মুহিউদ্দীন -blog


...


 


দ্বীন ইসলাম উনার অন্যতম শিয়ার পবিত্র মসজিদ উচ্ছেদ ও ভাঙার ষড়যন্ত্রকারীরা দ্বীন ইসলাম উনার শত্রু


বর্তমানে ইহুদী-খ্রিস্টান, কাফির-মুশরিক ও তাদের এজেন্ট মুনাফিক্বরা একাত্ম হয়েছে পৃথিবীর বুক থেকে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ও সম্মানিত মুসলমান উনাদের নাম নিশানা মুছে দেয়ার জন্য। না‘ঊযুবিল্লাহ! তাই তারা তাদের সে অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছার জন্য একের পর এক সর্বঘৃণ্য ও সর্বনিকৃষ্ট ষড়যন্ত্র করে



পহেলা বৈশাখে যে সকল শরীয়তবিরোধী কাজ হয়।


সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার ফায়ছালা মুবারক অনুযায়ী পহেলা বৈশাখ বা বাংলা নববর্ষ সংক্রান্ত যাবতীয় অনুষ্ঠান সম্পূর্ণ হারাম। আর তা এজন্য যে এতে অনেকগুলি সম্মানিত দ্বীন ইসলাম বিরোধী বিষয় রয়েছে, তান্মোধ্য কতিপয় বিষয় হলো: ১. শিরকপূর্ণ অনুষ্ঠানাদি, ২. হারাম চিন্তাধারা, ৩. গান



পবিত্র যাকাত আদায়ের বিষয়ে চু-চেরা করা ঈমানদারের লক্ষণ নয়


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মাঝে একটি ঘটনা বর্ণিত আছে। ঘটনাটি পর্দার হুকুম নাযিল হওয়ার পূর্বের ঘটনা। যখন মহিলা ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নছীহত মুবারক শুনতে সরাসরি আসতেন। সেই সময়



যারা বাল্যবিবাহ বন্ধ চায়, তারা কি সমাজকে নষ্ট করতে চায়?


সম্প্রতি কিছু এনজিও দালাল বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে উঠেপড়ে লেগেছে। অথচ যখন ১৮ বছরের নিচের ছেলে-মেয়েরা অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ছে, বাবা-মার অমতে পালিয়ে বিয়ে করছে, লিভটুগেদার করছে, পর্নোগ্রাফিতে আসক্ত হচ্ছে, গর্ভপাত করছে তখন এই দালালরা মুখ খুলছে না, কথা বলছে না। প্রকৃতপক্ষে



শরীয়ত বিরোধী ইজতিহাদ করা ইবলিসের খাছলত ও সুস্পষ্ট গোমরাহী 


  আবুল বাশার হযরত ছফিউল্লাহ আলাইহিস সালাম উনাকে সিজদা না করার কারণে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইবলীসকে জিজ্ঞাসা করলেন, مَا مَنَعَكَ أَلَّا تَسْجُدَ إِذْ أَمَرْتُكَ অর্থ:- “(হে ইবলীস) কোন জিনিস সিজদা করা থেকে তোকে বিরত রাখলো।” (পবিত্র সূরা আরাফ শরীফ, পবিত্র



সন্ত্রাসী উপজাতিদের এ দেশ থেকে বিতাড়িত করলেই পাহাড়ে শান্তি ফিরে আসবে


বাংলাদেশের স্বাধীনতার পূর্ব থেকেই বার্মা, নেপাল, ভারত প্রভৃতি দেশ থেকে আসা উপজাতিরা বাংলাদেশের পাহাড়গুলোতে খুঁটি গেড়েছিল। তৎকালীন সরকারের উচিত ছিল এগুলোকে আশ্রয় না দিয়ে বিতাড়িত করা। কিন্তু সেটা না করায় আজ অবধি এর যন্ত্রণার ফল ভোগ করছে দেশের সরকার ও জনগণ।



তারা সেই জাতি- যারা পূর্ব থেকেই লুটেরা, ডাকাত ও দস্যু


ইংরেজ নৌদস্যুদের লিডার ‘ক্লাইভ’ পলাশীর যুদ্ধ শেষে মীর জাফরের কাছ থেকে ২ লাখ ৩৪ হাজার পাউন্ড আত্মসাৎ করে রাতারাতি ইংল্যান্ডের ধনীতে পরিণত হয়।” (সূত্র-পি. রবার্টস, হিস্টরী অব ব্রিটিশ ইন্ডিয়া, পৃষ্ঠা ৩৮।) ১) ১৭৫৭ থেকে ১৭৬৫ সাল পর্যন্ত মাত্র কয়েক বছরে শুধুমাত্র



ছিঃ রবীন্দ্র! তোমার বংশপরিচয় এমন?


তথাকথিত ‘বিশ্বকবি’ রবীন্দ্র ঠগের পরিবারকে ‘জমিদার’ হিসেবেই কিছু বইয়ে লেখা হয়। এই রবীন্দ্র পরিবারের প্রশংসায় একশ্রেণীর লোকদের বাড়াবাড়িও লক্ষ্যণীয়। কিন্তু ‘অতিভক্তি চোরের লক্ষণ’ এই বাক্যটির মতোই এসব অতিভক্তি প্রকাশের পিছনে যে রবীন্দ্রদের বিশাল কলঙ্কিত অধ্যায় আড়াল করাই মুখ্য উদ্দেশ্য সেটা হুজুগে



সাইয়্যিদাতুন নিসায়ি ‘আলাল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, উম্মু আবীহা, সাইয়্যিদাতুনা হযরত আন নূরুছ ছালিছাহ আলাইহাস সালাম উনার


যিনি খলিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, وَالطَّيِّبَاتُ لِلطَّيِّبِينَ وَالطَّيِّبُونَ لِلطَّيِّبَاتِ অর্থ: “পবিত্র পুরুষগণ উনাদের জন্য পবিত্রা নারীগণ আর পবিত্রা নারীগণ উনাদের জন্য পবিত্র পুরুষগণ উনাদেরকে তৈরি করা হয়েছে”। সুবহানাল্লাহ! (সম্মানিত সূরা নূর শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ



হযরত উম্মাহাতুল মু’মিনীন আলাইহিন্নাস সালাম উনারা একমাত্র মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক


মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, اِنَّـمَا يُرِيْدُ اللهُ لِيُذْهِبَ عَنْكُمُ الرِّجْسَ اَهْلَ الْبَيْتِ وَيُـطَـهِّـرَكُمْ تَطْهِيْرًا. অর্থ: “হে মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম! নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি চান আপনাদের থেকে সমস্ত প্রকার অপবিত্রতা দূর করে



মুসলমানদের জন্য সতর্কবাণী


সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “প্রত্যেক ছবি তুলনেওয়ালা জাহান্নামী।” নাউযুবিল্লাহ। এই পবিত্র হাদীছ শরীফ থেকে বুঝা যাচ্ছে যে, যারা ছবি তুলবে তারা জাহান্নামী হবে। আর প্রাণীর ছবি আঁকা, রাখা,



নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যখন সম্মানিত বেহেশতী সুঘ্রাণ মুবারক গ্রহণ করার ইচ্ছা মুবারক


যখন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সম্মানিত জান্নাত মুবারক উনার প্রতি আগ্রহী হতেন তথা সম্মানিত বেহেশতী সুঘ্রাণ মুবারক গ্রহণ করার ইচ্ছা মুবারক প্রকাশ করতেন, তখন সাইয়্যিদাতু নিসায়ি ‘আলাল আলামীন আন নূরুর রবি‘য়াহ সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস