মহানন্দা -blog


...


মহানন্দা
 


অ্যাস্ট্রোনমারদের গবেষণায় নির্ভুলভাবে প্রমাণ হয় ১২ই রবিউল আউয়াল-ই হচ্ছে নবীজির আগমণ (জন্ম) এর দিন


অ্যাস্ট্রোনমারদের গবেষণায় নির্ভুলভাবে প্রমাণ হয় ১২ই রবিউল আউয়াল-ই হচ্ছে নবীজির আগমণ (জন্ম) এর দিন নবীজির বিদায় গ্রহণের দিন ছিলো: হিজরী সন: ১১ হিজরীর ১২ই রবিউল আউয়াল ঈসায়ী সন: ৬৩২ সাল, ৮ই জুন বার: সোমবার **(১ নং দ্রষ্টব্য দেখুন) Back Calculation করে



মসজিদ আল-আকসা ও ডোম অফ দ্য রক


মসজিদ আল-আকসা ও কুব্বাত আস-সাখরাহ:   ৬৩৭ খ্রিষ্টাব্দে মুসলিমরা বাইজেন্টাইন অধীনস্থ জেরুজালেম নগরী জয় করে। ইসলামের প্রথম কিবলা এবং মি’রাজের সাথে সম্পর্কিত জেরুজালেম (আরবী নাম আল-কুদস القدس al-Quds – The Holy One) ইসলামের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান হিসেবে বিবেচিত। পুরনো জেরুজালেমে অবস্থিত



সন্তানসম্ভাবা মহিলাদের কতিপয় আমল:-


প্রথম মাসে সূরা-আলে ইমরান পড়লে সন্তান দামী হবে। দ্বিতীয় মাসে সূরায়ে ইউসুফ পড়লে সন্তান সুন্দর হবে। তৃতীয় মাসে সূরায়ে মারয়াম পড়লে সন্তান সবরকারী হবে। চতুর্থ মাসে সূরায়ে লোকমান পড়লে সন্তান হেকমত ওয়ালা হবে। পঞ্চম মাসে সূরায়ে মুহাম্মাদ পড়লে সন্তান চরিত্রবান হবে।



নাস্তিক ও সংশয়বাদীরা ভাববে কী


মহাজ্ঞানী স্রষ্টা তিনি যা হারাম করছেন তা আপনার যুক্তি দিয়ে আটকানোর চেষ্টা করা আর তলোয়ার দিয়ে সাগরের পানি দুইভাগ করার চেষ্টা সমান। আল্লাহকে ভয় করুন, হারাম হালাল মেনে চলুন।



হযরত ইমাম বুখারী রহমতুল্লাহি আলাইহি জন্মঅনুষ্ঠান বা মীলাদ শরীফ পালন করার হাদীছ বর্ণনা করেছেন


পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবী অস্বীকারকারীরা বলে হযরত ইমাম বুখারী রহমতুল্লাহি আলাইহি কি এই অনুষ্ঠান পালন করার কথা কোন হাদীছ শরীফে এনেছেন? আর জন্মদিন পালন করা খৃষ্টানদের কালচার। আপনারা কেন তা পালন করেন? মজার কথা হলো আমীরুল মু’মিনিন ফিল হাদীছ হযরত ইমাম



আসল সন্ত্রাসী কারা? মুসলমানরা, নাকি কাফিররা?


১. হিটলার ১ কোটি ১০ লক্ষ মানুষকে হত্যা করেছিলো। সে কিন্তু মুসলিম ছিলো না, ছিলো খ্রিস্টান। ২. জোসেফ স্টালিন ২ কোটি মানুষকে হত্যা করেছিলো। সেও মুসলমান ছিলো না। নাস্তিক দাবি করতো। ৩. মাওসেতুং দেড় থেকে ২ কোটি মানুষকে হত্যা করেছিলো। সেও



মুনাফিক ধ্বংসের জন্য বদ-দোয়া করুন প্রতিনিয়ত


হে দেশপ্রেমিক মুসলমান! নিজের প্রিয় দ্বীন- পবিত্র ইসলামের অস্তিত্ব রক্ষায় সবাই মহান আল্লাহ পাকের শাহী দরবারে হাত তুলুন- গুমরাহ শাসক, মুনাফিক, ধর্মব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে। গুমরাহ শাসক ও মুনাফিকরা এবার দেশের মাদরাসা শিক্ষা থেকে ‘জিহাদ বিষয়ক অধ্যায়’ বাদ দিয়ে ২০১৮ সালের বই ছাপাচ্ছে।



রকেট/ক্ষেপণাস্ত্র তৈরিতে পথপ্রদর্শক টিপু সুলতান। পরে ওই প্রযুক্তিই গ্রহণ করে ইউরোপীয়রা


মহীশূরের মহান মুসলিম শাসক ও বৈজ্ঞানিক টিপু সুলতানের প্রশংসা করে উগ্র সাম্প্রদায়িক হিন্দুদের তোপের মুখে ভারতের রাষ্ট্রপতি। যা ভারতীয় অসাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মনিরপেক্ষতার ‘উজ্জ্বল’ দৃষ্টান্ত। কিন্তু কথায় বলে- ‘সত্য চেপে রাখা যায় না’। উগ্র সাম্প্রদায়িক হিন্দুরা যতই হিংসা প্রকাশ করুক সত্য প্রকাশ হবেই



খেলার অন্তরালের খেলা


ক্রিকেট-ফুটবল-হকি (অর্থাৎ যাবতীয় খেল-তামাশা), গান-বাজনা, নাটক-সিনেমা-টিভি, অভিনয়-মডেলিং ইত্যাদির মানে  হলো:- জুয়া, মদ, অবৈধ নারী সম্ভোগ, অবৈধ অর্থ, লুচ্চা, লম্পট, পতিতা, বেহায়া, বদ-চরিত্র, মারামারি, খুনাখুনি, সন্ত্রাস ইত্যাদি। দেশপ্রেমিক হলে তা বুঝতো দেশের কর্ণধাররা। কিন্তু তারা বিভ্রান্ত, মুনাফিক ও দালাল হওয়ায় উল্টো বলে-



খেলাধুলা ও যৌনতা পরিপূরক


ক্রিকেট-ফুটবলারদের (অর্থাৎ খেলোয়ারদের) যৌন কুকীর্তি নতুন কিছু নয়৷ ফুটবল/ক্রিকেট আর যৌনতা যেন সেলিব্রিটি খেলোয়াড়দের জীবনে আষ্টেপিষ্টে জড়িয়ে রয়েছে৷ পর্যালোচনা করলে দেখা যাবে, যে প্লেয়ার যত বড়, তার যৌন কুকীর্তি ততটাই বেশি৷ ফুটবল-ক্রিকেট সংস্কৃতির (অর্থাৎ খেলাধুলার) সঙ্গে যেন পরিপূরক হয়ে গিয়েছে খোলোয়ারদের



যেভাবে হাতছাড়া স্বাধীন আরাকান


========== আজকের নির্যাতিত আরাকানের মুসলমানদের রয়েছে গৌরবময় অতীত। একসময় আরাকান রাজ্যের রাজা বৌদ্ধ হলেও সে মুসলমান উপাধি গ্রহণ করতো। তার মুদ্রায় ফারসি ভাষায় লেখা থাকত কালেমা শরীফ।   আরাকান রাজদরবারে কাজ করতেন অনেক বাঙালি মুসলমান। বাংলার সঙ্গে আরাকানের ছিল গভীর রাজনৈতিক



মালউন কা বাচ্চা, কভি ন্যাহি সাচ্চা


সংসদকে নির্দেশ দেয়ার ক্ষমতা সুপ্রিম কোর্টের নেই: এস.কে সিনহা বিরাগের বশবর্তী হয়ে রায় দিয়েছে -খায়রুল আইন কমিশনের চেয়ারম্যান ও প্রাক্তন প্রধান বিচারক এবিএম খায়রুল হক আবারো বলেছেন, ‘প্রধান বিচারক এস.কে সিনহা সে বিরাগের বশবর্তী হয়ে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় দিয়েছে।’