



পবিত্র ‘ঈমানী কুওওয়াত’ উনার বৃদ্ধির জন্য দরকার নিয়মিত ক্বলবী জিকির করা


বর্তমান সময়ে মুসলমানদের চেপে ধরেছে কাফির-মুশরিকরা। কিন্তু মুসলমানরা কাফির-মুশরিকদের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নিতে পারছে না, জবাব দিতে পারছে না। এর মূল কারণ হচ্ছে বর্তমানে মুসলমানদের ঈমানী শক্তি বা কুওওয়াত শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে। মুসলমানগণ চাইলেও কাফিরদের বিরুদ্ধে কিছু করতে পারছে না।



অক্ষরজ্ঞান শিক্ষার নামে ইসলামবিরোধী চর্চা!!


নতুন পাঠ্যবইয়ের মধ্যে অনেক সময়ই দেখা যায় অসংখ্য ইসলামবিরোধী ও মুসলিম সংস্কৃতির বিপরীত বিষয়। তন্মধ্যে শুধুমাত্র বর্ণ পরিচয় বা অক্ষর জ্ঞান অংশেই যে সকল ইসলামবিরোধী ও বিধর্মীয় বিষয় শেখানো হচ্ছে তার একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা এখানে তুলে ধরা হলো- ১) ঋ-তে শেখানো



‘উলুধ্বনি’কেও মূর্খরা হালাল বলতে চায়!!!


কিছু মূর্খ আছে বলে থাকে “শব্দের সঙ্গে ধর্মের কি সম্পর্ক? শব্দ একটি ভাষা আর ভাষা হলো সাহিত্য। এসব জাহিলরা আরও বলে- কা’বা শরীফে গিয়েও তো উলুধ্বনি দেয়া হয়।” নাউযুবিল্লাহ! নাউযুবিল্লাহ! নাউযুবিল্লাহ! ভুলে গেলে চলবে না- ‘শব্দ’ অবশ্যই দ্বীন/ধর্মের সাথে সম্পর্কযুক্ত এবং



সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আত তাসিয়াহ আলাইহাস সালাম উনার সাওয়ানেহ উমরী মুবারক


পরিচিতি মুবারক: সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মুল মু’মিনীন আত তাসিয়াহ আলাইহাস সালাম উনার নাম মুবারক হযরত রায়হানা বিনতে শামউন বিন যায়িদ আলাইহাস সালাম। তিনি ইয়াহুদী সম্প্রদায়ভূক্ত ছিলেন। তিনি পিতার দিক থেকে বনু নাদ্বীর গোত্রের এবং আহালের দিক থেকে বনু কুরায়জা